লজ্জা! ‘যন্ত্রণার ১০০০ দিন’, প্রতিবাদে মস্তক মুণ্ডন করালেন মহিলা SLST চাকরিপ্রার্থী

বাংলা হান্ট ডেস্ক : শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতির (Recruitment Scam) জল গড়িয়েছে আদালত পর্যন্ত। কখনও সুপ্রিম কোর্ট (Supreme Court) তো কখনও আবার হাইকোর্ট। রাজ্যের নিয়োগ ব্যবস্থার এমন বেআব্রু অবস্থা দেখে অবাক হয়েছেন বিচারপতিরাও। এদিকে এক বেঞ্চ থেকে আরেক বেঞ্চে মামলা উঠতে দেখে কার্যত দিশেহারা চাকরিপ্রার্থীরা। মাঝে মাঝে ন্যায় বিচারের আশ্বাস মিললেও এখনও মেলেনি চাকরি। আর এবার তারই প্রতিবাদে মস্তক মুণ্ডন (Shave Hair) করলেন এক আন্দোলনকারী।

   

ধর্নার ১০০০ দিনের মাথায় নিজের মাথার চুল বলিদান দিয়ে প্রতিবাদ দেখালেন SLST মহিলা চাকরিপ্রার্থী (SLST Women Protestor)। লজ্জাজনক এই ঘটনায় ‘থ’ হয়ে গেছে গোটা রাজ্য। ধিক্কার জানানো ছাড়া আর কোনও ভাষা নেই কারোর মুখে। আন্দোলনকারীদের দাবি, অবিলম্বে ধর্নামঞ্চে হাজির হতে হবে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে (Mamata Banerjee)।

এদিকে ঐ মহিলা চাকরিপ্রার্থী জানিয়েছেন, ‘যন্ত্রণার হাজার দিনে আর কোনও পথ খুঁজে না পেয়ে মাথা নেড়া করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আমরা আশ্বাস ছাড়া আর কিছুই পাইনি। সংসার ছেড়ে ধরনামঞ্চে বসে আছি। পাচ্ছি না কিছুই।’ প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ২০১৬ সালে নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি জারি হয়েছিল। সেবার পরীক্ষায় পাশ করা সত্ত্বেও অনেকের বাড়িতেই পৌঁছায়নি অ্যাপয়েন্ট লেটার। তদন্ত করতে গিয়ে বেরিয়ে এসেছে দুর্নীতির কালো পাহাড়।

আরও পড়ুন : ভোট এলেই খোঁজ পড়ে ভালো বোমা কারিগরদের! দৈনিক আয় ৮ হাজার টাকা, প্রকাশ্যে ভয়ানক তথ্য

তারপর থেকেই দুর্নীতির অভিযোগ তুলে রাস্তায় নামেন চাকরিপ্রার্থীরা। ন্যায় বিচারের দাবিতে সময়ে সময়ে একাধিকবার রাস্তায় নেমেছেন তারা। করেছেন অনশন, করেছেন আন্দোলন। ঘরবাড়ি ছেড়ে আজ এক হাজার দিন ধরে রাস্তায় রয়েছেন চাকরিপ্রার্থীরা। এমনকি মুখ্যমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করতে রক্ত দিয়ে চিঠিও লেখেন। আর এবার প্রতিবাদ করতে করে ফেললেন মস্তক মুণ্ডন। এবার কি হবে সুরাহা?

recruitment scam (1)

যদিও রাজ্য সরকারের দাবি, এই বিষয়টি এখন আদালতে বিচারাধীন। আর তাই এখন কাউকেই চাকরি দেওয়া সম্ভব নয়। যদিও বিরোধীদের মত, এটা কোনও কারণ নয় বরং অজুহাত। একজন যোগ্য প্রার্থীর চাকরি পাওয়ার পথে আইন কোনও বাধা হতে পারে বলে মনে করেননা সিপিএম নেতা সুজন চক্রবর্তী।

সম্পর্কিত খবর