রাতে এসো! ছাত্রীদের কুপ্রস্তাব বিশ্বভারতীর আরবি শিক্ষকের, তারপর পড়ুয়ারা যা করল…

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ ছাত্রীদের ‘রাত্রিযাপনে’র কুপ্রস্তাব দিতেন অধ্যাপক। এবার তাঁর ঘরে তালা ঝুলিয়ে দিলেন শিক্ষার্থীরা। ঘটনাটি ঘটেছে বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ে (Visva Bharati University)। জানা যাচ্ছে, অভিযুক্ত অধ্যাপকের ঘরে তালা ঝোলানোর পাশাপাশি তাঁকে অপসারণ করার দাবিও তুলেছেন পড়ুয়ারা। সোমবার এই ঘটনা ঘটলেও আজও তার রেশ কাটেনি।

আরবি বিভাগের অতিথি অধ্যাপক (Professor) আবদুল্লা মোল্লার বিরুদ্ধে ছাত্রীদের ‘রাত কাটানো’র কুপ্রস্তাব দেওয়ার অভিযোগ আনা হয়েছে। কখনও বাড়তি নম্বর পাইয়ে দেওয়া, কখনও আবার পরীক্ষায় পাস করিয়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে ছাত্রীদের ‘রাত কাটানো’ প্রস্তাব দিতেন বলে দাবি করা হয়েছে। ছাত্রীদের হোয়্যাটসঅ্যাপের মাধ্যমে তিনি ‘কুপ্রস্তাব’ দিতেন বলে খবর।

গত ২৮ মার্চ বিশ্ববিদ্যালয়ের ইন্টারনাল কমপ্লেন্ট কমিটিতে এই প্রেক্ষিতে অভিযোগ জানান তিনজন ছাত্রী। এরপর শান্তিনিকেতন থানাতেও লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। এরপরেই প্রকাশ্যে আসে অধ্যাপকের ‘কীর্তি’র কথা। অভিযোগ দায়ের করার পর বেশ কয়েকদিন কেটে গেলেও বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ কিংবা পুলিশের তরফ থেকে কোনও পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়নি, সেই কারণে ছাত্রছাত্রীরা বিক্ষোভের পথ বেছে নেন বলে খবর।

আরও পড়ুনঃ সন্দেশখালিতে অকাল হোলি! লক্ষ্মীর ভাণ্ডার মিলতেই তৃণমূলকে নিয়ে বড় বয়ান মহিলাদের

জানা যাচ্ছে, গতকাল অভিযুক্ত অধ্যাপককে তাঁর ঘর থেকে বের করে সেখানে তালা ঝুলিয়ে দেন পড়ুয়ারা। এরপর তাঁকে অপসারণের দাবিতে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের ফ্যাকাল্টি অ্যাসোসিয়েশন অভিযোগকারী ছাত্রীদের পাশে দাঁড়িয়েছেন।

visva bharati university

এই প্রসঙ্গে বিক্ষোভকারী ছাত্রীরা বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ এবং থানার তরফ থেকে অভিযুক্ত অধ্যাপকের বিরুদ্ধে কোনও পদক্ষেপ গ্রহণ না করায় তাঁর ঘরে তালা ঝুলিয়ে দেওয়া হয়েছে। সংশ্লিষ্ট অধ্যাপককে যদি বহিষ্কার না করা হয় তাহলে ক্লাস না করার কথাও বলেন তাঁরা। অভিযুক্ত অধ্যাপকের মেসেজের কারণে তাঁরা মানসিক নির্যাতনের শিকার হয়েছেন বলেও দাবি করেন বিক্ষোভরত ছাত্রীরা। আরবি বিভাগের অভিযুক্ত অধ্যপক আবদুল্লা মোল্লার বিরুদ্ধে তদন্তের দাবি তুলেছেন বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক সংগঠনের সভাপতি সুদীপ্ত ভট্টাচার্য। একইসঙ্গে তদন্তের স্বার্থে আইসিসি পুনর্গঠন করার কথাও বলেছেন তিনি।

Sneha Paul
Sneha Paul

স্নেহা পাল, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তরের পর সাংবাদিকতা শুরু। বিগত প্রায় ২ বছর ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর