এক ঝাঁক কুকুরের খপ্পরে শিশুকন্যা, খুবলে খাওয়ার আগেই উদ্ধার করল দেবদূত! ভাইরাল ভিডিও

   

বাংলা হান্ট ডেস্ক: ১৯৮৪ সালে ভোপাল শহরে ভয়াবহ গ্যাস দুর্ঘটনায় প্রাণ হারিয়েছিলেন হাজার হাজার ঘুমন্ত মানুষ, সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে সেই ভোপাল শহর ফের চর্চার কেন্দ্রে। এবারের ঘটনা ভোপাল শহরের বাগসেভানিয়ার অঞ্জলি বিহার ফেজ-২-এ। একটি চার বছরের নিষ্পাপ মেয়েকে পাঁচটি রাস্তার কুকুর আচমকা আক্রমণ করে। কুকুরের কামড়ে মেয়েটির রক্তক্ষরণ শুরু হয়। সেই সময় দেবদূতের মতো একজন পথচারী এসে কুকুরগুলোকে তাড়িয়ে দেয়। ছোট্ট মেয়েটি প্রাণে বেঁচে যায়।

শনিবার সন্ধ্যার এই ঘটনাটি একটি বাড়ির সিসিটিভি ফুটেজে ধরা পড়েছে এবং তা সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার হতেই মুহূর্তেই ভাইরাল হয়ে যায়। আলোড়ন তোলে দুনিয়াজুড়ে। জানা গিয়েছে, মেয়েটির বাবা ঘটনাস্থলের পাশে একটি নির্মীয়মান বাড়িতে শ্রমিকের কাজ করছিলেন। আর সেই সময় মেয়েটি কাছাকাছি কোথাও খেলছিল তখন একদল রাস্তার কুকুর হঠাৎ মেয়েটিকে আক্রমণ করে। মেয়েটির মাথায়, কানে ও হাতে কামড় বসায়। তখন ওই দেবদূতের তৎপরতায় প্রাণ রক্ষা পায় ছোট্ট মেয়েটির। এরপর মেয়েটিকে চিকিৎসা করানোর পর বাড়ি পাঠানো হয়েছে।

সিসিটিভি ফুটেজ সামনে আসার পর মধ্যপ্রদেশ মানবাধিকার কমিশন এই বিষয়টিকে যথেষ্ট গুরুত্ব সহকারে দেখে। আগামী সাত দিনের মধ্যে পুর কর্পোরেশনের স্বাস্থ্য দফতর, ভোপাল কমিশনার এবং ভোপাল জেলা প্রশাসনের কাছে জবাব চেয়ে পাঠিয়েছে কমিশন।

কমিশনের পাঠানো নোটিশে মিউনিসিপাল কর্পোরেশন এবং ভোপাল কমিশনারকে বেশ কিছু তথ্য দিতে বলা হয়েছে। পাশাপাশি, আগামী সাত দিনের মধ্যে ঘটনার পূর্ণাঙ্গ রিপোর্ট চেয়ে আহত মেয়ের বাবাকে ক্ষতিপূরণের টাকা দিতে বলা হয়েছে এবং বাচ্চাটির চিকিৎসা সংক্রান্ত তথ্য জানতে চেয়ে মেডিকেল রিপোর্টের কপি চেয়ে পাঠানো হয়েছে।

সম্পর্কিত খবর