টাইমলাইনবিনোদন

বাবা তো বাবাই হয়, ক‍্যানসারের বিরুদ্ধে ঐন্দ্রিলার লড়াইয়ের সঙ্গী হতে চুল কেটে ন‍্যাড়া হলেন অভিনেত্রীর বাবা

বাংলাহান্ট ডেস্ক: বছর ছয় আগে লড়াই করে হারিয়েছিলেন ক‍্যানসারকে (cancer)। কিন্তু সেই মারণ রোগ ফের দুঃস্বপ্নের মতো ফিরে এসেছে ঐন্দ্রিলা শর্মার (oindrila sharma) জীবনে। এবার দ্বিগুণ লড়াকু মনোভাব নিয়ে জীবনযুদ্ধে নেমেছেন ঐন্দ্রিলা। তবে এবারে তিনি আর একা নন। পাশে রয়েছে প্রেমিক সব‍্যসাচী চৌধুরী, বান্ধবী পারমিতা সেনগুপ্তর মতো মানুষ।

কিন্তু এঁরা ছাড়াও যে দুজন মানুষ প্রথম থেকেই ঐন্দ্রিলার মনোবল বাড়িয়ে চলেছেন তাঁরা হলেন অভিনেত্রীর মা বাবা। নিঃশব্দে প্রাণ উজাড় করে ভালবাসা ঢেলে দিচ্ছেন মেয়ের প্রতি। তার একটা উদাহরণই অনুরাগীদের সঙ্গে শেয়ার করে নিয়েছেন ঐন্দ্রিলা।


কেমোথেরাপির জন‍্য কিছুদিন আগেই এক ঢাল চুল কেটে মাথা ন‍্যাড়া করে দিয়েছেন ঐন্দ্রিলা। তবে তাতে যে তাঁর সৌন্দর্যে বিন্দুমাত্র হেরফের হয়নি তা বলাই বাহুল‍্য। মেয়েদের সৌন্দর্য তাদের চুলে নয়, বরং তাদের মনে এমনটাই সবার সামনে প্রমাণ করে দিয়েছেন ঐন্দ্রিলা।

এবার মেয়ের লড়াইয়ের পথে তাঁর সঙ্গী হলেন ঐন্দ্রিলার বাবাও। মেয়ের দেখাদেখি নিজেও মাথা ন‍্যাড়া করে দিয়েছেন তিনি। বাবার পাশে দাঁড়িয়ে ছবি তুলে ঐন্দ্রিলা লিখেছেন, ‘বাবা কখনো মুখে বলেনা ভালবাসি, নীরবে প্রাণ দিয়ে ভালবেসে যায়। কাল হঠাৎ সব চুল কেটে দেয়। বাবার ভালবাসা হয়তো এরকমই হয়। আমি খুবই ভাগ‍্যবতী।’

এর আগে অভিনেত্রীর প্রিয় বান্ধবী পারমিতা সেনগুপ্তও তাঁর মনোবল বাড়ানোর জন‍্য নিজের চুল কেটে নেড়া হয়ে গিয়েছিলেন। বান্ধবীর ছবি পোস্ট করে ঐন্দ্রিলা জানিয়েছিলেন, তিনি কার্যত বাকরুদ্ধ। ক‍্যাপশনে তিনি লিখেছিলেন, ‘কিছু বন্ধুত্ব এরকমও হয়’।

নিজের নেড়া হওয়ার পরের একটি মিষ্টি ছবিও পোস্ট করেন ঐন্দ্রিলা। ক‍্যাপশনে লেখেন, ‘চুলেই নারীর সৌন্দর্য, আর নয়’। কমেন্ট বক্সে অনুরাগীদের ঢল নামে। সকলেই একবাক‍্যে বলেন, ঐন্দ্রিলার মনের জোরকে সত‍্যিই কুর্নিশ জানাতে হয়।

২০২০ ও ২০২১ এর দুটি ছবি পাশাপাশি কোলাজ করে পোস্ট করেন সব‍্যসাচীও। ২০২০র ছবিতে লম্বা চুলে দেখা যাচ্ছে ঐন্দ্রিলাকে। তবে দুটি ছবিতেই তাঁর মুখের হাসি অমলিন। দুই ছবিতেই ঐন্দ্রিলাকে শক্ত করে জড়িয়ে ধরে রেখেছেন সব‍্যসাচী। পাঁচ মাসে কতটা পরিবর্তন হয় তা এই ছবিতেই বুঝিয়েছেন তিনি। ঐন্দ্রিলার সঙ্গে নিজের লম্বা চুলও কেটে ছোট করে দিয়েছেন সব‍্যসাচী।

Back to top button