নেপালের পা কেঁপেছে! রোহিত, কোহলিরা সামলাতে পারবেন তো পাকিস্তানের আগুনে বোলিং?

বাংলা হান্ট নিউজ ডেস্কঃ শুরুটা করেছিলেন পাকিস্তান অধিনায়ক বাবর আজম (Babar Azam) এবং ইফতিকার আহমেদ। বল হাতে শেষ করলেন শাদাব খান। এশিয়া কাপের (2023 Asia Cup) প্রথম ম্যাচে নেপালকে নিয়ে ছেলেখেলা করে ২৩৮ রানের ব্যবধানে জিতলেন শাহীন আফ্রিদিরা। ২রা সেপ্টেম্বর দ্বিতীয় ম্যাচে ভারতের মুখোমুখি হওয়ার আগে বিরাট কোহলি রোহিত শর্মাদের একটি কড়া বার্তা পাঠিয়ে রাখলেন পাকিস্তানের ক্রিকেটাররা।

আজ বল হাতে অসাধারণ বোলিং করেছেন পাকিস্তানের তিন পেসার শাহিনা আফ্রিদি, নাসিম শাহ এবং হ‍্যারিস রাউফ। তাদের সুইমিং এবং পেসের সামনে রীতিমতো অসহায় দেখিয়েছে ৩৪৩ রান তাড়া করতে নামা নেপালের ব্যাটারদের। প্রথম ওভারেই ২ উইকেট তুলে রান তাড়া করতে না আমার নেপালের ধ্বংসের শুরুটা করে দিয়েছিলেন আফ্রিদি। নিজের প্রথম ওভারে উইকেট পেয়েছিলেন নাসিমও। হ্যারিসের পেসের সামনে রীতিমতো পা কাঁপছিল নেপালের ব্যাটারদের।

   

এরপর পাকিস্তানের পেসাররা নেপালের টপ অর্ডার ধ্বংস করে দেওয়ার পর তাদের ইনিংস শেষ করার দায়িত্বটা নিয়ে নিয়েছিলেন লেগস্পিনার শাদাব খান। তার ঘুর্ণিতে নাস্তানাবুদ হয়ে যায় নেপালের লোয়ার অর্ডার। ম্যাচে ৪ উইকেট নেন তিনি। ২ টি করে উইকেট নিয়েছেন রাউফ এবং আফ্রিদি। এক উইকেট এসেছে নাসিমের ঝুলিতে।

pak bowling

আরও পড়ুন: প্রথম ম্যাচেই সুপারহিট বাবর! এশিয়া কাপের মঞ্চে ভাঙলেন কোহলির বিরাট রেকর্ড

পাকিস্তানের বোলিং আক্রমণে রয়েছে মারাত্মক বৈচিত্র‍্য। নতুন বল হাতে শুরু করেন শাহিন আফ্রিদি এবং নাসিম শাহ। পিচ ও পরিবেশ খুব বেশি সহায়তা না হলেও নতুন বল হাতে সুইং আদায় করার ক্ষমতা রয়েছে এই দুই তারকার। এরপর শাহীনকে ছোট স্পেলে বোলিং করিয়ে সামনে আনা হয় হ‍্যারিস রাউফকে। পাকিস্তানের এই তারকা ফাস্ট বোলার সুইংয়ের উপর নির্ভরশীল নন। বিশুদ্ধ গতিতে তিনি বিপক্ষকে নাস্তানাবুদ করতে সক্ষম। এই তিনজনকে সামলে নেওয়া গেলেও এরপর শাদাব খানের হাত থেকে বেরোনো বল গুলির কোনটি গুগলি এবং কোনটি লিখবেন সেটি নির্ণয় করতে গিয়ে বিপাকে পড়তে হতে পারে বিপক্ষ ব্যাটারদের।

আরও পড়ুন: ব্যাটিং, বোলিং, ফিল্ডিং তিন বিভাগেই ভয়ঙ্কর! নেপালকে চূর্ণ করে ভারতকে বার্তা দিয়ে রাখল পাকিস্তান

সাম্প্রতিক সময়ে ওডিআই ফরম্যাটে খুব একটা ভালো পারফরম‍্যান্স করেনি ভারত। যেমন প্রথম একাদশই নামাক না কেন তারা, পাকিস্তানের এই বোলিং আক্রমণ তাদেরকে বিপাকে ফেলতে সক্ষম এক্ষেত্রে অভিজ্ঞতা একটা খুব গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার হয়ে দাঁড়ায়। এর আগে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ওডিআই ম্যাচ খেলার অভিজ্ঞতা দলে রয়েছে বিরাট কোহলি ও রোহিত শর্মাদের। সেপ্টেম্বর মাসে ২ তারিখে যখন তুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী দেশ একে অপরের মুখোমুখি হবে তখন পাকিস্তানি বোলিংকে সামলানোর মূল দায়িত্ব থাকবে এই দুজনের উপরই।

 

Avatar
Reetabrata Deb

সম্পর্কিত খবর