হেলায় ছাড়েন হাজার কোটির কোম্পানি, নিজের ব্যবসায় তৈরি করেন নজির, মল্লিকার সম্পদ টেক্কা দেবে আম্বানিকেও

বাংলা হান্ট ডেস্ক: জীবনে সফল হতে প্রত্যেকেই চান। সেজন্য করতে হয় কঠোর পরিশ্রম। পাশাপাশি, সফলতার শীর্ষে থাকা মানুষদের উত্তরণের কাহিনিও (Success Story) উদ্বুদ্ধ করে বাকিদেরকে। এমতাবস্থায়, বর্তমান প্রতিবেদনে আজ আমরা আপনাদের কাছে এমন একজন মহিলার প্রসঙ্গ উপস্থাপিত করব যিনি ১০,০০০ কোটি টাকারও বেশি আয়যুক্ত বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম ট্র্যাক্টর প্রস্তুতকারী কোম্পানির মালিক হিসেবে বিবেচিত হচ্ছেন।

   

মূলত, আজ আমরা আপনাদের কাছে জানাবো ভারতীয় ধনকুবের ভেনু শ্রীনিবাসনের স্ত্রী মল্লিকা শ্রীনিবাসনের কাহিনি। তিনি কঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমে তাঁর কোম্পানিকে নিয়ে গেছেন নতুন উচ্চতায়। শুধু তাই নয়, তিনি সারা বিশ্বকে এটাও দেখিয়েছেন যে, মহিলারাও পুরুষের সাথে তাল মিলিয়ে সাফল্যের অনন্য নজির গড়তে পারেন। সাম্প্রতিক রিপোর্ট অনুসারে, মল্লিকা শ্রীনিবাসন সুইগির বোর্ডের স্বাধীন পরিচালকের পদ থেকে পদত্যাগ করেছেন।

Success story of Mallika Srinivasan

দুর্দান্ত ছিলেন পড়াশোনায়: জানিয়ে রাখি যে, ১৯৫৯ সালে মল্লিকা শ্রীনিবাসন জন্মগ্রহণ করেছিলেন। স্কুলে পড়াকালীন তিনি সবসময় পড়াশোনায় শীর্ষে ছিলেন। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পেনসিলভানিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়ার্টন স্কুল থেকে MBA করার আগে তিনি মাদ্রাজ বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হন। মল্লিকা ১৯৮৬ সালে পারিবারিক ব্যবসায় যোগ দেন। তাঁর পারিবারিক ব্যবসাটি শুরু করেছিলেন প্রয়াত শিল্পপতি এস অনন্তরামকৃষ্ণান। চেন্নাইকে “ডেট্রয়েট অফ ইন্ডিয়া”-তে রূপান্তরিত করার ক্ষেত্রে তাঁর গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে।

আরও পড়ুন: অবসরপ্রাপ্ত কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মীদের জন্য বড় পদক্ষেপ! এবার চিকিৎসায় বাড়ল সুবিধা, হয়ে গেল ঘোষণা

পদ্মশ্রী সম্মানে হয়েছেন ভূষিত: ট্র্যাক্টর ব্র্যান্ড TAFE-এর সাফল্যের পর, ৬৪ বছর বয়সী মল্লিকা শ্রীনিবাসন “ট্র্যাক্টর কুইন” নামে পরিচিতি পেয়েছেন। পাশাপাশি, তিনি পদ্মশ্রী সম্মানেও ভূষিত হয়েছেন। দেশের প্রবীণ মহিলা শিল্পপতিদের মধ্যে তিনি অন্যতম। ১০,০০০ কোটি টাকারও বেশি টার্নওভার তাঁর সংস্থাটিকে বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম ট্র্যাক্টর প্রস্তুতকারক হতে সাহায্য করেছে।

আরও পড়ুন: বড় ঘোষণা Maruti Suzuki-র! গাড়ির পরে এবার তৈরি করবে ইলেকট্রিক হেলিকপ্টার, সস্তায় হবে সফর

এই প্রসঙ্গে জানিয়ে রাখি যে, একজন বিখ্যাত শিল্পপতি হওয়া ছাড়াও, মল্লিকা শ্রীনিবাসন AGCO, টাটা স্টিল এবং টাটা গ্লোবাল বেভারেজের বোর্ডের পাশাপাশি চেন্নাইয়ের ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজি (IIT) এবং হায়দ্রাবাদের ইন্ডিয়ান স্কুল অফ বিজনেস (ISB)-এর কার্যকরী বোর্ডে রয়েছেন। এছাড়াও, মল্লিকা সম্প্রতি সুইগির বোর্ডের স্বাধীন পরিচালকের পদ থেকে পদত্যাগ করেছেন। উল্লেখ্য যে, সুইগির ভ্যালু হল ৬৮,৯১৮ কোটি টাকা। এদিকে, তাঁর মোট সম্পদের পরিমাণ হল ২.৮৪ বিলিয়ন ডলার (২৩,৬২৫.৯৬ কোটি টাকা)। পাশাপাশি, তিনি এখন ধনী ভারতীয়দের তালিকায় ৮৩ নম্বর স্থানে রয়েছেন।