সরকারি টাকায় ‘ঢালাই রাস্তা হইল’ তবে বাস্তবে ইট পাতা! সন্দেশখালিতে ফাঁস শিবু, উত্তমদের দেদার দুর্নীতি

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ একের পর এক বিস্ফোরক সব দুর্নীতির অভিযোগ সন্দেশখালির (Sandeshkhali) শাহজাহান, শিবুদের বিরুদ্ধে। নারী নির্যাতন, জমি দখল তো ছিলই আর এবার উঠল কেন্দ্রীয় সরকারি প্রকল্পের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ। উত্তর ২৪ পরগনার স্থানীয় দাপুটে তৃণমূল নেতা শেখ শাহজাহান, শিবু হাজরা, উত্তম সর্দারদের কাণ্ড দেখে বর্তমানে চমকে উঠছেন সাধারণ মানুষজন।

   

সন্দেশখালির দ্বারিরজঙ্গালের ঘটনা। সেখানে নদীর পার থেকে একেবারে নতুন বাজার পর্যন্ত রাস্তা ঢালাই। তবে শুধুমাত্র খাতায় কলমে। বাস্তবে তার চিহ্নটুকুও নেই। মনরেগা বোর্ডে বড় করে লেখা ফলকে লেখা ‘ঢালাই রাস্তা নির্মিত হইল’। কিন্তু রাস্তা কই? ঢালাইয়ের কিছুই দেখা গেল না। যতদূর চোখ যাচ্ছে সামনে দেখা যাচ্ছে, রাস্তায় মাটি আটকে দেওয়া হয়েছে। কয়েকটা ইট বিছানো।

আবার সেখানে থেকেই নজর ঘুরিয়ে অন্য দিকে দেখলে দেখা যাবে রাস্তার কতটা বেহাল দশা। ভাঙা রাস্তায় প্রাণ হাতে নিয়ে কোনো রকমে যাতায়াত করচ্ছেন সন্দেশখালির মানুষজন। যেখানে বোর্ড টাঙিয়ে স্পষ্ট লেখা রাস্তার নির্মাণ হয় গিয়েছে, সেখানে আসল রাস্তা কই? রাস্তা যদিও নাই হয় তবে তার জন্য কেন্দ্রের বরাদ্দ টাকা কোথায় গেল? এলাকাবাসীর অভিযোগ, শিবু হাজরা-উত্তম সর্দাররাই সেই টাকা নিজেদের পকেটে ভরেছে। আর এদিকে ভাঙা রাস্তাতেই কার্যত প্রাণ হাতে নিত্যদিন কাটছে সাধারণ মানুষের।

কেবল সন্দেশখালির দ্বারিরজঙ্গালই নয়, তুষখালি, মণিপুর, আতাপুর, কোরাকাটি, কুমিরমারি, ছোট মোল্লাখালি, বড় মোল্লাখালি, আমতলি, ম‌উখালি, রাধানগর-সহ উত্তর ২৪ পরগনা ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা মিলিয়ে হাজার হাজার সাধারণ মানুষের চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে সেই রাস্তা। সকলের একই অভিযোগ রাস্তা নির্মাণ করা হয়েছে বলে বোর্ড টাঙানো হয় ঠিকই, তবে সেখানেই সমাপ্তি। কাজের কাজ কিছুই হয় না।

shahjahn shibu uttam

আরও পড়ুন: বাংলায় ফের বাড়বে DA, সরকারি কর্মীদের কার অ্যাকাউন্টে কত টাকা ঢুকবে? হিসেব দেখলে লাফাবেন

এলাকাবাসীর অভিযোগ, প্রকল্পের টাকা শিবু-উত্তম-শাহজাহানরা খেয়ে নিয়েছে। কেউ কেউ আবার বলছেন পার্টির লোকজন মিলে ওই টাকা নিয়ে নিয়েছে। তুষখালি মোড় থেকে মণিপুর মোড় পর্যন্ত ১০ কিলোমিটার রাস্তা সড়ক পথে সাধারণ মানুষের যোগাযোগের মাধ্যম। তবে বিগত ১০ বছরেরও বেশি সময় ধরে সেই রাস্তার কোনও কাজ হয়নি বলেই অভিযোগ উঠছে। আর এভাবেই প্রকাশ পাচ্ছে কিভাবে দিনের পর দিন ওই তৃণমূল নেতাদের অত্যাচারে সাধারণ মানুষের প্রায় ওষ্ঠাগত হয় উঠেছে।

Sharmi Dhar
Sharmi Dhar

শর্মি ধর, বাংলা হান্ট এর রাজনৈতিক কনটেন্ট রাইটার। উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাংবাদিকতায় স্নাতকোত্তর। বিগত ৩ বছর ধরে সাংবাদিকতা পেশার সঙ্গে যুক্ত ।

সম্পর্কিত খবর