লাগবে না পারমিট, হবে না কোন দূষণ! একবার চার্জেই চলবে ১৬০ কিমি, ট্রায়ালেই চমক এই ই-গাড়ির

বাংলাহান্ট ডেস্ক : এবার বাংলার রাস্তায় ট্রায়াল রান হল ইলেকট্রিক হেভি ভেহিকেলস বা ইলেকট্রিক পণ্য যানের। দেশের অন্যান্য রাজ্যে ইতিমধ্যেই এই ধরনের গাড়ি চলাচল করছে। দেশের অন্যান্য রাজ্যে ইলেকট্রিক পণ্যযানের দেখা মিললেও, পশ্চিমবঙ্গে তার দেখা মিলত না। তবে এবার বাংলার রাস্তাতেও ছুটবে এই গাড়ি।

সম্পূর্ণ পরিবেশ বান্ধব এই গাড়িটি চলবে ব্যাটারীতে। তাই প্রাকৃতিক সম্পদ অর্থাৎ পেট্রোল-ডিজেলের প্রয়োজন পড়বে না এই গাড়ির। জ্বালানির খরচ অনেক কম হওয়ায় পণ্য পরিবহন আরও সস্তা হবে বলে মনে করা হচ্ছে। ৫৫ টনের মাল পরিবহন ক্ষমতা রয়েছে এই ধরনের ইলেকট্রিক হেভি ভেহিকেলস বা ইলেকট্রিক পণ্য যানের।

   

আরোও পড়ুন : HS পাশেই চাকরির সুযোগ! লোক নেবে রাজ্যের আবাসিক হোস্টেলগুলি, আবেদন করুন আজই

পেট্রোল বা ডিজেলের সাহায্যে যে পণ্য পরিবহনকারী গাড়িগুলি জাতীয় সড়ক দিয়ে চলাচল করে, তার বিকল্প হিসেবে পথে নামতে চলেছে ভারত স্টেজ সিক্স দূষণহীন এই গাড়ি। এই দূষণহীন গাড়ির ট্রায়াল রান শুরু করা হয়েছে দুর্গাপুর ড্রাই ডক বা দুর্গাপুর শুষ্ক বন্দর থেকে। ট্রায়াল রানের সেই ছবি ইতিমধ্যেই ভাইরাল হয়েছে নেট মাধ্যমেও।

আরোও পড়ুন : আসছে ‘ডিজনিল্যান্ড’! ‘কলকাতা রমরমার’ হাত ধরে ফের মায়ার চাদরে ঢেকে যাবে শহরের আকাশ

দুর্গাপুর ড্রাই ডক পশ্চিমবঙ্গের একমাত্র শুষ্ক বন্দর। এছাড়াও এটি পূর্ব ভারতের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ একটি শুষ্ক বন্দর। এই বন্দর থেকে প্রচুর পরিমাণ পণ্য দেশ-বিদেশে আমদানি-রপ্তানি হয়ে থাকে। এই হেভি লোডের গাড়িটির ট্রায়াল রানও শুরু হল এখান থেকেই। মাত্র ১ ঘন্টায় এই গাড়িটি সম্পূর্ণভাবে চার্জ হয়ে যায়।

নির্মাণকারী সংস্থা জানিয়েছে, ফুল চার্জে এই গাড়িটি ১৬০ কিলোমিটার পর্যন্ত চলতে পারে। দেশের বিভিন্ন প্রান্তে গড়ে তোলা হচ্ছে চার্জিং পয়েন্ট। তাই মাঝ রাস্তায় চার্জের প্রয়োজন হলে এই পয়েন্টগুলি থেকে গাড়ি চার্জ করিয়ে নেওয়া যাবে। একটি হিসাব বলছে ডিজেলের পরিবর্তে এই চার্জ দেওয়া গাড়িটি বছরে সাশ্রয় করতে পারবে প্রায় ১২ লক্ষ টাকা।

screenshot 2023 09 15 15 16 41 86

এছাড়াও আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ কথা হল, রাজ্য বা আন্ত রাজ্য সড়ক পরিবহন ক্ষেত্রে ডিজেল বা পেট্রল গাড়ির জন্য যে সড়ক পরিবহন পারমিট ট্যাক্স দিতে হয় তা দিতে হবে না এই গাড়ির ক্ষেত্রে। এক কথায় বলতে গেলে পারমিট ফ্রী গাড়ি হিসেবে ইতিমধ্যে এই গাড়িটি গ্রহণযোগ্য হয়ে উঠেছে বাণিজ্যিক মহলে। দূষণহীন এই গাড়িটির দাম ১ লাখ ২০ হাজার টাকা বলে জানা গিয়েছে।

Avatar
Soumita

আমি সৌমিতা। বিগত ৩ বছর ধরে কর্মরত ডিজিটাল সংবাদমাধ্যমে। রাজনীতি থেকে শুরু করে ভ্রমণ, ভাইরাল তথ্য থেকে শুরু করে বিনোদন, পাঠকের কাছে নির্ভুল খবর পৌঁছে দেওয়াই আমার একমাত্র লক্ষ্য।

সম্পর্কিত খবর