মমতা নয়! অভিষেকের জন্যই বেড়েছে লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের ভাতা? ফাঁস তৃণমূলের অন্দরের খবর

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ চব্বিশের লোকসভা নির্বাচনের আগেই লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের (Lakshmir Bhandar) ভাতা বৃদ্ধি করেছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার। রাজ্য বাজেটের সময়ই একথা ঘোষণা করা হয়েছিল। এপ্রিল মাসে উপভোক্তাদের অ্যাকাউন্টে ঢুকেছে বর্ধিত টাকা। এবার থেকে তফশিলি জাতি ও উপজাতির মহিলারা প্রত্যেক মাসে পাবেন ১২০০ টাকা এবং বাকিরা সবাই পাবেন ১০০০ টাকা।

ভোটের মুখে তৃণমূল সরকারের এই সিদ্ধান্তকে অনেকেই ‘মাস্টারস্ট্রোক’ তকমা দিয়েছেন। মহিলা ভোটব্যাঙ্কের ওপর এর প্রভাব পড়তে পারে বলেও মত ওয়াকিবহাল মহলের। লক্ষ্মীর ভাণ্ডার নিয়ে চলতে থাকা চর্চা-আলোচনার মাঝেই সামনে এল বড় খবর। জানা গেল, এই প্রকল্পের ভাতা বৃদ্ধির পিছনে তৃণমূল ‘সেনাপতি’ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়েরও (Abhishek Banerjee) গুরুত্বপূর্ণ অবদান রয়েছে।

সম্প্রতি তৃণমূলের (TMC) মহিলা ব্রিগেডের দুই নেত্রী শশী পাঁজা (Shashi Panja) এবং চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য (Chandrima Bhattacharya) লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের ভাতা বৃদ্ধির জন্য অভিষেককে ধন্যবাদ জানান। তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদকের নবজোয়ার অভিযানের কথা স্মরণ করিয়ে তাঁরা জানান, সেই সময় প্রত্যন্ত গ্রামের বহু মহিলা অভিষেকের কাছে ভাতা বৃদ্ধির আর্জি জানিয়েছিলেন। বিষয়টি দেখবেন বলে আশ্বস্ত করেন ডায়মন্ড হারবারের সাংসদ। এক বছর ঘুরতে না ঘুরতেই লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের ভাতা বৃদ্ধির কথা ঘোষণা করে সরকার।

আরও পড়ুনঃ ‘১% অভিযোগ সত্যি হলেও…’! সন্দেশখালি মামলায় বিরাট মন্তব্য হাই কোর্টের প্রধান বিচারপতির

চন্দ্রিমা বলেন, ‘অভিষেক সেই সময় বলেছিলেন, ৬-৭ মাসের মধ্যে বিষয়টি যাতে নিরসন হয় সেটি দেখবেন। মহিলারা মুখ্যমন্ত্রীর কানে তাঁদের আর্জি পৌঁছে দেওয়ার অনুরোধ জানিয়েছিলেন। ৫০০ থেকে ১০০০ এবং ১০০০ থেকে ১২০০ টাকা তারই ফল’।

উল্লেখ্য, বছর খানেক আগে নবজোয়ার কর্মসূচিতে শুরু করেছিলেন তৃণমূলের সেকেন্ড ইন কমান্ড। পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে ২৫ এপ্রিল থেকে শুরু হয়েছিল এই কর্মসূচি। টাকা মাস দুয়েক বাড়ি ছেড়ে গ্রামে গঞ্জে ঘুরে বেরিয়েছিলেন অভিষেক। সেই সময়ই তৃণমূল ‘সেনাপতি’র কাছে মহিলারা লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের ভাতা বৃদ্ধির আর্জি জানান। কর্মসূচির বর্ষপূর্তির আগেই তা করে দিয়েছে রাজ্য সরকার।

tmc leader abhishek banerjee

বুধবার তৃণমূলের তরফ থেকে সাংবাদিক বৈঠকে বসে শশী পাঁজা এবং চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য জানান, ইতিমধ্যেই নানান প্রান্ত থেকে শুভেচ্ছা বার্তা আসতে শুরু করেছেন। রাজ্যের নানান মহিলারা সরকারের এই সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়েছেন। লক্ষ্মীর ভাণ্ডার বৃদ্ধির পাশাপাশি সম্প্রতি রাজ্য সরকারের তরফ থেকে ১০০ দিনের কাজের বকেয়া টাকা মেটানোর সিদ্ধান্তও নেওয়া হয়েছে। নির্বাচনের প্রাক্কালে রাজ্য সরকারের এই সিদ্ধান্তগুলির প্রভাব ভোটবাক্সে পড়তে পারে অনুমান বিশেষজ্ঞদের।

Sneha Paul
Sneha Paul

স্নেহা পাল, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তরের পর সাংবাদিকতা শুরু। বিগত প্রায় ২ বছর ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর