উঠছিল ‘আল্লাহু আকবর’ ও ‘পাকিস্তান জিন্দাবাদ’ স্লোগান! নুহতে কর্তব্যরত ASI শোনালেন সেদিনের ভয়ংকর অভিজ্ঞতা

   

বাংলা হান্ট ডেস্ক : ৩১ জুলাই, হরিয়ানার (Haryana) মেওয়াতের নুহতে (Nuh Vaiolence) মুসলিম জনতা শ্রাবণ মাসের সোমবারে জলাভিষেক যাত্রায় যোগদানকারী হাজার হাজার হিন্দু ভক্তদের উপর হামলা চালায়। সেদিন নুহতে কর্তব্যরত সহকারী সাব ইন্সপেক্টর ধর্মেন্দ্রর অভিযোগের ভিত্তিতে নথিভুক্ত এফআইআর অনুসারে জানা যাচ্ছে, দাঙ্গাকারীরা মন্দিরে ভক্তদের উপর হামলা করার সময় আল্লাহ-হু-আকবর এবং পাকিস্তান জিন্দাবাদের স্লোগান দেয়।

সহকারী সাব ইন্সপেক্টর ধর্মেন্দ্রর অভিযোগের ভিত্তিতে ভারতীয় দণ্ডবিধির (আইপিসি), ধারা ২৫ বা অস্ত্র আইন এবং ৪ ধারার ১৪৮, ১৫৯, ২৯৫এ, ৩৩২, ৩৫৩, ১৮৬, ১৮৮, ৪২৭, ৪৩৫, ৩০৭ ধারার অধীনে এফআইআর নথিভুক্ত করা হয়। এর মধ্যে রয়েছে সরকারি সম্পত্তির ক্ষতি প্রতিরোধ আইন। লুকমান, সাহিল ওয়াজিদ হুসেন, জাকার, মুশতাক এবং অন্যান্য ৮০০-৯০০ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়।

জানা যাচ্ছে, এএসআই ধর্মেন্দ্র, এএসআই অরুণ সিং, হেড কনস্টেবল জিতেন্দ্র, হোম গার্ড বীর সিং, হোম গার্ড ত্রিলোক, হোম গার্ড আইজাজ, এসপিও নরেন্দ্র এবং অন্যান্য পুলিস কর্মকর্তারা, চালক মহম্মদ বিলালের সঙ্গে জলাভিষেক যাত্রার সময় মন্দিরে হাজির ছিলেন।

nuh

এএসআই ধর্মেন্দ্র বলেন মেওয়াত জলাভিষেক যাত্রার সময় জন্য নলহাদ মন্দিরে কর্বত্যরত ছিলেন। তিনি জানান মুসলিম সম্প্রদায়ের প্রায় ৮০০-৯০০ অজ্ঞাত ব্যক্তি পরিকল্পিতভাবে ধর্মীয় অনুষ্ঠানে অশান্তি ঘটাতে শিব মন্দিরের দিকে যেতে শুরু করে। তারা আল্লাহ-হু-আকবর স্লোগান দিচ্ছিল। তাদের হাতে লাঠি, লাঠি, পাথর ও অবৈধ অস্ত্র ছিল। এরই মধ্যে ওঠে পাকিস্তান জিন্দাবাদ স্লোগানও।

আমার সহকারীরা এবং আমি পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার করার চেষ্টা করি। আমরা উন্মত্ত মুসলিম জনতাকে বাধা দেওয়ার চেষ্টা করেছিলাম। কিন্তু তারা আমাদের প্রতিরোধে পাথর ছুঁড়তে শুরু করে। আল্লাহ-হু-আকবর স্লোগান দিতে দিতে জলাভিষেকের জন্য উপস্থিত ভক্ত ও পুলিস সদস্যদের হত্যা করতে গুলি চালায়। এই হামলার সময় হোম গার্ড বীর সিং ও ত্রিলোক আহত হন।

মুসলিম সম্প্রদায়ের সদস্যরা আল্লাহ-হু-আকবর ও পাকিস্তান জিন্দাবাদ স্লোগান দিতে দিতে মন্দিরের দিকে হাঁটা শুরু করে। এএসআই জনতাকে ছত্রভঙ্গ করতে আকাশে তিনটি গুলি চালায়, কিন্তু পালানোর পরিবর্তে ইসলামপন্থী জনতা মন্দিরের দিকে যাওয়ার রাস্তায় দাঁড়িয়ে থাকা যানবাহনের ক্ষতি করতে শুরু করে। পাকিস্তান জিন্দাবাদ ও আল্লাহ-হু-আকবর স্লোগান দিতে গিয়ে তারা যানবাহনে পেট্রোল নিক্ষেপ করে এবং পেট্রোল ভর্তি বোতল ব্যবহার করে পুড়িয়ে দেয় যানবাহন।

Avatar
Sudipto

সম্পর্কিত খবর