আজ যেখানে সংসদ ভবন পূর্বে সেখান দিয়েই যেত ট্রেন, এই রুট কোথায় পৌঁছাত জানেন?

   

বাংলা হান্ট ডেস্ক : আজকের দিনে দিল্লির বুকে যেখানে সংসদ ভবন (Parliament) রয়েছে একটা সময় সেখানে ছিল রেলপথ। তবে সময়ের ফেরে সেই পথ বন্ধ করে ভারতীয় রেল (Indian Railways)। এই রেলপথ কোথায় যেত আর কেনই বা পরিষেবা বন্ধ করা হল? এর পেছনেও রয়েছে বেশ ইন্টারেস্টিং একটি কাহিনী। আজকের প্রতিবেদনে সেটাই জানাবো পাঠকদের।

রাইসিনা পাহাড়ে সংসদ ভবন, রাষ্ট্রপতি ভবন (Parliament) এবং উত্তর ও দক্ষিণ ব্লক পরিদর্শন করলেই দেখতে পাবেন যে সেখানে লাল বেলে পাথরের ব্যবহার করা হয়েছে। এবং এইসব পাথর এসেছে রাজস্থান থেকে। তবে ১৯২১ সালে যখন সংসদের নির্মাণকাজ শুরু হয় তখন নয়া দিল্লি স্টেশন ছিলনা। সেই সময় এই পাথরগুলি পুরনো দিল্লি থেকে রাইসিনা পাহাড়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল।

এভাবে পাথর পৌঁছাতে অনেক সময় লাগছিল। তৎকালীন ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা পাথরগুলি ট্রেনে করে রাইসিনা পাহাড়ে নিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। এবং এরজন্য সদর বাজার থেকে রাইসিনা হিলস পর্যন্ত একটি রেলপথ স্থাপনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় এবং তৎক্ষণাৎ ট্র্যাক স্থাপন করা হয়।

আরও পড়ুন : ‘জনতা বলছে মোদীর গ্যারান্টি’, মসাগ্রাম রেল প্রকল্প নিয়ে বড় বয়ান সৌমিত্রর

এই ট্র্যাকটি বর্তমান নয়া দিল্লি স্টেশন, কন্ট প্লেস হয়ে সংসদ ভবনের সামনে পর্যন্ত তৈরি করা হয়। এবং পণ্য পরিবহনও শুরু হয়ে যায়। মূলত পাথর পরিবহন করা হত এই পণ্যবাহী ট্রেনে। এই ট্রেনটি সংসদ ভবনের সামনে পর্যন্ত যেত এবং সেখান থেকে ফিরে আসত। এইভাবে টানা ছয় বছর পাথর সরবরাহ করা হয়। এবং ১৯২৬ সালে নির্মাণ হয় সংসদ ভবনের।

আরও পড়ুন : মাধ্যমিক পাশেই মোটা মাইনের সরকারি চাকরি! ব্যাপক হারে নিয়োগ করছে BSF

indian parliament 64eeedd4361f4

তবে সংসদ ভবন নির্মাণ হতেই এই ট্র্যাক বন্ধ করা হয়নি। কারণ এই ট্র্যাকটি কন্ট প্লেসের মধ্যে দিয়ে যেত। এরপর ১৯২৯ সালে কন্ট প্লেস নির্মাণকাজ শুরু হয়। উল্লেখ্য, সংসদ ভবন, রাষ্ট্রপতি ভবন এবং উত্তর ও দক্ষিণ ব্লক নির্মাণের সময় এখানে পাহাড় ছিল। শাহজাহানাবাদের কাছে অবস্থিত মালচা গ্রামের মাঝখানের একটা জায়গায় ছিল রাইসিনা দূর্গ। এই পাহাড় সমতল করা হয় এবং ভবন নির্মাণ শুরু হয়।

Moumita Mondal
Moumita Mondal

মৌমিতা মণ্ডল, গ্র্যাজুয়েশনের পর শুরু নিয়মিত লেখালেখি। বিগত ৩ বছরেরও বেশি সময় ধরে লেখালেখির সাথে যুক্ত। প্রায় ২ বছর ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর