ধোনি কিংবা কোহলি নন, এই খেলোয়াড়ই রিঙ্কুকে দিতেন ক্রিকেটের কিট, নাম জানলে অবাক হবেন

বাংলা হান্ট ডেস্ক: বর্তমান সময়ে ভারতের ক্রিকেট তারকাদের মধ্যে রীতিমতো আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে রয়েছেন রিঙ্কু সিং (Rinku Singh)। শুধু তাই নয়, ভারতীয় দলের এই সেনসেশন প্রায় প্রতিটি ম্যাচেই তাঁর অনবদ্য পারফরম্যান্স প্রদর্শন করছেন। পাশাপাশি, তিনি এটাও প্রমাণ করেছেন যে, দলে সুযোগ পেলেই রিঙ্কু হয়ে উঠতে পারেন বড় ভরসা। এছাড়াও, IPL এর পাশাপাশি জাতীয় দলেও তিনি বারংবার অবতীর্ণ হয়েছেন ফিনিশারের ভূমিকায়। আর এইভাবেই তিনি জায়গা করে নিয়েছেন ক্রিকেট প্রেমীদের মনে।

   

তবে, রিঙ্কুর সাফল্যের এই সফর যে খুব একটা মসৃণ ছিল না এই বিষয়টি তিনি নিজেই বারংবার উপস্থাপিত করেছেন। দিনের পর দিন লড়াইয়ের মাধ্যমে তিনি পৌঁছেছেন আজকের স্থানে। পাশাপাশি এই লড়াই বজায় রয়েছে এখনও। এছাড়াও রিঙ্কু নিজেই জানিয়েছেন যে, কোন ভারতীয় ক্রিকেটার তাঁকে ক্রিকেটের ক্ষেত্রে এগিয়ে যেতে সাহায্য করেছেন। বর্তমান প্রতিবেদনে এই প্রসঙ্গে বিস্তারিত তথ্য উপস্থাপিত করা হল।

This player used to give cricket kit to Rinku Singh

মূলত, রিঙ্কু নিজেই স্বীকার করেছেন যে ভারতের প্রাক্তন তারকা ব্যাটার সুরেশ রায়না তাঁর রোল মডেল এবং অনুপ্রেরণা। এই প্রসঙ্গে রিঙ্কু জানান, “আমি ২০১১ ওয়ানডে বিশ্বকাপজয়ী দলের সদস্য সুরেশ রায়নাকে অনুসরণ করে তাঁর মতো ব্যাট করার চেষ্টা করতাম।” পাশাপাশি, একটু সাক্ষাৎকারে রিঙ্কু জানান, “আমি সুরেশ রায়নার বড় ভক্ত এবং তাঁকে দেখে খেলার চেষ্টা করি। তিনি আমার জীবন এবং কেরিয়ার উভয়ক্ষেত্রেই একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন।”

আরও পড়ুন: অযোধ্যা থেকে ফিরেই প্রধানমন্ত্রী মোদীর বড় ঘোষণা! লাভবান হবেন লক্ষ লক্ষ মানুষ

এদিকে, ভারতের এই তারকা খেলোয়াড় জানান”, “সুরেশ রায়না আমাকে বিভিন্নভাবে সাহায্য করেছেন। এমনকি উনি আমাকে ব্যাট, প্যাড এবং ক্রিকেট খেলার জন্য প্রয়োজনীয় সব কিটও দিয়েছেন। তাঁকে কিছু না বলে এবং তাঁর কাছে কিছু না চেয়েও তিনি আমার জন্য সবকিছু পাঠাতেন। তাই তিনিই আমার কাছে সবকিছু।” রিঙ্কুর মতে,”‘যখন আমার কোনো ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিতে সমস্যা হয় আমি সরাসরি তাঁকে ফোন করি। সুরেশ রায়না আমার কাছে একজন বড় ভাইয়ের চেয়েও বেশি কিছু।”

আরও পড়ুন: শোধরাবে না পাকিস্তান! রাম মন্দির উদ্বোধনের জ্বলনে এবার ভারতের মুসলিমদের উস্কে দিচ্ছে কাঙালরা

এর পাশাপাশি রিঙ্কু এটাও জানান যে, “তিনি আমাকে বলেছিলেন কিভাবে চাপ সামলাতে হয়। খেলার সময়ে ৪ থেকে ৫টা বল আগে দেখে নিয়ে উইকেটে একটু থিতু হয়ে, তারপর হাত খুলতে বলেন। তাঁর এই পরামর্শগুলি আমাকে IPL-এ অনেক সাহায্য করেছে এবং এখন ভারতের হয়ে খেলার সময়ও এই পরামর্শগুলি থেকে আমি লাভবান হয়েছি।”

Sayak Panda
Sayak Panda

সায়ক পন্ডা, মেদিনীপুর কলেজ (অটোনমাস) থেকে মাস কমিউনিকেশন এবং সাংবাদিকতার পোস্ট গ্র্যাজুয়েট কোর্স করার পর শুরু নিয়মিত লেখালেখি। ২ বছরেরও বেশি সময় ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর