‘যেখানে খেলা হবে বলেছিল, সেই মাঠের দখল নিতে এসেছি, কারোর বাবার…’, ব্রিগেড থেকে ঝাঁঝালো মীনাক্ষী

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ ৭ই জানুয়ারি সিপিএম এর যুব সংগঠনের ব্রিগেড (Kolkata Brigade) সমাবেশ থেকে ঝাঁঝালো ডিওয়াইএফআইয়ের রাজ‌্য সম্পাদক মীনাক্ষী মুখোপাধ‌্যায় (Minakshi Mukherjee)। খাদ্য, শিক্ষা, চাকরি, স্বাস্থ্যের জন্য ইনসাফের দাবিতে DYFI-এর সমাবেশে উঠে এল চাকরিপ্রার্থীদের আন্দোলন থেকে, মাঠ-ময়দান দখলের ইস্যু৷ গোটা সমাবেশ জুড়ে মঞ্চের মূল আকর্ষণ যুব নেত্রীর বক্তৃতা।

   

এদিন মঞ্চে দাঁড়িয়ে মীনাক্ষী বলেন, “ইনসাফ চেয়ে লড়াইয়ে নেমেছি, পিছু হটার প্রশ্ন নেই’, লড়াই ক্ষণিকের নয়, এ লড়াই দীর্ঘ, অবিরাম লড়াই। আমরা এই প্রথম হাঁটলাম তেমন নয়। কখনও কলেজ তৈরির দাবিতে, কখনও বক্রেশ্বর-হলদিয়া পেট্রো কেমিক্যাল্স তৈরির দাবিতে, কখনও বা আবার সম্প্রীতি, শান্তি বজায় রাখতে আমাদের হাঁটতে হয়। আমাদের জন্য এ নতুন কিছু নয়। সংগঠনের আদর্শের প্রতি আস্থা, নেতৃত্বের দেখানো রাস্তা আর সাধারণ মানুষের প্রতি দায়বদ্ধতার জায়গা থেকে এই লড়াই চলছে, চলবে।”

এদিন একজোটে তৃণমূল-বিজেপিকে নিশানা মীনাক্ষীর। ধর্ম নিয়ে রাজনীতির প্রশ্নে বিজেপিকে আক্রমণ নেত্রীর৷ দুর্নীতির ইস্যুতে বিঁধলেন ‘ইন্ডিয়া’র জোটসঙ্গী তৃণমূলকেও৷ জোর গলায় বলেন, ‘এই মাঠে ইন্ডিয়া-ভারত নাম নিয়ে তর্ক হবে না, জাত-পাত নিয়ে কথা হবে না। লড়াইয়ের শর্ত হবে রুটি-রুজি। কাজ। নকল যুদ্ধ ছেড়ে আসল যুদ্ধ করো।’

ভরা সভায় দাঁড়িয়ে মিনাক্ষীর সাফ কথা, ‘যে মাঠে খেলা হবে বলেছিল, সেই মাঠের দখল নিতে এসেছি। কারোর বাবার ক্ষমতা নেই মাঠের দখল আমাদের থেকে কেড়ে নেবে কারোর বাবার ক্ষমতা নেই মাঠের দখল আমাদের থেকে কেড়ে নেবে।’ ব্রিগেডের মঞ্চ থেকে তৃণমূলকে সরাসরি চ্যালেঞ্জ মীনাক্ষীর।

আরও পড়ুন: সুকান্তদের বাইক র‌্যালি আটকে দিল পুলিশ, BJP কর্মীদের ওপর লাঠিচার্জ, ডানকুনিতে ধুন্ধুমার

ওদিকে তৃণমূলকে তোপ দাগেন সিপিএম রাজ‌্য সম্পাদক মহম্মদ সেলিমও। “ভাইপো নয়, ওটাকে ডেপো বলাই ভাল। সব বেঞ্চ যখন বলে দিল কিছু হবে না, তখন, তিনি চলে গেলেন দিল্লি। বললেন, দাদা পায়ে পড়ি রে, ভাইপোটাকে বাঁচা।’ জোর কটাক্ষ সেলিমের। এদিন মমতা-অভিষেক থেকে অনুব্রত-জ্যোতিপ্রিয়, দুর্নীতি নিয়ে তৃণমূলকে একহাত নিলেন সেলিম।

Kolkata Brigade,DYFI,কলকাতা ব্রিগেড,সিপিএম,ডিওয়াইএফআই,CPM,Bangla,Bengali,Bengali News,Bangla Khobor,Bengali Khobor,Minakshi Mukherjee

শহরের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ব্রিগেডে আসে সাতটি মিছিল। ৫০ দিন আগে কোচবিহার থেকে শুরু হয়েছিল ইনসাফ যাত্রা। পঞ্চাশ দিন শেষে আজ ব্রিগেডে শক্তি প্রদর্শন করল সিপিএম এর যুব সংগঠন। ঢল নেমেছিল বাম সমর্থকদের। লোকসভা ভোটের আগে এদিন ব্রিগেডের চিত্র, জনজোয়ার দেখে উচ্ছ্বসিত আলিমুদ্দিন।