আদৌ ১৫ মার্চ থেকে চালু হবে তো গঙ্গার নীচের মেট্রো? পরিষেবা শুরুর আগেই বাড়ছে আশঙ্কা

বাংলাহান্ট ডেস্ক : গঙ্গার নিচ দিয়ে হাওড়া ময়দান-এসপ্ল্যানেড রুটে বাণিজ্যিকভাবে মেট্রো পরিষেবা শুরু হওয়ার কথা আগামী ১৫ই মার্চ থেকে। ইস্ট-ওয়েস্ট করিডরের এই অংশে মেট্রো পরিষেবা শুরু হলে কয়েক মিনিটে হাওড়া ময়দান থেকে পৌঁছে যাওয়া যাবে ধর্মতলা। বেশ কিছুটা পরিবর্তন আসবে দুই শহরের পরিবহণ মানচিত্রে। দুই শহরের নিত্য যাত্রীদের জন্য এটি একটি বড় পাওনা হতে চলেছে।

তবে হাওড়া ময়দান-এসপ্ল্যানেড রুটে মেট্রো পরিষেবা শুরুর আগেই আশঙ্কার কালো মেঘ দেখা দিল। জানা যাচ্ছে, অস্থায়ী নিরাপত্তা কর্মীরা ১৩ই মার্চ বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন হাওড়া ময়দান মেট্রো স্টেশনের বাইরে। বিক্ষোভকারীদের অভিযোগ, মেট্রো কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে নাকি জানানো হয়েছে, তাদের মধ্য থেকে ১০০ জনকে আর কাজে রাখা হবে না। এই প্রকল্পে নিযুক্ত অস্থায়ী নিরাপত্তারক্ষী ও ট্রাফিক মার্শালদের একাংশ এই মুহূর্তে চাকরি হারানোর আশঙ্কায় চিন্তিত।

আরোও পড়ুন : সুপ্রিম কোর্টের রাঁধুনির মেয়ের বিরাট নজির! স্কলারশিপ দেওয়ার জন্য উঠেপড়ে লাগল ২ মার্কিন বিশ্ববিদ্যালয়

তাই বাধ্য হয়ে বুধবার তারা বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন। অস্থায়ী নিরাপত্তারক্ষী ও ট্রাফিক মার্শালরা নিজেদের চাকরি বাঁচানোর উদ্দেশ্যেই এই বিক্ষোভ শুরু করেছেন। তবে এই বিক্ষোভ যদি ১৫ই মার্চ অবধি জারি থাকে তাহলে সুষ্ঠুভাবে মেট্রো পরিষেবা চালু করা যাবে কিনা সেই নিয়ে উঠতে শুরু করেছে প্রশ্ন। বিক্ষোভকারীরা দাবি করেছেন, তাদের মধ্যে থেকে ১০০ জন কর্মীকে ছাঁটাই করা হলেও, অন্য সংস্থার মাধ্যমে কর্মী নিয়োগ হচ্ছে।

kolkata metro

এই অবস্থায় যদি তাদের দাবি মানা না হয় তাহলে তারা মেট্রো পরিষেবা ব্যাহত করারও হুঁশিয়ারি দিয়েছে। আন্দোলনকারীরা জানিয়েছেন, তাদের মধ্যে অনেকে গত ১৪ বছর ধরে এখানে অস্থায়ী নিরাপত্তা রক্ষী হিসাবে কাজ করছেন। এখন অন্য সংস্থা থেকে চুক্তিভিত্তিক কর্মী নিয়োগ করা হচ্ছে।আন্দোলনকারীদের দাবি, নিয়োগ যখন হচ্ছেই তাহলে তাদেরকেই চুক্তিভিত্তিক কর্মী হিসেবে নিয়োগ করা হোক।

Avatar
Soumita

আমি সৌমিতা। বিগত ৩ বছর ধরে কর্মরত ডিজিটাল সংবাদমাধ্যমে। রাজনীতি থেকে শুরু করে ভ্রমণ, ভাইরাল তথ্য থেকে শুরু করে বিনোদন, পাঠকের কাছে নির্ভুল খবর পৌঁছে দেওয়াই আমার একমাত্র লক্ষ্য।

সম্পর্কিত খবর