মিঠুন চক্রবর্তীর উত্তরবঙ্গ সফরের মাঝে ফ্লেক্স ছেঁড়াকে কেন্দ্র করে বিতর্কে জড়ালো বিজেপি-তৃণমূল

বাংলাহান্ট ডেস্ক : বিজেপির রাজনৈতিক কর্মসূচি নিয়ে আজ উত্তরবঙ্গ পৌঁছেছেন মিঠুন চক্রবর্তী। মিঠুনের উত্তরবঙ্গে পা দেওয়ার আগেই দ্বন্দ্বে জড়ালো বিজেপি ও তৃণমূল। বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার ও মিঠুন চক্রবর্তীর ছবি যুক্ত ফ্লেক্স ছেঁড়াকে কেন্দ্র করে দুই দলের মধ্যে কাজিয়া তুঙ্গে। এই ঘটনায় বিজেপি সরাসরি দায়ী করেছে তৃণমূলকে। যদিও তৃণমূলের পক্ষ থেকে এই অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে।

ঘটনার সূত্রপাত গতকাল থেকে।বালুরঘাট ট্যাঙ্ক মোড় থেকে নিউটাউন ক্লাব পর্যন্ত প্রায় দু’ কিলোমিটার রাস্তা জুড়ে ফ্লেক্স লাগাচ্ছিলেন বিজেপি কর্মীরা। বলাই বাহুল্য সেই ফ্লেক্স গুলির ছবিগুলি ছিল বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার ও মিঠুন চক্রবর্তীর। বিজেপি কর্মীরা অভিযোগ করেন ফ্লেক্স লাগানোর সময় বালুরঘাট থানার পুলিশ এসে সেগুলি খুলে ফেলে। যদিও পুরসভার তরফ থেকে জানানো হয় ওই জায়গাগুলিতে আলো লাগানোর কাজ হবে। তাই ফ্লেক্স গুলি সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। তবে স্পষ্টভাবে এই বিষয়ে পুরসভা বা পুলিশ কেউই কোন মন্তব্য করতে চায়নি।

এরপর আজ অর্থাৎ মহালয়ের সকালে দেখা যায় সুকান্ত মজুমদার ও মিঠুন চক্রবর্তীর ছবিযুক্ত ফ্লেক্স গুলি কেউ বা কারা ছিঁড়ে দিয়েছে।দক্ষিণ দিনাজপুরের বিজেপির জেলা সভাপতি স্বরূপ চৌধুরীর অভিযোগ করে বলেছেন,” তৃণমূল নোংরা রাজনীতি করছে। ওদের দলের কর্মীরা এই ফ্লেক্স গুলিকে ছিঁড়ে দিয়েছে। গতকাল পুলিশও একই ঘটনা ঘটিয়েছে। বিষয়টি নিয়ে আমরা থানায় অভিযোগ জানাবো।”Mithun Chakraborty,Poster,Flex,Ripped off,BJP

ফ্লেক্স ছেঁড়ার ঘটনা নিয়ে তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা কো-অর্ডিনেটর সুভাষ চাকীর অবশ্য বক্তব্য,”বিজেপির অভিযোগ মিথ্যা। আমাদের নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই ধরনের নোংরা রাজনীতিতে বিশ্বাস করেন না। মানুষের পাশে থেকে কাজ করাই আমাদের একমাত্র লক্ষ্য।” পাশাপাশি তার অভিযোগ, বালুরঘাটে রাজ্য সভাপতি ও স্থানীয় বিজেপির মধ্যে মতানৈক্যর জন্য এ ঘটনা ঘটেছে।

Avatar
Soumita

আমি সৌমিতা। বিগত ৩ বছর ধরে কর্মরত ডিজিটাল সংবাদমাধ্যমে। রাজনীতি থেকে শুরু করে ভ্রমণ, ভাইরাল তথ্য থেকে শুরু করে বিনোদন, পাঠকের কাছে নির্ভুল খবর পৌঁছে দেওয়াই আমার একমাত্র লক্ষ্য।

সম্পর্কিত খবর