ভারত

দেশের জন্য আজীবন নিয়োজিত করেছেন নিজেকে, শেষ বয়সে সন্তানদের কাছেই অবহেলিত প্রাক্তন সেনাকর্মী

বাংলা হান্ট ডেস্ক: সারাজীবন দেশের জন্য নিজেকে উজাড় করে দিয়েছেন। কিন্তু শেষ বয়সে এসে নিজের সন্তানদের কাছেই অবহেলিত প্রাক্তন সেনাকর্মী ৯৫ বছরের ইনস্পেক্টর সিং। মধ্যপ্রদেশের (Madhya Pradesh) সুরেনা জেলার পোরসায় বৃদ্ধা স্ত্রীকে নিয়ে বাস করেন তিনি। কিন্তু দুই ছেলে ও এক মেয়ের কেউই তাদের দেখেন না। সেই কারণে বিহিত চেয়ে প্রশাসনের দ্বারস্থ দম্পতি।

কর্মজীবনে প্রথমে ভারতীয় সেনা ও পরে সিআইএসএফে কাজ করেছেন ইন্সপেক্টর সিং। এই সময়ে আয়ও করেছেন প্রচুর। সম্পত্তির পরিমাণ কয়েক কোটি। তাঁর দুই ছেলেও ভারতীয় সেনায় কর্মরত। বড় ছেলে রাজেদ্র ভোপাল ও ছোট ছেলে দেবেন্দ্র গোয়ালিয়রে থাকেন। মেয়ে বিবাহিত। কিন্তু কেউই বৃদ্ধ মা-বাবার খোঁজ পর্যন্ত রাখেন না।

নিজের দুঃখের কথা বলতে গিয়ে গিয়ে দুচোখ জলে ভরে আসে প্রাক্তন সেনাকর্মীর। জানান, বহুদিন আগেই সন্তানরা একা ছেড়ে চলে গিয়েছেন। ১০ বছর আগে তাঁর স্ত্রীও পক্ষাঘাতে আক্রান্ত হন। শেষ বয়সে তাই নিজের হাতেই স্ত্রীর সেবা করে চলেছেন ইন্সপেক্টর সিং। তাঁর প্রতিবেশীরা জানান, সন্তানরা ছেড়ে চলে যাওয়া ও স্ত্রী অসুস্থ হয়ে যাওয়ার পর থেকেই ডিপ্রেশনে চলে গিয়েছেন বৃদ্ধ। প্রতিবেশীরাই এখন তাদের খাবার পৌঁছে দেন। কিন্তু যেদিন সাহায্য পান না, সেদিন খালিপেটেই থাকতে হয় বৃদ্ধ-বৃদ্ধাকে।

সম্প্রতি ওই দম্পতির দুর্দশার কথা জানতে পারেন স্থানীয় তহশিলদার নরেশ শর্মা। তিনি নিজে যান তাদের সঙ্গে দেখা করতে। সরকারি আধিকারিককে পেয়ে কান্নায় ভেঙে পরেন বৃদ্ধ। নিজের অবস্থার কথা জানান নরেশ শর্মাকে। এমনকি নিজের সন্তানদের জেলে পাঠানোর অনুরোধ পর্যন্ত করেন বৃদ্ধ। বৃদ্ধের অভিযোগ শুনে গোটা বিষয়টি খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছেন নরেশ শর্মা।

Back to top button