দলে ‘পরিবারতন্ত্র’ চলছে! ক্ষোভ উগড়ে বিজেপিতে যোগ দিলেন পুরুলিয়ার তৃণমূল সহ সভাপতি

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ ভোট আসতেই শুরু হয়ে গিয়েছে দলবদল! চব্বিশের লোকসভা নির্বাচনের নির্ঘণ্ট ঘোষণা হওয়ার পরেও দলবদলের ধারা অব্যাহত। সম্প্রতি ‘অর্জুন গড়ে’ একাধিক বিজেপি কর্মী তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন। এবার পুরুলিয়ায় জোড়াফুল (Purulia TMC) শিবিরে ভাঙন ধরল। তৃণমূলের বিরুদ্ধে একাধিক ক্ষোভ উগড়ে অনুগামীদের নিয়ে পদ্ম শিবিরে যোগ দিলেন তৃণমূলের পুরুলিয়া জেলা সহ সভাপতি উত্তম বন্দ্যোপাধ্যায়।

   

রবিবার পুরুলিয়ায় বিজেপির (BJP) দলীয় কার্যালয়ে গিয়ে দলে যোগ দেন উত্তম। তাঁর হাতে গেরুয়া পতাকা তুলে দেন লোকসভা ভোটে পুরুলিয়ার পদ্ম-প্রার্থী জ্যোতির্ময় সিং মাহাতো। বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পরেই প্রাক্তন দলকে আক্রমণ করেন উত্তম বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর দাবি, জোড়াফুলে (TMC) যে যত বেশি দুর্নীতি করবে, তাঁর উন্নতিও তত বেশি হবে। পাশাপাশি দলের ভেতর ‘পরিবারতন্ত্র’ চলছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

উত্তমের কথায়, ‘তৃণমূলে যাঁরা যত দুর্নীতি করবে, তাঁদের তত উন্নতি হবে। তৃণমূলের দুর্নীতির বিরুদ্ধে বিজেপি যে লড়াই শুরু করেছে সেই লড়াইয়ের সঙ্গী হতে পেরে আমি গর্বিত’। এখানেই না থেমে পুরুলিয়ায় জোড়াফুল শিবিরের ভেতর ‘পরিবারতন্ত্র’ চলছে বলেও দাবি করেন তিনি।

আরও পড়ুনঃ তমলুক থেকে দাঁড়াবেন না! অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়কে ‘বিশেষ’ অনুরোধ কুণালের? কারণ কী?

উত্তমের কথায়, পুরুলিয়া লোকসভা কেন্দ্রে তৃণমূল প্রার্থী শান্তিরাম মাহাতো, রাজীব সোরেন, সুজয় বন্দ্যোপাধ্যায়, সন্ধ্যা টুডুরা নিজেদের একটা বৃত্ত বানিয়ে ফেলেছে। বাইরের কাউকেই তাঁরা প্রবেশ করতে দেবেন না। দলত্যাগী প্রাক্তন সহ সভাপতির অভিযোগের জবাব দিয়েছেন শান্তিরাম মাহাতো।

purulia tmc leader uttam banerjee joins bjp

পুরুলিয়া কেন্দ্রে তৃণমূল প্রার্থীর কথায়, ‘যিনি বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন, উনি নিজেই কী করেন নিজে জানেন না। আমাদের দলে ওঁর কোনও গুরুত্ব নেই। উনি বিদায় হওয়ায় দলের ভালো হয়েছে’। এদিকে পুরুলিয়ার বিজেপি প্রার্থী জ্যোতির্ময় সিং মাহাতোর আবার দাবি, তৃণমূল থেকে অনেকেই তাঁদের সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন। দলে যোগ দিতে ইচ্ছুক তাঁরা। যারা অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে জানে তাঁদের জন্য দলের দরজা সবসময় খোলা বলে জানান তিনি।

Sneha Paul
Sneha Paul

স্নেহা পাল, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তরের পর সাংবাদিকতা শুরু। বিগত প্রায় ২ বছর ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর