টাইমলাইনখেলাক্রিকেট

ছিল প্রাণ সংশয়ের আশঙ্কা! পিছু নিয়েছিল অজ্ঞাতরা! কোহলিকে নিয়ে বড় তথ্য ফাঁস প্রাক্তন সতীর্থের

বাংলা হান্ট নিউজ ডেস্ক: ভারতের প্রাক্তন অধিনায়ক বিরাট কোহলি তার ব্যাটিংয়ের জন্যই মূলত বিখ্যাত কিন্তু বিরাটের ফিটনেস রুটিনও অনেক মানুষকে অনুপ্রেরণা জুগিয়েছে। কোহলি তার দুর্দান্ত ফিটনেসের কারণে অনেক ত্যাগ স্বীকার করেছেন। জুনিয়র ক্রিকেটে বিরাট কোহলির নাম চিকু দ্য র‍্যাবিটসের অনুকরণে চিকু রাখা হয় কারণ তিনি সেই সময় অনেকটাই গোলগাল দেখতে ছিলেন। আর বিভিন্ন খাওয়ার খেতেও খুব পছন্দ করতেন। অনেকেই জানেন না একসময় নিজের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মাটন রোল খেতে গিয়েছিলেন। এমনটাই জানিয়েছেন বিরাট কোহলির একসময়ের সতীর্থ ক্রিকেটার প্রদীপ সাংওয়ান।

জুনিয়র ক্রিকেটে, কোহলি বেশ কিছু বছর প্রদীপ সাংওয়ানের রুম পার্টনার ছিলেন। প্রদীপ সাংওয়ান সম্প্রতি একটি সাক্ষাৎকারে বিরাট কোহলি সম্পর্কে বলেন, “বিরাট খেতে খুব পছন্দ করতেন। তিনি কোরমা রোল, চিকেন রোল খুব পছন্দ করতেন। একবার আমরা অনূর্ধ্ব-১৯ দলের হয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে গিয়েছিলাম। কেউ একজন বিরাটকে বলেছিল যে একটা জায়গায় মাটন রোল খুব ভালো কিন্তু সেই জায়গাটা নিরাপদ নয়। টিমের ম্যানেজারও একই কথা বলেছেন ওই জায়গাটি নিরাপদ নয়। সম্প্রতি সেখানে এক ব্যক্তির হাত কেটে ফেলা হয়। তবুও, কোহলি সেখানে গিয়ে রোল খাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন এবং সেই জায়গার ভয়ংকর পরিবেশ এবং মানুষদের মধ্যে থেকে রোল খেয়েই ফিরেছিলেন।”

২০১২ সালে, বিরাট কোহলি ফিটনেসের প্রতি তার সম্পূর্ণ মনোযোগ দিতে শুরু করেন এবং সম্পূর্ণরূপে তার ডায়েট পরিবর্তন করেন। ভারতের হয়ে জাতীয় দলে নিয়মিত হওয়ার পর, বিরাট তার ডায়েটকে আস্তে আস্তে ভিন্ন মাত্রায় নিয়ে যান। তিনি তার ওজন কমাতে চেয়েছিলেন।

তিনি একজন ভালো অ্যাথলিট হতে চেয়েছিলেন। তিনি একজন ভালো ফিল্ডার তো ছিলেনই কিন্তু তিনি নিজেকে সেরা ফিল্ডার তৈরি করতে চেয়েছিলেন। বিরাট কোহলি ঘণ্টার পর ঘণ্টা নেটে ব্যাট করতেন এবং শুধু সেদ্ধ খাবার খেতে শুরু করেন সেই সময় থেকে। এখন গোটা দেশ তাকে একজন ফিটনেস আইকন হিসাবে দেখেন।

Related Articles

Back to top button