ভারতীয় দলে সুযোগ না পেয়ে অভিমানে অবসর! এখন রেস্তরাঁয় রান্না করছেন বিশ্বজয়ী এই ক্রিকেটার

বাংলা হান্ট নিউজ ডেস্কঃ প্রাক্তন ভারতীয় এবং চেন্নাই সুপার কিংস (CSK) তারকা ব্যাটার সুরেশ রায়না (Suresh Raina) নিজের সময়ে অত্যন্ত জনপ্রিয় ক্রিকেটার ছিলেন ভারতীয় ক্রিকেটের সমর্থকদের কাছে। কিন্তু তিনি ২০২০ সালেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নিয়ে নিয়েছেন। এখন তিনি কোনও ঘরোয়া ক্রিকেট বা ফ্র্যাঞ্চাইজি দলের সাথেও যুক্ত নেই। এরপর তিনি কিছুদিন ধারাভাষ্যের সঙ্গে যুক্ত থাকার পর এখন খাবারের ব্যবসায় নেমেছেন এবং নিজের একটি রেস্তোরাঁ চালু করেছেন।

   

প্রাক্তন ক্রিকেটার নেদারল্যান্ডসের আমস্টারডামে একটি ভারতীয় খাবারের রেস্তোরাঁ খুলেছেন। ‘RAINA’ নামের রেস্তোরাঁটির লক্ষ্য হলো ওই দেশের ভারতীয় সহ অন্যান্য গ্রাহকদেরকে খাঁটি ভারতীয় খাওয়ারের যথার্থ স্বাদ এনে দেওয়া। ইতিমধ্যেই তার রেস্তোরাঁটি সম্পর্কে ক্রিকেটপ্রেমীরা উৎসাহ প্রকাশ করতে শুরু করে দিয়েছেন। খুন্তি হাতে রান্নার একটি ছবি এখন সোশ্যাল মিডিয়াতেও ভাইরাল।

raina resturant team

নিজের সোশ্যাল মিডিয়া হ্যান্ডেলগুলি থেকে রায়না তার ভক্তদের সাথে এই সুসংবাদটি ভাগ করে নিয়েছেন। তিনি বলেছেন, “আমি আমস্টারডামে ‘রায়না’ নামক ভারতীয় রেস্তোরাঁর সাথে আপনাদের পরিচয় করিয়ে দিতে পেরে উচ্ছ্বসিত। এখানে খাবার এবং রান্নার প্রতি আমার আবেগ কেন্দ্রীভূত হয়েছে! বছরের পর বছর ধরে, আপনারা ভালো খাওয়ারের প্রতি আমার ভালবাসা দেখেছেন এবং আমার রন্ধনসম্পর্কীয় মতামতের সাক্ষী হয়েছেন এবং এখন, আমি ভারতের বিভিন্ন অংশ সেই স্বাদগুলিকে সরাসরি ইউরোপের হৃদয়ে সবচেয়ে খাঁটি এবং আসল রূপে উপস্থাপিত করার চ্যালেঞ্জ নিয়েছি।”

তিনি আরও বলেছেন, “এই অসাধারণ যাত্রায় আপনারা আমার সাথে যোগ দিন যখন আমরা একসাথে একটি স্বাদপূর্ণ অভিযান শুরু করি। চমকপ্রদ আপডেটের জন্য আমাদের সঙ্গে যুক্ত থাকুন। আমাদের জিভে জল আনা এই সৃষ্টির উঁকিঝুঁকি, এবং রায়না ইন্ডিয়ান রেস্তোরাঁর জমকালো উন্মোচনের কিছু মুহূর্ত তুলে ধরলাম!”

প্রসঙ্গত, সুরেশ রায়না ভারতীয় ক্রিকেটের এমন এক তারকা যাকে শুধুমাত্র পরিসংখ্যান দিয়ে বিচার করা যাবে না। তার সঙ্গে মহেন্দ্র সিংহ ধোনির জুটি এক সময় ভারতীয় দলকে বহু বিপদের হাত থেকে রক্ষা করেছে। ২০১১ বিশ্বকাপে তিনি প্রাথমিকভাবে সুযোগ পাননি ভারতীয় একাদশে। কিন্তু কোয়ার্টার ফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে এবং সেমিফাইনালে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে দলকে জয় এনে দিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছিলেন এই অলরাউন্ডার। এছাড়া ২০১৩ সালের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি জয়ী দলের গুরুত্বপূর্ণ সদস্য ছিলেন তিনি।