করতেন মাত্র ২০০০ টাকার চাকরি! আজ খাড়া করেছেন ৫০ হাজার কোটির সাম্রাজ্য, কে এই ব্যক্তি?

বাংলা হান্ট ডেস্ক: প্রত্যেক সফল মানুষেরই সফলতার পেছনে রয়েছে এক কঠিন লড়াই। পাশাপাশি, তাঁদের সফলতার কাহিনি (Success Story) অনুপ্রাণিত করে সকলকেই। দেশের লক্ষ লক্ষ যুবক-যুবতী তাঁদেরকে দেখেই জীবনে সফল হওয়ার যাত্রা শুরু করেন। বর্তমান প্রতিবেদনেও আমরা ঠিক সেইরকমই একজনের প্রসঙ্গে উপস্থাপিত করব। যিনি জীবনের চলার পথে দু’টি গুরুত্বপূর্ণ কাজকে অত্যন্ত সহজ করে তুলেছিলেন। পাশাপাশি, তাঁর হাত ধরেই চাকরি পাওয়ার পাশাপাশি, জীবনসঙ্গীও খুঁজে পেয়েছেন অনেকে। মূলত, আজ আমরা Info Edge, Naukri.com এবং Jeevansathi.com-এর প্রতিষ্ঠাতা সঞ্জীব বিকচান্দানির প্রসঙ্গ উপস্থাপিত করব।

প্রথম থেকেই কিছু করতে চেয়েছিলেন তিনি: ইতিমধ্যেই ২০২০ সালে পদ্মশ্রী পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন সঞ্জীব। এদিকে, তিনি যখন পড়াশুনো করছিলেন তখনই তাঁর মনে হয়েছিল যে তিনি বড় কিছু করবেন। পাশাপাশি, তিনি চাকরির বদলে নতুন কিছু শুরু করতে চেয়েছিলেন। যদিও, ঠিক কি করবেন সে বিষয়ে স্পষ্ট ধারণা ছিল তাঁর। এমতাবস্থায়, এক বছর চাকরি করার পর একদিন সঞ্জীব চাকরি ছেড়ে দেন। এরপরেই ১৯৯০ সালে Info Edge প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল।

   

দু’টি কোম্পানির ভিত্তি স্থাপন করেন: সঞ্জীব বিকচান্দানি তাঁর বাড়ির চাকরের ঘর থেকে কাজ শুরু করেন। যার জন্য তিনি তাঁর বাবাকে ভাড়াও দিতেন। ১৯৯০ সালে, তিনি তাঁর এক বন্ধুর সাথে দু’টি কোম্পানি প্রতিষ্ঠা করেন। একটির নাম ছিল Indmark এবং অন্যটির নাম Info Edge। তিন বছর একসঙ্গে কাজ করার পর, তাঁরা ১৯৯৩ সালে আলাদা হয়ে যান। যদিও, সেই কাজ চালিয়ে যান সঞ্জীব। যেহেতু প্রাথমিক দিনগুলিতে উপার্জন যথেষ্ট ছিল না তাই সঞ্জীব একাধিক প্রতিষ্ঠানে গিয়ে কোচিং ক্লাস করতেন। এই ক্লাসগুলি থেকে, তিনি মাসে প্রায় ২,০০০ টাকা উপার্জন করতে সক্ষম হন।

এভাবেই শুরু হল naukari.com এর পথচলা: ১৯৯৬ সালের অক্টোবর মাসে দিল্লিতে চলছিল আইটি এশিয়ার একটি প্রদর্শনী। সেখানে পৌঁছে যান সঞ্জীব এবং তাঁর চোখ পড়ে একটি স্টল। যেখানে লেখা ছিল WWW। সঞ্জীব ওই স্টলে গিয়ে জানতে পারেন যে, সেখানে বিএসএনএলের ই-মেইল অ্যাকাউন্ট বিক্রি হচ্ছে। তখনই সঞ্জীব ই-মেইল বিক্রেতাকে তাঁর জন্য একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে বলেন। যদিও, সেই বিক্রেতা জানান যে, যেহেতু সমস্ত সার্ভার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে রয়েছে, তাই তাঁর জন্য ওয়েবসাইট তৈরি করা যাবেনা। কারণ এই সব ওয়েবসাইট সেখান থেকে হোস্ট করা হয়।

আরও পড়ুন: ফেল করেছিলেন ষষ্ঠ শ্রেণিতে! হার না মেনে UPSC পাশ করে IAS অফিসার হয়ে নজির গড়লেন ইনি

এদিকে, সঞ্জীবের দাদা আমেরিকার একটি বিজনেস স্কুলের অধ্যাপক ছিলেন। সঞ্জীব তৎক্ষণাৎ তাঁকে ফোন করে জানান যে তিনি একটি ওয়েবসাইট শুরু করতে চান, যার জন্য একটি সার্ভার প্রয়োজন। তারপরেই তিনি তাঁর দাদার কাছ থেকে টাকা ধার নিয়ে ওয়েবসাইট শুরু করেন এবং তাঁর কোম্পানির ৫ শতাংশ শেয়ার দাদার নামে স্থানান্তর করেন।

আরও পড়ুন: IAS অফিসার হতে চান? এই চারটি ধাপ সফলভাবে পেরোলেই পূরণ হবে স্বপ্ন

Naukari.com এর সূচনা: নব্বইয়ের এর দশকের মাঝামাঝি সময়ে, আর্থিক মন্দার একটি বাজার শুরু হয়েছিল। এমনকি, বহুজন তাঁদের চাকরিও হারাচ্ছিলেন। এমতাবস্থায়, সঞ্জীব এবং তাঁর দল মনে করেছিলেন যে, এটি ওয়েবসাইটটি চালু করার জন্য সঠিক সময়। তারপরই বিভিন্ন সংবাদপত্র ও ম্যাগাজিন থেকে একটি ডেটাবেস তৈরি করা হয়। এতে প্রায় এক হাজার CV, চাকরি এবং নিয়োগ পরামর্শদাতার ডেটা ছিল। আর এই তথ্য দিয়ে Naukri.com চালু হয়।

Success story of Sanjeev Bikhchandani

প্রথম বছরে, Naukri.com মাত্র ২.৫ লক্ষ টাকার ব্যবসা করেছিল। পরের বছর ১৮ লক্ষ টাকার ব্যবসা হয়। তারপর তিনি ২০০০ সালে ICICI ভেঞ্চারস থেকে ৭.৩ কোটি টাকার একটি তহবিল নিয়েছিলেন এবং বিনিময়ে ১৫ শতাংশ অংশীদারিত্ব দিয়েছিলেন। আজ তিনি প্রায় ৫০,০০০ কোটি টাকার কোম্পানির মালিক। শুধু তাই নয়, ২০০৬ সালে, ভারতের প্রথম ডট কম কোম্পানি হিসেবে বোম্বে ন্যাশনাল স্টক এক্সচেঞ্জে তালিকাভুক্ত হয় সঞ্জীবের কোম্পানি।

Sayak Panda
Sayak Panda

সায়ক পন্ডা, মেদিনীপুর কলেজ (অটোনমাস) থেকে মাস কমিউনিকেশন এবং সাংবাদিকতার পোস্ট গ্র্যাজুয়েট কোর্স করার পর শুরু নিয়মিত লেখালেখি। ২ বছরেরও বেশি সময় ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর