ভারতে কেউ দেয় না মান! অথচ আমেরিকায় এই খাটিয়া যা দামে বিক্রি হয়, জানলেই আঁতকে উঠবেন

বাংলা হান্ট ডেস্ক: আমাদের দেশের (India) অধিকাংশ মানুষের একটি অদ্ভুত অভ্যাস রয়েছে। মূলত, বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই দেখা যায় যে আমরা তখনই কোনো জিনিসকে গুরুত্ব দিই যখন তার সঠিক ব্র্যান্ডিং এবং মার্কেটিং করা হয়। অর্থাৎ, কোনো জিনিস হাতের কাছে থাকলেও যতক্ষণ না পর্যন্ত সেটি আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে উঠে আসছে ততক্ষণ পর্যন্ত সেটির আসল কদর বুঝতে পারি না আমরা। এই তালিকায় এমন অনেক কিছুই রয়েছে। এমনকি, সেগুলি ভারতে সঠিক কদর না পেলেও বিদেশে কিন্তু বেশ জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে।

একটি উদাহরণ দিলে বিষয়টি স্পষ্ট হয়ে যাবে। যেমন ধরুন যোগ ব্যায়াম। বর্তমানে যোগ ব্যায়ামকে ঘিরে সারা বিশ্বের মানুষ সচেতন হলেও এটি কিন্তু ভারতে শুরু হয়েছিল। তবে, যখনই এটি বিদেশে জনপ্রিয় হতে শুরু করে তখন আমাদের দেশেও যোগ ব্যায়ামের মান বাড়তে থাকে। আবার ধরে নিন গোবরের বিষয়টি।

   

ভারতের গ্রামে গ্রামে এগুলি জ্বালানি হিসেবে বহুল পরিমাণে ব্যবহার করা হলেও শহরে এটির ব্যবহার দেখা যেত না। কিন্তু বিদেশে যখন গোবরের একাধিক ব্যবহার সম্পর্কে সকলে অবহিত হলেন তখন ভারতেও গোবরকে বিভিন্ন কাজে লাগানো শুরু হল এবং বর্তমানে শহরাঞ্চলেও এটির ব্যবহার বৃদ্ধি পাচ্ছে। তবে, এবার সেই তালিকায় যুক্ত হয়েছে আরও একটি জিনিস। যেটি জানলে রীতিমতো অবাক হয়ে যাবেন প্রত্যেকেই।

মূলত, এবার ভারতের ঐতিহ্যবাহী “চারপায়া” বা “খাটিয়া” খবরের শিরোনামে উঠে এসেছে। ভারতের গ্রামে গ্রামে খাটিয়ার ব্যবহার পরিলক্ষিত হয়। মূলত, এই খাটিয়াগুলি বারান্দায় ঘুমনোর জন্য বা উঠোনে বসার জন্য বেশি ব্যবহার করা হয়। যদিও, এখন গ্রামেও এই খাটিয়ার ব্যবহার কমতে শুরু করেছে।

এবারে আসি আসল বিষয়ে। মূলত, আজকের দিনে দাঁড়িয়ে এই খাটিয়ার দাম আমাদের দেশে সাধারণত ২ হাজার থেকে ৫ হাজার টাকার মধ্যে হলেও আমেরিকার শপিং সাইটে এটির দাম জানলে চক্ষু চড়কগাছ হয়ে যাবে সবার। কারণ, আমেরিকান ই-কমার্স ওয়েবসাইট etsy-তে একটি খাটিয়ার দাম বলা হয়েছে ১ লক্ষ ১৩ হাজার ৩০ টাকা। প্রথমে জেনে চমকে গেলেও এটা কিন্তু একদমই সত্যি।

You will be surprised to know the price of this khatiya in America

লক্ষাধিক টাকা দাম: কিছুদিন আগেই এই সংক্রান্ত একটি ছবি তুমুল ভাইরাল হতে শুরু করে নেটমাধ্যমে। এই প্রসঙ্গে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী জানা গিয়েছে, এই খাটিয়াটি আমেরিকায় ভারতের মাইক্রো স্মল অ্যান্ড মিডিয়াম এন্টারপ্রাইজেস (Micro, Small & Medium Enterprises) নামের এক সংস্থা বিক্রি করে। তবে এই খাটিয়ার বিশেষ কোনো বৈশিষ্ট্য আছে কি না, তা ওয়েবসাইটে উল্লেখ করা হয়নি। কিন্তু ছবিটি থেকে এটি একটি সাধারণ খাটিয়ার মতোই মনে হয়েছে।

Sayak Panda
Sayak Panda

সায়ক পন্ডা, মেদিনীপুর কলেজ (অটোনমাস) থেকে মাস কমিউনিকেশন এবং সাংবাদিকতার পোস্ট গ্র্যাজুয়েট কোর্স করার পর শুরু নিয়মিত লেখালেখি। ২ বছরেরও বেশি সময় ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর