টাইমলাইনভারত

করোনা আবহে ধর্মীয় সমাবাসে বাধা! পুলিশের উপর আক্রমণ শিখদের

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ দেশজুড়ে করোনা সংক্রমণ (Corona Outbreak) একলাফে অনেকটা বেড়ে গেছে। তার মধ্যে মহারাস্ট্রের (Maharastra) দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় অর্ধেক। সেই মত রাজ্যের একাধিক এলাকায় লকডাউন (Lockdown) জারি করার পাশাপাশি সবধরনের সমাবেশের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে মহারাষ্ট্র সরকার। তবে সোমবার সেই নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ধর্মীয় সমাবেশে (Religious Gatherings) যোগ দিতে বাঁধা দেওয়ায় পুলিশের উপর চড়াও হয় কয়েকশো শিখ সম্প্রদায়ের মানুষ। ঘটনায় গুরুতর আহত হয়েছেন ৪ পুলিশ কর্মী।

ঘটনাটি হয়েছে মহারাষ্ট্রের নান্দেদ গুরুদ্বারে (Nanded Gurdwara)। সেখানে সোমবার হোলা মোহাল্লা উৎসব পালনের জন্য পুলিশের অনুমতি মেলেনি শিখদের। তাই নিসেধাজ্ঞা অমান্য করে সেই উৎসব পালন করতে জড়ো হয়েছিলেন ৩০০ এর বেশি শিখ ধর্মালম্বীরা। কিন্তু পুলিশ বাধা দেওয়ায় রণক্ষেত্র পরিস্থিতি তৈরি হয়। জানা গিয়েছে বিকেল চারটে নাগাদ শারীরিক দূরত্ব লঙ্ঘনের অভিযোগে জমায়েতকে সরানোর চেষ্টা করে পুলিশ। তখনই উন্মত্ত জনতা পুলিশের উপর হামলা চালায়।

পুলিশ সুত্রে খবর, সোমবার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনের বাইরে চলে যায়। চার পুলিশকর্মী আহত হন। খুনের চেষ্টা, দাঙ্গা ও আহত করার অভিযোগে এফআইআর দায়ের করে ইতিমধ্যেই ১৭ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়। আরও জানা গিয়েছে যে, ধর্মীয় উৎসব পালন করতে এসে গেট ভেঙে গুরুদ্বারে ঢুকতে শুরু করে শিখ সম্প্রদায়ের মানুষরা। তাখনই পুলিশ কর্মীদের উপর আক্রমণের পাশাপাশি ছয়টি গাড়িও ভাঙে তাঁরা।

প্রসঙ্গত, শিখদের অন্যতম পবিত্র ধর্মীয়স্থল নান্দেদ গুরুদ্বার। শ্রী হাজুর আবচল নগর সাহিব জীবনের শেষ ১৪ মাস এখানেই কাটিয়ে ছিলেন বলে মানা হয়। তবে করোনা সংক্রমণ ফের যেভাবে জাঁকিয়ে বসছে তাতে কোনও ধরনের সমাবেশের আয়োজন ওই রাজ্যে না করাই শ্রেয় বলে মনে করছেন অনেকেই। সেই মত এদিনের হিংসাত্মক ঘটনাও এখন দেশজুড়ে চর্চিত।

Related Articles

Back to top button