৯৯ শতাংশ জন হয়েছেন ব্যর্থ! ১৫ সেকেন্ডের মধ্যে এই অঙ্কের সঠিক উত্তর দিতে পারলেই আপনি জিনিয়াস

   

বাংলা হান্ট ডেস্ক: ছোটবেলা থেকেই আমরা বিভিন্ন ধরণের ধাঁধার (Puzzle) সমাধান করেছি। যেগুলি সঠিকভাবে সমাধানের ক্ষেত্রে মস্তিষ্কের কার্যক্ষমতা বৃদ্ধির পাশাপাশি পাওয়া যায় মানসিক প্রশান্তিও। তবে, ধাঁধার বেশকিছু আলাদা আলাদা ধরণ রয়েছে। বর্তমান সময়ে যেমন নেটমাধ্যমের বিভিন্ন প্ল্যাটফর্মে এমন কিছু ছবি আমরা দেখতে পাই যেগুলিতে গাণিতিক ধাঁধা পরিলক্ষিত হয়।

এদিকে, ওই বিশেষ ছবিগুলিতে সঠিক উত্তরটি অনুসন্ধান করতে হয় সবাইকে। আর উত্তরটি খুঁজে পেলেই সমাধান হয়ে যায় ছবিটির। এমতাবস্থায়, এই বিষয়টিও অনেকটা ধাঁধা সমাধানের মতই ঘটে। যদিও, কিছু কিছু ক্ষেত্রে যাঁরা নিয়মিত ধাঁধা সমাধান করেন তাঁরাও এগুলির সমাধানের জন্য রীতিমতো কালঘাম ছুটিয়ে দেন।

মূলত, তীক্ষ্ণ মনের মানুষেরা সহজেই এই ধরণের ধাঁধার সমাধান করতে পারলেও কিছু ক্ষেত্রে ছবিগুলি এতটাই কঠিন থাকে যে অধিকাংশ মানুষই সঠিক উত্তর দিতে পারেন না। সেই রেশ বজায় রেখেই এবার একটি ছবি তুমুল ভাইরাল হতে শুরু করেছে। যেখানে একটি অঙ্কের সমাধান করতে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন সবাই।

সমাধান করুন এই অঙ্কের: সম্প্রতি, ভাইরাল হওয়া ওই ছবিটিতে একটি বড় অঙ্ক পরিলক্ষিত হয়েছে। ছোটবেলায় আমরা ঠিক যেভাবে সরল অঙ্ক করতাম এই বিষয়টিও ঠিক সেইরকম। এখানে দেখা গিয়েছে, 23-9÷3+2-4÷2 এই অঙ্কটি। যেটির উত্তর সমাধান করতে হবে।

এমতাবস্থায়, আপনিও একবার এটিকে সমাধানের চেষ্টা করতে পারেন। সেক্ষেত্রে আপনাকে ১৫ সেকেন্ডের মধ্যে উত্তরটি বলতে হবে। তবে, বারংবার চেষ্টা করেও আপনি যদি সঠিক উত্তরটি খুঁজে পেতে সমর্থ না হন, তাহলেও চিন্তা নেই। কারণ আমরা সঠিক উত্তরটি জানিয়ে দিচ্ছি।

 You are a genius if you can answer this number correctly in 15 seconds

জেনে নিন উত্তর: ছবিটি একটু ভালোভাবে পর্যবেক্ষণ করলেই কিন্তু উত্তরটি আপনি পেয়ে যাবেন। ঠান্ডা মাথায় অঙ্কটিকে বারংবার দেখলেই সেটি সমাধান করা সম্ভব। অঙ্কটি হল 23-9÷3+2-4÷2। যেটিকে সমাধান করলে হবে 23-9÷3+2-4÷2=23-3+2-2=20। অর্থাৎ, উত্তরটি হল 20। তবে, আমাদের বলে দেওয়ার আগেই যদি আপনি ১৫ সেকেন্ডের মধ্যে অঙ্কটি সমাধান করতে পারেন সেক্ষেত্রে নিঃসন্দেহে আপনি একজন জিনিয়াস।

Sayak Panda
Sayak Panda

সায়ক পন্ডা, মেদিনীপুর কলেজ (অটোনমাস) থেকে মাস কমিউনিকেশন এবং সাংবাদিকতার পোস্ট গ্র্যাজুয়েট কোর্স করার পর শুরু নিয়মিত লেখালেখি। ২ বছরেরও বেশি সময় ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর