টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গ

মাংস খেতে যেতে চেয়েছিলেন বাপের বাড়ি, বাধা দেওয়ায় হ্যাঁচকা টানে শ্বশুরের অণ্ডকোষ ছিঁড়লেন বৌমা

বাংলাহান্ট ডেস্ক : রাগের মাথায় অনেকেই অনেক কিছু ঘটিয়ে ফেলে। কেউ গালিগালাজ করেন,আবার কেউ হাতের সামনে যা পান তাই ছুঁড়ে ভেঙে ফেলেন। কিন্তু এমন কখনো শুনেছেন কি যে রাগের মাথায় কেউ কারোর অন্ডকোষ ছিঁড়ে নিয়েছেন? এমনই একটি চাঞ্চল্যকর ঘটনার সাক্ষী থাকলো পূর্ব মেদিনীপুর জেলার নারকেলদাহা গ্রাম। অভিযুক্তদের নাম শিখা হাইত।

জানা গেছে ২৭ বছর বয়সী এই গৃহবধূ গত শনিবার তার স্বামীকে ফোন করে বলেন যে তিনি মাংস খাওয়ার জন্য বাপের বাড়ি যাবেন। শিখার স্বামী বিশ্বজিৎ জানান যে তিনি নিজেই মাংস কিনে আনছেন। বাপের বাড়ি যাওয়ার প্রয়োজন নেই। বিশ্বজিৎ এর এই নিষেধে রীতিমতো অগ্নি শর্মা রূপ ধারণ করেন শিখা।

প্রতিবেশীরা জানান, এই ঘটনার পর শিখা রেগে গিয়ে একাধিক কু কথা বলতে শুরু করেন। পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার জন্য শিখাকে বোঝাতে এগিয়ে আসেন তার শ্বশুর। কিন্তু শ্বশুরের ওপর রেগে গিয়ে হেঁচকা টানে তার অন্ডকোষ ছিঁড়ে ফেলেন শিখা। এরপর প্রবল যন্ত্রণায় ছটফট করতে থাকেন বৃদ্ধ। দ্রুত তাকে হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়।

WestBengal,Purba Medinipur,Inappropriate behaviour,Father in law

এই ঘটনার পর প্রতিবেশীরা শিখাকে বেঁধে মারধর শুরু করেন। এরপর সেখান থেকে শিখা পালিয়ে যান তার বাপের বাড়িতে। শ্বশুরবাড়ির তরফ থেকে থানায় অভিযোগ জানানো হলে শিখাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এই ঘটনার পর রীতিমতো চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে এলাকা জুড়ে। এক প্রতিবেশী জানান,” শিখার মাথা বরাবরই গরম। তাই সংসারে নিত্য অশান্তি লেগেই থাকত। কিন্তু এইরকম ঘটনা হবে তা ভাবতেও পারি না। আমরা পুলিশের কাছে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।”

Related Articles