‘নির্দেশ অগ্রাহ্য করেছে CBI, যা…’, কুন্তলের চিঠি মামলায় এজেন্সির ওপর খড়্গহস্ত বিচারক

   

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ ফের একবার শিরোনামে নিয়োগ দুর্নীতির অন্যতম অভিযুক্ত কুন্তল ঘোষের (Kuntal Ghosh) চিঠি মামলা। এবার নয়া মোড়! কুন্তলের দাবি ছিল, কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা তৃণমূলের সেকেন্ড ইন কমান্ড অভিষেকের বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Abhishek Banerjee) নাম বলানোর জন্য তার ওপর চাপ দিয়েছে। একজোটে ইডি এবং সিবিআই আধিকারিকদের বিরুদ্ধে নির্যাতনেরও অভিযোগ করেছিলেন তৃণমূলের বহিস্কৃত যুবনেতা কুন্তল ঘোষ। এবার সেই বিতর্কিত চিঠি-মামলায় সিবিআইকে ভর্ৎসনা (CBI)।

এদিন কুন্তল ঘোষের চিঠি মামলায় সিবিআইকে ভর্ৎসনা করলেন আলিপুরের বিশেষ সিবিআই আদালতের বিচারক। গত ২১ অগাস্ট ধৃত কুন্তলকে নিজের চেম্বারে ডেকে সমস্ত ঘটনা শোনার পর একজোটে সিবিআই এবং কলকাতা পুলিশকে রিপোর্ট দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিলেন বিশেষ আদালতের ভারপ্রাপ্ত বিচারক অর্পণ চট্টোপাধ্যায়। পাশাপাশি ম্যাজিস্ট্রেটের তত্ত্বাবধানে ওই রিপোর্ট দিতে হবে বলেও সাফ জানিয়েছিলেন তিনি।

তবে কলকাতা পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগের জয়েন্ট কমিশনারের অভিযোগ, আদালতের নির্দেশ সত্ত্বেও জিজ্ঞাসাবাদের ব্যাপারে সিবিআই কোনও উদ্যোগ নিচ্ছে না। এই মামলায় আজ বিচারপতি অর্পণ চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন, আদালতের নির্দেশ অগ্রাহ্য করেছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। যা কোনওভাবেই কাম্য নয়।

আরও পড়ুন: বজ্রপাতে ৬ জনের মৃত্যু! দক্ষিণবঙ্গের এই সব জেলার মানুষ সতর্ক থাকুন, একটু পরেই শুরু হবে তাণ্ডব

প্রসঙ্গত, কুন্তলের অভিযোগ ছিল, নিয়োগ দুর্নীতির তদন্তে যখন ইডি আধিকারিকরা তার বাড়িতে তল্লাশি করছিল তখন তার উপর ‘শারীরিক নির্যাতন’ করা হয়। মূলত ইডির দুই আধিকারিক এবং সিবিআইয়ের এক ডিআইজি পদমর্যাদার আধিকারিকের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছিলেন জেলবন্দি কুন্তল ঘোষ।

kuntal ghosh

আরও পড়ুন: রাজ্যে ফের নতুন ছুটির ঘোষণা! বন্ধ থাকবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, অফিস, খুশি সাধারণ মানুষ

পাশাপাশি তার মুখ থেকে জোর করে তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাম বলিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে বলেও অভিযোগ করেছিলেন কুন্তল। সেই অভিযোগের প্রেক্ষিতে খোদ অভিষেককে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ দেয় কলকাতা হাইকোর্ট। ওদিকে আদালতের সেই নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্টে যান অভিষেক। বিরাট জলঘোলা হয়।যা নিয়ে এখনও আইনি লড়াই চলছে।

Sharmi Dhar
Sharmi Dhar

শর্মি ধর, বাংলা হান্ট এর রাজনৈতিক কনটেন্ট রাইটার। উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাংবাদিকতায় স্নাতকোত্তর। বিগত ৩ বছর ধরে সাংবাদিকতা পেশার সঙ্গে যুক্ত ।

সম্পর্কিত খবর