টাইমলাইনবিনোদন

পথ সুরক্ষার নামে পরোক্ষে পণপ্রথার প্রচার! অক্ষয় ও নীতিন গড়করির বিরুদ্ধে ক্ষোভ নেটনাগরিকদের

বাংলাহান্ট ডেস্ক: পণপ্রথার (Dowry System) বিরুদ্ধে সচেতনতা বাড়িয়ে সিনেমা এনেছিলেন অক্ষয় কুমার (Akshay Kumar), ‘রক্ষাবন্ধন’। যদিও সে ছবি সাফল‍্যের মুখ দেখার আগেই হল থেকে গায়েব হয়ে যায়। ছবি পণপ্রথার বিরুদ্ধে হলেও দর্শকদের একাংশ অভিযোগ করেছিলেন, অক্ষয়ের চরিত্রটি নিজেই পণ দেওয়া নেওয়াকে উৎসাহ দিচ্ছিলেন। প্রত‍্যেক পদে পদে অপমান করছিলেন নিজের বোনদের। সে ছবি অবশ‍্য ফ্লপ হয়। এবার এক বিজ্ঞাপনেও অক্ষয়ের বিরুদ্ধে উঠল পণপ্রথা প্রচারের অভিযোগ।

পথ সুরক্ষার একটি বিজ্ঞাপনে পরোক্ষে বেআইনি পণপ্রথাকেই নাকি উসকানি দিচ্ছেন অক্ষয়, এমনি বিষ্ফোরক অভিযোগ করে অভিনেতার বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন নেটিজেনদের একটা বড় অংশ। সেই বিজ্ঞাপনী ভিডিও শেয়ার করায় কেন্দ্রীয় মন্ত্রী নীতিন গড়করিও চলে এসেছেন নেটনাগরিকদের নিশানায়।


এখন প্রশ্ন, বিজ্ঞাপনে সমস‍্যাজনক বিষয়টা ঠিক কী? একটি পথ সুরক্ষার বিজ্ঞাপনে পঞ্জাবি পুলিসের চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা গিয়েছে অক্ষয়কে। বিয়ের পর মেয়ে বিদায়ের করুণ দৃশ‍্য। মেয়েকে শ্বশুরবাড়ির উদ্দেশে গাড়িতে রওনা করিয়ে বাবা কাঁদছেন। পাশে এসে অক্ষয়ের মন্তব‍্য, এমন গাড়িতে মেয়েকে পাঠালে কাঁদতে তো হবেই?

এমন কেন? গাড়ি মন্দ কীসে? সমস্ত সুযোগ সুবিধাই তো আছে! মেয়ের বাবার প্রশ্নে অক্ষয়ের উত্তর, গাড়িতে মাত্র দুটো এয়ারব‍্যাগ। তাই দুর্ঘটনা ঘটলে মেমে জামাই দুজনেরই প্রাণ সংশয়। মেয়ে জামাইকে তাই ছটা এয়ারব‍্যাগ বিশিষ্ট গাড়িতেই বিদায় দেওয়া ভাল। তারপরেই দেখা যায় বদলে গিয়েছে গাড়িটি।

বিজ্ঞাপনী ভিডিওটি শেয়ার করে নীতিন গড়করি লিখেছেন, ‘৬ টি এয়ারব‍্যাগ বিশিষ্ট গাড়িতে গাড়ি নিয়ে নিজের জীবনকে সুরক্ষিত করুন।’ কিন্তু এই ভিডিও নিয়ে আপত্তি প্রকাশ করেছেন অনেকেই। শিবসেনা নেত্রী প্রশ্ন করেছেন, সরকার টাকা খরচ করে বিজ্ঞাপনে গাড়ির সুরক্ষা বোঝাচ্ছেন নাকি পণপ্রথার প্রচার করছে?

কটাক্ষ শানিয়েছেন, তৃণমূলের জাতীয় মুখপাত্র সাকেত গোখলেও। কেন্দ্রীয় সরকার আনুষ্ঠানিক ভাবে পণপ্রথার প্রচার করছে বলে দাবি করেছেন তিনি। জনৈক নেটনাগরিকও ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন, বিজ্ঞাপনের আসল উদ্দেশ‍্যটাই বোঝা যাচ্ছে না। বিয়ে, নাকি পথ সুরক্ষা নাকি ৬ টি এয়ারব‍্যাগ বিশিষ্ট গাড়ির পণ?

যদিও বিজ্ঞাপনটিতে কোথাও ‘পণ’ শব্দটি উচ্চারণ করা হয়নি। কিন্তু পরোক্ষে এখানে বেআইনি কাজকেই উসকানি দেওয়া হচ্ছে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন নেটিজেনরা। তবে এ বিষয়ে এখনো কোনো মন্তব‍্য করেননি অক্ষয়।

Related Articles