অরূপের সামনেই হাতাহাতিতে জড়ালেন মন্ত্রী মনোজ! হাওড়া কার্নিভাল ঘিরে চুলোচুলি তৃণমূলের

বাংলা হান্ট ডেস্ক : ‘দলীয় কোন্দল’ সরিয়ে ‘ক্রিসমাস কার্নিভ্যাল’ (Christmas Carnival) চালু করার নির্দেশ দিয়েছিলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। খোদ নেত্রীর আদেশ অগ্রাহ্য করেই হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়ল রাজ্যের দুই হেভিওয়েট ব্যক্তি। ক্রীড়ামন্ত্রী অরূপ বিশ্বাসের (Arup Biswas) সামনেই হাওড়া পুরসভার প্রশাসক সুজয় চক্রবর্তীর দিকে তেড়ে গেলেন ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মনোজ তিওয়ারি।

   

পরিস্থিতি এমন জায়গায় পৌঁছে যায় যে শেষমেষ হাওড়া সিটি পুলিশকে মধ্যস্থতা করতে হয়। ঘটনাপ্রসঙ্গে জানা যাচ্ছে, বৃহস্পতিবার মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশেই ডুমুরজলায় এসেছিলেন অরূপ বিশ্বাস। সেখানে মন্ত্রীর সামনেই হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়েন পুরসভার প্রশাসক সুজয় চক্রবর্তী এবং ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মনোজ তিওয়ারি। সুজয়কে টেনে সরিয়ে দিচ্ছেন মন্ত্রী মনোজ, এমন ছবিও দেখা যায় সংবাদমাধ্যমে।

সূত্রের খবর, এইদিন হাওড়া ক্রিসমাস কার্নিভ্যালে পার্কিং ফি-র নামে তোলাবাজির অভিযোগ ওঠে। আর সেটা নিয়েই শুরু হয় দ্বন্দ্ব। সেই ঝামেলা চূড়ান্ত আকার ধারণ করতেই বন্ধ হয়ে যায় হাওড়ার ক্রিসমাস কার্নিভ্যাল। শেষে পরিস্থিতি সামাল দিতে আসরে নামেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী। কার্নিভ্যাল চালুর নির্দেশ দেন তিনি।

আরও পড়ুন : ‘গৃহবধূরা বেকার নন’, সংসারের কাজেরও আর্থিক মূল্য রয়েছে, বড় রায় দিল কলকাতা হাইকোর্ট

সেই সাথে দলের প্রতিও নির্দেশ দেন, যাতে কোনও ঝামেলার বা বিশৃঙ্খলা না তৈরি হয়। মুখ্যমন্ত্রীর এই নির্দেশের পরেও সকলের সামনে চলেই আসে তৃণমূলের অন্তর্কলহ। মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাসের সামনেই মেজাজ হারিয়ে ফেলেন মনোজ তিওয়ারি। তর্কাতর্কি শুরু হয় পুরসভার প্রশাসক সুজয় চক্রবর্তীর সাথে। যদিও তৎক্ষণাৎ পরিস্থিতি সামাল দিতে তৎপর হয়ে পড়েন অরূপ বিশ্বাস।

আরও পড়ুন : ৪০০-রও বেশি আসন পাবে বিজেপি, মোদীর প্রশংসায় পঞ্চমুখ নানা পাটেকার, করলেন ভবিষ্যদ্বাণী

arup

যদিও বৈঠক শেষে হাতাহাতির অভিযোগ উড়িয়ে দেন অরূপ। একইরকম সুর মনোজের গলাতেও। তিনি বলেন, ‘অনেক সময় ছবি সঠিক তথ্য দেয় না। আমাদের মধ্যে কোনও সমস্যা নেই। ভুল বোঝাবুঝি মিটে গিয়েছে।’ এদিকে ক্রিড়ামন্ত্রী জানান, ‘প্রত্যেক পরিবারেই সমস্যা থাকে। কিন্তু সমস্যা নিয়ে কাজ করতে হয়। আমি চাই মনোজ ও সুজয় একসাথে কাজ করুক। কোনও বচসা হয়নি। মিটে গিয়েছে। ছোট দরজা তাই পায়ে পা লেগে গিয়েছে।’ সেই সাথে তিনি এটাও জানিয়েছেন, পার্কিং ফি প্রত্যাহার করা হয়েছে। এবার থেকে পার্কিং নিয়ন্ত্রণ করবে পুলিশ।