‘আমি যাই করছি রাজনীতি জুড়ে দেওয়া হচ্ছে কেন!’, সবার সামনে ফুঁসে উঠলেন সৌরভ

   

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ মঙ্গলবারই ত্রিপুরার (Tripura) পর্যটন বিভাগের ব্র্যান্ডদূত হিসেবে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের (Saurav Ganguly) নাম ঘোষণা করা হয়েছে। একেবারে কলকাতায় এসে সৌরভ মহারাজের সঙ্গে এই বিষয়ে আলোচনা করেছেন ত্রিপুরার পর্যটন মন্ত্রী সুশান্ত চৌধুরী। সে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মানিক সাহাও পরে এই কথা ঘোষণা করে জানান। তবে এই নিয়েও আবার কেউ কেউ জুড়ে দিচ্ছে রাজনৈতিক রঙ (Political Colour)। যা নিয়ে বেজায় বিরক্ত হয়ে এবার মুখ খুললেন ভারতীয় ক্রিকেট দলের প্রাক্তন অধিনায়ক।

ব্র্যান্ডদূত হিসেবে চুক্তি করাতেও রাজনীতির প্রসঙ্গ টানার বিষয়টা একেবারেই ‘পছন্দ’ করছেন না সৌরভ। বুধবার বেহালার বাড়ির সামনে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে এই বিষয়ে তিনি বলেন, ‘‘আমাকে ত্রিপুরার পর্যটন দফতরের প্রচার করার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। কিন্তু আমার প্রশ্ন, সব কিছুতে কেন রাজনীতি টেনে আনা হয়?”

তার কথায়, “অমিতাভ বচ্চনের গুজরাতের সঙ্গে, শাহরুখের কলকাতার সঙ্গে, সচিনের কেরলের সঙ্গে, ঋষভ পন্থের উত্তরাখণ্ডের সঙ্গে, ধোনির ঝাড়খণ্ডের সঙ্গে চুক্তি নিয়ে তো এই ধরনের প্রশ্ন তোলা হয় না। আমার ক্ষেত্রেই কেন? কেউ কারও সঙ্গে কথা বলতে বা দেখা করতে পারবে না? সবই কি রাজনৈতিক?’’

সৌরভের প্রশ্ন, ‘‘আমি কারও সঙ্গে দেখা করলে, কথা বললে কেন সব কিছুতে রাজনীতি জুড়ে দেওয়া হয়? আমি খুব সাধারণ, সোজাসাপ্টা জীবনযাপন করি। আমার সঙ্গে জড়িত বিষয়গুলিকেও সে ভাবেই দেখা হোক। গতকাল আমার কাছে প্রস্তাব এসেছে মাত্র। কিছু করার আগেই সব রাজনীতির সঙ্গে জুড়ে যাচ্ছে। কোনও কারণ নেই এ সবের।’’

এরপর ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে সম্পর্কের কথা বলতে গিয়ে সৌরভ বলেন, ‘‘মানিক যখন ত্রিপুরার ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট ছিলেন, আমি ছিলাম বোর্ড প্রেসিডেন্ট। তখন থেকেই ওঁর সঙ্গে আলাপ।’’

sourav

ত্রিপুরার ক্রিকেট আগের থেকে অনেক উন্নতি করেছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি। সৌরভের কথায়, ‘‘বাংলায় আমি যে ভালবাসা পেয়েছি, পৃথিবীর আর কোথাও তা পাইনি। এখানে আমি ব্রাত্য নই। তাই দয়া করে এই বিষয়টিতে রাজনীতির রং লাগাবেন না।’’

Sharmi Dhar
Sharmi Dhar

শর্মি ধর, বাংলা হান্ট এর রাজনৈতিক কনটেন্ট রাইটার। উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাংবাদিকতায় স্নাতকোত্তর। বিগত ৩ বছর ধরে সাংবাদিকতা পেশার সঙ্গে যুক্ত ।

সম্পর্কিত খবর