তবে কি এবার তৃণমূলে যোগ! রাহুল সিনহাকে সবুজ শিবিরের দুই হেভিওয়েট নেতার ফোন

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ ২০২১ -এর নির্বাচনকে কেন্দ্র করে তৃণমূল (All India Trinamool Congress) বিজেপি নিজেদের মত করে দল গড়ে তুলছে। অনেক উত্থান পতন লক্ষ্য করা যাচ্ছে দলের অন্দরে। এই নিয়ে দলের প্রাক্তনদের মন কষাকষির খবরও শোনা যাচ্ছে রাজনৈতিক মহলে কান পাতলেই। এই হুজুগে নাম জড়াল বিজেপির প্রাক্তন কেন্দ্রীয় সম্পাদক রাহুল সিনহার (Rahul Sinha)।

কিছুদিন আগেই বিজেপির প্রধান প্রধান পদে দায়িত্ব পেয়েছেন তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে আসা দুই শীর্ষ নেতৃত্ব। কিন্তু এদিকে রাজনৈতিক জন্মের প্রথম লগ্ন থেকেই বিজেপিতে থেকেও রাহুল সিনহাকে কেন্দ্রীয় সম্পাদকের পদ থেকে সম্প্রতি বিচ্যুত করা হয়। এই বিষয়ে নিজের ট্যুইটার হ্যান্ডেল থেকে একটি ভিডিও শেয়ার করে কিছুদিন আগেই নিজের ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছিলেন তিনি।

   

Untitled 1 91

রাহুল সিনহা বিস্ফোরক মন্তব্য করে বলেছিলেন, ‘৪০ বছর ধরে বিজেপির সেবা করার পর এটাই কি ছিল আমার পুরস্কার! জন্মলগ্ন থেকেই বিজেপির একজন সৈনিক হিসাবে দায়িত্ব সামলে এসেছি। এখন দলে তৃণমূলের নেতারা আসছেন বলে আমাকে সরিয়ে দেওয়া হচ্ছে? এর থেকে বড় দুর্ভাগ্য আর কি হতে পারে! এখন কিছু বলবা না। যা বলার আগামী ১০-১২ দিনের মধ্যে আমার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার কথা বলব’।

রাহুল সিনহার এহেন মন্তব্যের পর প্রায় ২০-২১ দিন হয়ে গেলেও কিছুই বলতে শোনা যায়নি তাঁকে। এই পরিস্থিতিতে আবার শোনা গিয়েছে তৃণমূলের দুই নেতা নাকি তাঁর সঙ্গে আবার ফোনে কথাও বলেছেন, যা নিয়ে রাজনৈতিক মহলে অনেক জল্পনাও শুরু হয়েছে। রাহুল সিনহা জানিয়েছেন, ‌’আমার অবস্থান ঠিকই আছে। এত দিন কাজের পর, ২০ দিন হল এখন একটু বিশ্রাম নিচ্ছি। তৃণমূলের দুই সম্মানীয় নেতা পৃথক পৃথক ভাবে আমাকে ফোনও করেছিলেন। আমার চিন্তা ভাবনা, আগামী দিনের পরিকল্পনা জানতে। সৌজন্য ফোন আর কি!’

Avatar
Smita Hari

সম্পর্কিত খবর