টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গ

সম্পর্ক মেনে নেয়নি পরিবার, অভিমানে গাছে ফাঁস লাগিয়ে আত্মঘাতী অপ্রাপ্তবয়স্ক প্রেমিক যুগল

বাংলাহান্ট ডেস্ক : প্রেমের করুণ পরিণতির শিকার হলেন এক প্রেমিক যুগল। একে অপরের প্রেমে পড়েছিলেন তারা। চেয়েছিলেন সেই প্রেমের সম্পর্ককে বিয়ের রূপ দেবেন। কিন্তু অপ্রাপ্তবয়স্ক হওয়ায় সেই বিয়েতে রাজি ছিল না দুই পরিবার। পরিবারের এই সিদ্ধান্ত না মেনে নিতে পেরে একই গাছে গলায় ফাঁস লাগে আত্মঘাতী হলেন প্রেমিক যুগল। আজ সকালে এই নাবালক ও নাবালিকার দেহ উদ্ধার করা হয় নদীয়ার তেহট্ট থানা এলাকা থেকে।

জানা যাচ্ছে আত্মঘাতী হওয়া নাবালকের নাম সজল মন্ডল। তেহট্টের নাতনা উচ্চ বিদ্যালয়ের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র সে। অন্যদিকে নাবালিকার নাম বিজয়া বিশ্বাস। বিজয়া দেবনাথপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী । সূত্রের খবর এই দুই নাবালক – নাবালিকা একে অপরের সাথে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে। কিন্তু দুজনেই অপ্রাপ্তবয়স্ক হওয়ায় তাদের বিয়ে দিতে রাজি হয়নি দুই পরিবার। অন্যদিকে এদের মধ্যে এতই প্রেমের টান ছিল যে এরা একে অপরকে ছাড়া থাকতে পারবে না বলে জানায়।

তাদের বিয়েতে পরিবারের মত না থাকায় গতকাল রাতে তারা দুজনেই বেরিয়ে যায় বাড়ি থেকে। দুই পরিবারে তরফ থেকেই সারা রাত সর্বত্র খুঁজলেও কোথাও খোঁজ পাওয়া যায় না তাদের। অবশেষে আজ সকালে করিমপুর থানার অন্তর্গত মহিষবাথান এলাকায় গাছে ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার করা হয় এই প্রেমিক যুগলের মৃতদেহ।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসে করিমপুর থানার পুলিশ। পুলিশ দেহ উদ্ধার করে করিমপুর হাসপাতালে পাঠালে সেখানে তাদেরকে মৃত বলে ঘোষণা করা হয়। একই দিনে মর্মান্তিকভাবে দুই পরিবার হারালো দুই সন্তানকে। এইরকম মর্মান্তিক ঘটনায় রীতিমতো শোকের ছায়া এলাকা জুড়ে।

Related Articles