‘সরাসরি মুখ্যমন্ত্রী’ চালু করতে টেন্ডার দুর্নীতি! অভিযোগ জানাতে রাজ্যপালের দ্বারস্থ শুভেন্দু

বাংলাহান্ট ডেস্ক : পঞ্চায়েত ভোট শেষ হয়ে গেলও তা নিয়ে কিন্তু এখনো রাজ্য সরকার ও বিরোধীদলের মধ্যে নানান ধরনের তর্ক বিতর্ক লেগেই আছে। আর এই তর্ক বিতর্কের মধ্যেই শুক্রবার সরাসরি মুখ্যমন্ত্রী বিরুদ্ধে বিধানসভায় সাংবাদিক বৈঠকে ১৫২ কোটি টাকার টেন্ডার দুর্নীতির অভিযোগ আনেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী (Suvendu Adhikari)।

শুধু তাই নয় রাজ্যপাল সিভি আনন্দ বোসের কাছে লিখিত অভিযোগ জানান বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী রাজ্যপালকে (Governor) দেওয়া চিঠিতে তিনি লিখেছেন, তথ্যপ্রযুক্তি দফতরের অধীন সংস্থা ওয়েবেল গত বছর ৫ ই আগস্ট একটি টেন্ডার ডেকেছিল। টেন্ডারের নীতি মেনে বিভিন্ন সংস্থা আবেদন করলেও পরে টেন্ডারটি বাতিল করে দেয় ওয়েবেল।

কিন্তু এ বছর ৩ জানুয়ারি ওই একই কাজের জন্য টেন্ডার ডাকা হয়েছে কর্মী বিনিয়োগ ও প্রশাসনিক দফতরের তরফে। এক্ষেত্রে পুরনো আবেদনকারীদের সঙ্গে নতুন দুই সংস্থা আবেদন করলে , নতুন এক সংস্থা এই টেন্ডারটি পেয়ে যায় । প্রথমে টেন্ডারে ১২০ কোটি টাকা প্রকল্প মূল্য দেখানো হলেও,পরে তা ৩২ কোটি টাকা বেড়ে হয়েছে ১৫২ কোটি টাকা। আর ছ’মাসের মধ্যে এই টাকা বেড়ে যাওয়া নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন বিরোধী দলনেতা নন্দীগ্রামের বিধায়ক।

তাঁর দাবি, ওয়েবেলের দেওয়া যে টেন্ডারটি বাতিল করা হয়েছিল, সরকারি নিয়মে তা আবারও খোলা উচিত ছিল রাজ্য সরকারের। কিন্তু সম্পূর্ণ বেনিয়মে নতুন এক সংস্থা ইন্ডিয়ান পলিটিক্যাল অ্যাকশন কমিটি (আইপ্যাক)-র ঘনিষ্ঠ একটি সংস্থাকে এই বরাত দেওয়া হয়েছে। কারণ এই আইপ্যাক যারা ২০২১ সালে তৃণমূলের পরামর্শদাতা হিসেবে ভোটে জেতাতে কাজ করেছিলেন।

তিনি আরো জানিয়েছেন, ২০১৯ সালে লোকসভা নির্বাচনে ভরাডুবির পর ‘দিদিকে বলো’ যে কর্মসূচিটি তৃণমূল চালু করেছিল, সেই নম্বরটিকে পুনরায় ‘সরাসরি মুখ্যমন্ত্রী’ কর্মসূচির জন্য ব্যবহার করা হচ্ছে। এই কর্মসূচি শুরু করতেই গত বছর ওয়েবেলের টেন্ডারটি বাতিল করেছিল রাজ্য। এবার আইপ্যাককে এই কাজের বরাত পাইয়ে দিতেই নতুন দফতর থেকে নতুন ভাবে টেন্ডার করা হয়েছে , কারণ বড় অঙ্কের কাটমানি পাবে শাসকদল, এমনটাই অভিযোগ বিরোধী দলনেতার।

1690548754 bose 2023 07 28t210159.707

শুভেন্দু অধিকারী আরো বলেন, ‘‘আমি আশা করব এই দুর্নীতির বিষয়টি খতিয়ে দেখে রাজ্যপাল মুখ্যসচিবকে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)-এর মতো কোন স্বশাসিত সংস্থাকে দিয়ে বিষয়টির তদন্ত করাতে বলবেন।’’ এমনকি এই দুর্নীতির বিরুদ্ধে যদি তদন্ত না শুরু হয় সে ক্ষেত্রে তিনি আদালতের দ্বারস্থ হবেন বলেও জানিয়েছেন। তবে, শুভেন্দু অধিকারীর অভিযোগে পাল্টা দিয়েছে তৃণমূলও।