রাজ্যে ফের শ্যুটআউট, বিয়েবাড়ি থেকে ফেরার পথে গুলিতে ঝাঁঝরা তৃণমূল পঞ্চায়েত সদস্যের জামাই

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ রাতের অন্ধকারে ফের শ্যুটআউট (Shoot out)। এবার উত্তর দিনাজপুরে (North Dinajput) চলল গুলি। সুত্রের খবর, শ্যালিকার বিয়ের অনুষ্ঠান থেকে রাতে একা বাইকে করে বাড়িতে ফেরার পথে দুষ্কৃতীদের গুলিতে খুন হন তৃণমূল (Trinamool Congress) পঞ্চায়েত সদস্যের জামাই। রাজনৈতিক কারণেই হামলা, অভিযোগ তৃণমূলের। ঘটনাটি ঘটেছে রায়গঞ্জ পুলিস জেলার ইটাহারের মহা ফতেপুর বাজার এলাকায়।

   

জানা গিয়েছে, মৃত যুবকের নাম তন্ময় সরকার। দক্ষিণ দিনাজপুরের কুশমন্ডির দেউখণ্ডার বাসিন্দা তন্ময় পেশায় কৃষক। তাঁর শ্বশুর দেবকুমার সরকার ইটাহারের পতিরাজপুর পঞ্চায়েতের তৃণমূলের পঞ্চায়েত সদস্য। শ্বশুরের হয়ে সাহাভিটা এলাকায় পঞ্চায়েত নির্বাচনে প্রচার করেছিলেন তন্ময়।

সুত্রের খবর, গতকাল পতিরাজপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের সাহাভিটায় এক বিয়ের অনুষ্ঠানে গিয়েছিল তন্ময়। রাতে সেখান থেকে বাইক করে ফেরার পথে শ্বশুরবাড়ির এক কিলোমিটার দূরে তার উপরে হামলা চালায় দুষ্কৃতীরা। প্রথমে পিছন দিক থেকে সশস্ত্র দুষ্কৃতীরা পিঠে গুলি চালায় তন্ময়ের। তারপর তাঁকে অস্ত্র দিয়ে আঘাত করা হয় বলে অভিযোগ।

tmc flag

রক্তাক্ত অবস্থায় মাটিতে লুটিয়ে পড়েন তন্ময়। আশেপাশের লোকেরা চিৎকার শুনে ছুটে আসে। তড়িঘড়ি তাঁকে উদ্ধার করে ভর্তি করানো হয় রায়গঞ্জ মেডিক্য়াল কলেজে। গভীর রাতে অস্ত্রোপচারও হয় বলে জানা যায়। তবে বুধবার ভোরে সব শেষ। এদিন ভোর সাড়ে চারটা নাগাদ মৃত্যু হয় যুবকের।

মৃতের শ্বশুর তৃণমূলের পঞ্চায়েত সদস্য দেবকুমার সরকারের অভিযোগ, পঞ্চায়েত নির্বাচনে তাকে সমর্থন জানিয়ে ভোট প্রচার করেছিল বলেই তার জামাইকে খুন করেছে বিজেপির গুন্ডারা। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

সম্পর্কিত খবর