বিমানে চেপে তড়িঘড়ি হায়দরাবাদ ছুটলেন অভিষেক! হঠাৎ হল টা কি নেতার?

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ নতুন করে সমস্যা তৈরি হয়েছে অভিষেকের (Abhishek Banerjee) চোখে। তাই সময় নষ্ট না করে চিকিত্‍সার জন্য তড়িঘড়ি হায়দরাবাদে উড়ে গেলেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। শনিবার সকালে তৃণমূল সেকেন্ড ইন কমান্ড হায়দরাবাদ (Hyderabad) পাড়ি দিয়েছেন বলে সূত্রের খবর।

আর কি জানা যাচ্ছে?

   

সূত্রের খবর, চোখে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়েছে অভিষেকের। চোখে রক্ত জমাট বেঁধে রয়েছে নেতার। যার দরুন দেখতে সমস্যা হচ্ছে। সাথেই ব্যথা- যন্ত্রণাও রয়েছে। কিছুদিন আগে খবর মিলেছিল, অতিরিক্ত সময় কনট্যাক্ট লেন্স পরে থাকার কারণে নেতার চোখে রক্ত জমাট বেঁধে গিয়েছে। যার কারণে সমস্যা বাড়ছে। চিকিৎসকদের জানিয়েছিলেন অভিষেকের বিশ্রামেও প্রয়োজন রয়েছে।

অভিষেকের অসুস্থতার কথা শুনে দিন কয়েক আগে তাকে দেখতে গিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (CM Mamata Banerjee)। চোখের সমস্যার কারণেই কিছুদিন আগে নেতাজি ইনডোর স্টেডিয়ামে তৃণমূলের দলীয় কর্মসূচিতে অনুপস্থিত ছিলেন অভিষেক। সেই নিয়েও বিতর্ক কম হয়নি।

ঠিক কী হয়েছিল নেতার চোখে?

প্রসঙ্গত ২০১৬ সালে সিঙ্গুর দুর্ঘটনায় বা চোখের নীচের হাড় ভেঙে যায় অভিষেকের। এর পর দুবাই, সিঙ্গাপুর, হায়দরাবাদ ও কলকাতা মিলিয়ে মোট ৬ বার চোখে অপারেশন তৃণমূল নেতার৷ তবে এত চিকিৎসা, অস্ত্রোপচার সত্ত্বেও ক্রমেই খারাপ হচ্ছিল পরিস্থিতি। অভিষেকের বাঁ চোখের দৃষ্টিশক্তি কমে আসছিল। এরপর বাধ্য হয়ে আমেরিকায় যান নেতা। সুপ্রিম কোর্টের পারমিশন নিয়েই আমেরিকা গিয়েছিলেন অভিষেক।

আরও পড়ুন: বিচারপতির এক হুঁশিয়ারিতেই টনক নড়ল পর্ষদের! ২ মাস ধরে ফেলে রাখা কাজ হল ৪ ঘন্টায়

আমেরিকায় নিউইয়র্ক শহরের কিছুটা দূরে বাল্টিমোর শহর। সেই শহরের বিখ্যাত জনস হপকিন্স হাসপাতালের উইলমার আই ইনস্টিটিউটে গত অক্টোবরে অপারেশন হয় অভিষেকের। টানা সাড়ে পাঁচ ঘণ্টা ধরে চলে চোখের অপারেশন। এরপর সেখানের অন্যতম আই সার্জন ডেভিড গাইটন নেতার চোখ পরীক্ষা করেন।

abhishek banerjee

অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বা চোখের ‘অরবাইটাল ফ্র্যাকচার’ এর চিকিৎসা করেছেন বিশিষ্ট আই সার্জেন নিকোলাস মেহনি৷ অন্যদিকে যেভাবে ক্রমেই নেতার দৃষ্টি শক্তি কমে আসছিল সেই জায়গা থেকে চোখের দৃষ্টিশক্তি স্বাভাবিক করার কঠিন কাজটি করেছেন আই সার্জন গাইটন৷

চোখের অপরেশনের পরে প্রতিনিয়ত চোখের যত্ন নেওয়া, চশমা পরা এসব জিনিস গুলি নেতাকে মেনে চলার পরামর্শ দিয়েছিলেন চিকিৎসকেরা। নেতাও সেগুলো যথাযথভাবে পালন করেছেন। এরপর ‘অরবাইটাল ফ্র্যাকচার’-এর অপারেশনর পরবর্তী চিকিৎসার জন্য আমেরিকায় যান অভিষেক। সব কিছু ঠিকঠাক চললেও ফের সমস্যাটা বেড়েছে। তাই দেরী না করে চিকিৎসা করতে বাংলা ছাড়লেন নেতা।