টাইমলাইনভারত

সত্যাগ্রহ ; করোনাকালে পরীক্ষার সিদ্ধান্তে মোদি সরকারের বিরুদ্ধে অনশনে বসল ৪২০০ পড়ুয়া

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ অতিমারিতে থেমে থাকতে পারে না শিক্ষা ব্যাবস্থা। তাই NEET, JEE এর মতো পরীক্ষায় স্থগিতাদেশ দেওয়ার অনুরোধ খারিজ করেছে আদালত। এরপরই তড়িঘড়ি পরীক্ষা করানোর সিদ্ধান্ত নেয় শিক্ষা মন্ত্রক। যা নিয়ে এবার সরব হল পড়ুয়ারাই৷ ভারতের বিভিন্ন প্রান্তের ৪ হাজার ২০০ পড়ুয়া একদিন অনশন করে সত্যাগ্রহের পথে বিরোধিতা করল এই সিদ্ধান্তের। টুইটারে ঝড় উঠল #SATYAGRAHagainstExamInCovid.

পড়ুয়াদের বক্তব্য কোভিডকে থামানো যাবে না কোনোভাবেই, কিন্তু আমরা পরীক্ষা পিছোতেই পারি। করোনা আবহে এমনিতেই বন্ধ বাস ট্রেন, এই পরিস্থিতিতে সঠিক সময়ে কিভাবে পরীক্ষাকেন্দ্রে পৌঁছাতে পারবে তারা? একই সাথে পরীক্ষার্থী ও তাদের পরিবারের রয়েছে সংক্রমণের ঝুঁকিও।

মোদি সরকারের এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে এবার মুখ খুলেছেন বিজেপির সুব্রাহ্মণম স্বামী। এই বিজেপি নেতার বক্তব্য করোনা পরিস্থিতিতে যদি JEE ও NEET পরীক্ষা নেওয়া হয় তাহলে তা ১৯৭৬ সালের ‘নাসবন্দী’র সিদ্ধান্তের মতই ঐতিহাসিক ভুল হবে।

https://twitter.com/Deepans67143834/status/1297726677368205312?s=19

এর আগে মনীশ সিসোদিয়া, রাহুল গান্ধী, প্রিয়াঙ্কা গান্ধী, অধীর রঞ্জন চৌধুরীর মত একাধিক রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব মোদি সরকারের কাছে অনুরোধ করেছিলেন পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে এই পরীক্ষাগুলিকে পিছিয়ে দেওয়া হোক।

মোদি সরকারের এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে টুইট করে পরীক্ষা পিছানোর আবেদন করেছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জিও। তিনি বলেন কেন্দ্রের উচিত JEE ও NEET এই মুহূর্তে পিছিয়ে দেওয়ার। পড়ুয়াদের সুরক্ষার বিষয়টি অগ্রাধিকার দেওয়া উচিত মোদি সরকারকে।

 

Related Articles

Back to top button