আটকে রেলের বহু প্রকল্প! সায় নেয় রাজ্যের, মমতাকে নিশানা বৈষ্ণবের

বাংলা হান্ট ডেস্ক : বছরের প্রথম দিনেই রেলভবন থেকে বালুরঘাট শিয়ালদহ এক্সপ্রেসের সূচনা করেন রেলমন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণব (Ashwini Vaishnaw)। এইদিন রেলমন্ত্রীকে (Rail Minister) সঙ্গ দেওয়ার জন্য বালুরঘাট স্টেশনে উপস্থিত ছিলেন সাংসদ তথা রাজ্য বিজেপি (BJP) সভাপতি সুকান্ত মজুমদার। সেখানেই বাংলার প্রকল্প এবং নানা ধরনের সমস্যা নিয়ে কথা বলেছেন তিনি। সেই সাথে জমি অধিগ্রহণ সংক্রান্ত সমস্যার কথাও উল্লেখ করে মমতা ব্যানার্জিকে (Mamata Banerjee) কটাক্ষ করেছেন মন্ত্রী।

   

এইদিন বালুরঘাট স্টেশনে দাঁড়িয়ে তিনি বলেন, ’সব মিলিয়ে পশ্চিমবঙ্গের ৯৮টি স্টেশন বিশ্বমানের স্টেশন হতে চলেছে। যার মধ্যে উত্তরবঙ্গ পেতে চলেছে ২৬টি স্টেশন।’ অনুষ্ঠানের মঞ্চে দাঁড়িয়ে রেলমন্ত্রী জানান যে, পশ্চিমবঙ্গ প্রকল্প রূপায়ণের ক্ষেত্রে জমি অধিগ্রহণ একটি বড় সমস্যা। একাধিক প্রকল্প রয়েছে বটে তবে, জমি জটের কারণে আটকে রয়েছে বহু প্রকল্প। আর রাজ্যের হস্তক্ষেপ ছাড়া এই সমস্যা নাকি মেটারও নয় বলে জানিয়েছেন তিনি।

অশ্বিনী বৈষ্ণব আরও জানিয়েছেন, এইমুহুর্তে একযোগে রেলের প্রায় ৫০,৯১৫ কোটি টাকার মোট ৬১ টি প্রকল্প চালু রয়েছে। যার মধ্যে নতুন লাইন, ডাবলিং বা বৈদ্যুতিকরণ ক্ষেত্রে ১৪০৮ কিলোমিটার লাইন পাতার কাজ জমির অভাবে আটকে রয়েছে। এইসব প্রকল্প বাবদ খরচ প্রায় ৩৫ হাজার কোটি টাকা। সেই সাথে নন্দীগ্রামের রেল প্রকল্পের কথাও উল্লেখ করেছেন রেলমন্ত্রী। তিনি জানিয়েছেন, এই প্রকল্পের ৬০-৭০ শতাংশ জমি অধিগ্রহণের কাজ সম্পন্ন হলেও এখনও বাকি রয়েছে অনেকটাই। আর এই কাজ রাজ্যকে ছাড়া সম্ভব নয়।

আরও পড়ুন : তিন রামলালার ভোটযুদ্ধ, চূড়ান্ত হল বিগ্রহ! কার মূর্তি স্থান পাচ্ছে গর্ভগৃহে? দেখুন ছবি

90697534.cms

সেই সাথে তিনি আরও জানিয়েছেন যে, এই কাজের জন্য রাজ্যের তরফ থেকে নাকি কোনও সাহায্যই মিলছেনা। অভিযোগের সুরে তিনি জানিয়েছেন, ‘জমি অধিগ্রহণ ছাড়াও রেল প্রকল্পের জন্য বিভিন্ন সরকারি অনুমতি (পানীয় জল, বিদ্যুৎ, বন দফতরের অনুমতি) পাওয়ার ক্ষেত্রে রাজ্য সরকারের গড়িমসির কারণে বিভিন্ন প্রকল্পের কাজ থমকে রয়েছে।’

আরও পড়ুন : সাবধান! জাপান ছাড়াও ভূমিকম্প ভারতে, ২৪ ঘণ্টায় ১৫৫ বার কাঁপল মাটি! মৃত ১২

mamata banerjee

অশ্বিনী বৈষ্ণবের কথায়, ‘রাজ্য সরকারকে একের পর এক চিঠি লেখা সত্ত্বেও রাজ্যের পক্ষ থেকে কোনও জবাব আসেনি। রেলের বিভিন্ন প্রকল্পের কাজ যে ভাবে আটকে রাখা হচ্ছে পশ্চিমবঙ্গে, তা দেখে মনে হচ্ছে রাজনৈতিক কারণেই ওই বাধার সৃষ্টি করা হচ্ছে। অথচ, অন্য রাজ্যগুলিতে ওই কাজ মসৃণ ভাবে চলছে।’ সেই সাথে তিনি বেশ স্পষ্ট ভাষাতেই বলেছেন যে, রাজ্য সরকারের অসহযোগীতার কারণে ভূগতে হচ্ছে সাধারণ মানুষকে।

সম্পর্কিত খবর