একপ্রকার বাধ্য হয়েই আমেরিকায় গিয়েছেন অভিষেক! এবার সামনে এল ‘বড়’ তথ্য

   

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ গত মাসে সু্প্রিম কোর্টের সবুজ সংকেতের পর বিমানে উড়ে বিদেশ পাড়ি দেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় (Abhishek Banerjee)। চোখের ট্রিটমেন্টেই বিদেশে পাড়ি দেন ডায়মন্ড হারবারের তৃণমূল সাংসদ (TMC MP)। বর্তমানে আমেরিকায় রয়েছেন অভিষেক। চলছে চোখের চিকিৎসা (Eye Treatment)। সেই ছবি শেয়ার করেছেন তৃণমূল সেকেন্ড ইন কমান্ড নিজেই।

২০১৬ সালে সিঙ্গুর দুর্ঘটনায় বা চোখের নীচের হাড় ভেঙে যায় অভিষেকের। এর পর দুবাই, সিঙ্গাপুর, হায়দরাবাদ ও কলকাতা মিলিয়ে মোট ৬ বার চোখে অপারেশন তৃণমূল নেতার৷ তবে এত চিকিৎসা, অস্ত্রোপচার সত্ত্বেও ক্রমেই খারাপ হচ্ছিল পরিস্থিতি। অভিষেকের বাঁ চোখের দৃষ্টিশক্তি কমে আসছিল। এরপর বাধ্য হয়েই আমেরিকায় যান নেতা।

আমেরিকায় নিউইয়র্ক শহরের কিছুটা দূরে বাল্টিমোর শহর। সেই শহরের বিখ্যাত জনস হপকিন্স হাসপাতালের উইলমার আই ইনস্টিটিউটে গত অক্টোবরে অপারেশন হয় অভিষেকের। টানা সাড়ে পাঁচ ঘণ্টা ধরে চলে চোখের অপারেশন। এরপর সেখানের অন্যতম আই সার্জন ডেভিড গাইটন নেতার চোখ পরীক্ষা করেন।

অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বা চোখের ‘অরবাইটাল ফ্র্যাকচার’ এর চিকিৎসা করেছেন বিশিষ্ট আই সার্জেন নিকোলাস মেহনি৷ অন্যদিকে যেভাবে ক্রমেই নেতার দৃষ্টি শক্তি কমে আসছিল সেই জায়গা থেকে চোখের দৃষ্টিশক্তি স্বাভাবিক করার কঠিন কাজটি করেছেন আই সার্জন গাইটন৷ বর্তমানে অনেকটাই সুস্থ নেতা। চোখের দৃষ্টিশক্তিও প্রায় নরমাল।

abhishek 4

চোখের অপরেশনের পরে প্রতিনিয়ত চোখের যত্ন নেওয়া, চশমা পরা এসব জিনিস গুলি নেতাকে মেনে চলার পরামর্শ দিয়েছিলেন চিকিৎসকেরা। নেতাও সেগুলো যথাযথভাবে পালন করেছেন। তবে ‘অরবাইটাল ফ্র্যাকচার’-এর অপারেশনর পরবর্তী চিকিৎসার জন্য তার ফের সেখানে যাওয়ার প্রয়োজন ছিল। তাই চিকিৎসার স্বার্থে বাধ্য হয়েই সম্প্রতি বিদেশে গিয়েছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

Sharmi Dhar
Sharmi Dhar

শর্মি ধর, বাংলা হান্ট এর রাজনৈতিক কনটেন্ট রাইটার। উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাংবাদিকতায় স্নাতকোত্তর। বিগত ৩ বছর ধরে সাংবাদিকতা পেশার সঙ্গে যুক্ত ।

সম্পর্কিত খবর