টাইমলাইনবিনোদন

বাইরেই গ্ল‍্যামার, অন্তরে নোংরামি ভর্তি! বলিউডের সত‍্যিটা ফাঁস করে দিলেন রণদীপ হুডা

বাংলাহান্ট ডেস্ক: বলিউডি (Bollywood) পার্টি আমজনতার কাজে চিরদিনই কৌতূহলের বিষয় হয়ে থেকেছে। একই সঙ্গে বিতর্কও কম হয়নি এইসব পার্টি নিয়ে। একাধিক অভিনেতা অভিনেত্রী মুখ খুলেছেন ইন্ডাস্ট্রির তারকাখচিত পার্টি নিয়ে। উদ্দাম রাতে মদ ও মাদকের অবাধ সেবন নিয়েও বিষ্ফোরক তথ‍্য ফাঁস করেছেন অনেকে। সেই তালিকায় এবার নাম লেখালেন অভিনেতা রণদীপ হুডা (Randeep Hooda)।

বলিউডের বহুদিনের সদস‍্য রণদীপ। একাধিক হিট ছবি উপহার দিয়েছেন তিনি। ভার্সাটাইল অভিনয়ের জন‍্যও বেশ জনপ্রিয় তিনি। কিন্তু রণদীপ একেবারেই প্রচারবিমুখ। বলিউডের ঝাঁ চকচকে পার্টিতে দেখা যায় না তাঁকে। ইন্ডাস্ট্রিতে থেকেও যেন নেই রণদীপ। তারকা হয়েও পার্টির প্রতি এমন নিরাসক্ত কেন?


রণদীপ বলেন, ‘আমার মনে হয় না জীবনে আমি কোনো পুরস্কার পেয়েছি বলে। আর তাতে আমার কিছু যায়ও আসে না। তোমার লক্ষ‍্য হওয়া উচিত নিজের কাছে আসল থাকা। বাস্তব জীবনে ভান করতে শুরু করলে পর্দায়ও সেটাই করবে। সেই কারণেই আমি এসব ইভেন্ট, পার্টিতে বেশি যাই না, যেখানে সবাই নিজেদের খুব খুশি, গ্ল‍্যামারাস দেখানোর চেষ্টা করে, কিন্তু আসলে এদের জীবন আবর্জনায় ভর্তি।’

রণদীপের মতে, নিজের কাছে এবং নিজের কাজের কাছে পরিষ্কার থাকা সবথেকে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। তাদের কাজ সব মানুষকে খুশি করা নয়। আর যারা সবাইকে খুশি করার চেষ্টা করে তারা ভাল অভিনেতা নয় বলেই মনে করেন রণদীপ।

তিনি আরো বলেন, ফিল্মি লোকজনের থেকে বাস্তব জগতের মানুষদের সঙ্গে বেশি সময় কাটাতে পছন্দ করেন তিনি। কারণ খ‍্যাতি পেলে অভিনেতার জীবনযাত্রার ধরণ বদলে যায়। আমজনতার নাগালের বাইরে চলে যান তাঁরা। সবার সঙ্গে আর তারা মিশতে পারেন না। তাই বাস্তব মানুষদের সঙ্গে সময় কাটানো খুব জরুরি, মত রণদীপের।

আগামীতে বীর সাভারকরের ভূমিকায় দেখা যাবে তাঁকে। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “স্বাধীনতা যুদ্ধে অনেক বিপ্লবী, দেশনায়করা নিজেদের অবদান রেখেছেন। কিন্তু সকলে যোগ‍্য সম্মানটা পাননি। এই বিস্মৃত নায়কদের মধ‍্যে বিনায়ক দামোদর সাভারকর হলেন সবথেকে বেশি বিতর্কিত এবং প্রভাবশালী ব‍্যক্তিত্ব যাঁকে ভুল বুঝেছিল মানুষ।” আসল কাহিনি কী সেটাই তুলে আনার চেষ্টা করা হবে বায়োপিকে।

Related Articles