টাইমলাইনটাকা পয়সাভারত

সহায় হলেন দাদা! এবার ছোট ভাই অনিলের ডুবতে থাকা কোম্পানি কিনে নিতে চলেছেন মুকেশ আম্বানি

বাংলা হান্ট ডেস্ক: একদিকে যখন বর্তমানে বিশ্বের শ্রেষ্ঠ দশ ধনী ব্যক্তির তালিকায় নবম স্থানে জায়গা করে নিয়েছেন ভারতের অন্যতম ধনকুবের মুকেশ আম্বানি (Mukesh Ambani), ঠিক সেই আবহেই প্রবল ঋণের দায়ে জর্জরিত হয়ে রয়েছেন তাঁর ভাই অনিল আম্বানি (Anil Ambani)। তবে, এবার অনিলের জন্য মিলল সুখবর। জানা গিয়েছে ইতিমধ্যেই ন্যাশনাল কোম্পানি ল ট্রাইব্যুনাল (National Company Law Tribunal, NCLT) অনিল আম্বানির কোম্পানি কেনার জন্য রিলায়েন্স Jio (Reliance Jio)-কে সবুজ সংকেত দিয়েছে।

এই প্রসঙ্গে জানিয়ে রাখি যে, রিলায়েন্স Jio-র সহযোগী সংস্থা রিলায়েন্স প্রোজেক্টস অ্যান্ড প্রোপার্টি ম্যানেজমেন্ট সার্ভিসেস (Reliance Projects And Property Management Services), রিলায়েন্স ইনফ্রাটেলকে (RITL) কেনার জন্য বিড করেছিল। এই কোম্পানির রিলায়েন্স কমিউনিকেশনের টাওয়ার এবং ফাইবারের অ্যাসেট রয়েছে। এমতাবস্থায়, NCLT মুকেশ আম্বানির কোম্পানি Jio-কে SBI-এর এসক্রো অ্যাকাউন্টে (Escrow Account) ৩,৭২০ কোটি টাকা জমা দিতে বলেছে।

উল্লেখ্য যে, চলতি মাসের শুরুতেই Jio রিলায়েন্স ইনফ্রাটেল কেনার প্রক্রিয়াকে ত্বরান্বিত করার জন্য NCLT-র সাথে যোগাযোগ করেছিল। পাশাপাশি, গত ৬ নভেম্বর Jio, RITL কেনার প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ করার জন্য একটি এসক্রো অ্যাকাউন্টে ৩,৭২০ কোটি টাকা জমা দেওয়ার প্রস্তাবও দেয়।

এদিকে, RITL বর্তমানে ইন্সলভেনসি রেজোলিউশন প্রসেসের (Insolvency Resolution Process) মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। এর আগে ২০১৯-এর নভেম্বরে Jio এই কোম্পানিটিকে কিনতে ৩,৭২০ কোটি টাকার বিড করেছিল। এমতাবস্থায়, কমিটি অফ ক্রেডিটার্স ২০২০-র ৪ মার্চের মধ্যে Jio-র রেজোলিউশন প্ল্যানকে সবুজ সংকেত দিয়েছিল।

anil ambani,Mukesh Ambani,Brother,Money,Indian Rupees,Crore,Company,Reliance Jio,Reliance Projects and Property Management Services,escrow account,RITL,India,National,nclt,National Company Law Tribunal,Buy

ব্যাঙ্কে বিরোধ: প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, RITL-এর মোট ফাইবার অ্যাসেট রয়েছে ১.৭৮ লক্ষ রুট কিমি। এছাড়াও, রয়েছে ৪৩,৫৪০ টি মোবাইল টাওয়ার। এটি আরকমের টাওয়ার এবং ফাইবার অ্যাসেটের হোল্ডিং কোম্পানি। তবে, কোম্পানির ফান্ডস নিয়ে একাধিক ব্যাঙ্কের মধ্যে বিরোধ রয়েছে বলে জানা গিয়েছে। যার মধ্যে এসবিআই, দোহা ব্যাঙ্ক, স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাঙ্ক এবং এমিরেটস ব্যাঙ্ক অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। পাশাপাশি, বর্তমানে এই বিষয়টি সুপ্রিম কোর্টে বিচারাধীন রয়েছে। এমতাবস্থায়, রেজোলিউশন প্রোফেশনালরা RITL-এর ইনডাইরেক্ট ক্রেডিটার্সদের দাবিগুলিকে শ্রেণিবদ্ধ করেছিল। যদিও, দোহা ব্যাঙ্ক এটিকে চ্যালেঞ্জ জানায়।

Related Articles