“টার্গেট” ছিলেন যাত্রীরা! ১ বছরে ২০০ বার বিমানে চেপে কয়েক লক্ষের জিনিসপত্র চুরি ব্যক্তির, ধরা পড়তেই….

   

বাংলা হান্ট ডেস্ক: ট্রেনে কিংবা বাসে জিনিসপত্র চুরির সম্মুখীন অনেকেই হয়েছেন। যেই কারণে ওই গণপরিবহণগুলিতে সফরের সময়ে থাকতে হয় অত্যন্ত সতর্ক। কিন্তু, আপনি কি কখনও মাঝ আকাশে জিনিসপত্র চুরি যাওয়ার বিষয়ে শুনেছেন? হ্যাঁ, প্রথমে এটি পড়ে কিছুটা অবাক হলেও বর্তমান প্রতিবেদনে আজ আমরা আপনাদের কাছে ভারতেরই (India) এমন একজনের প্রসঙ্গ উপস্থাপিত করব যিনি বিমানে চুরি করার বিষয়ে রীতিমতো নজির গড়েছেন। সম্প্রতি, পুলিশ এমন এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছেন যিনি বিমানে চেপে এক শহর থেকে আরেক শহরের সফর করতেন এবং তাঁর সহযাত্রীদের জিনিসপত্র চুরি করতেন। কিন্তু সম্প্রতি চুরি করতে গিয়েই তাঁর এই কীর্তি ফাঁস হয়ে যায়।

পুলিশ জানিয়েছে, অভিযুক্ত ব্যক্তি ধরা পড়ে যাওয়ার ভয়ে তাঁর মৃত ভাইয়ের নামে টিকিট বুক করতেন। সবথেকে উল্লেখযোগ্য বিষয় হল, ওই ব্যক্তি এক বছরে ২০০ বারের বেশি বিমানে ভ্রমণ করেছেন এবং কয়েক কোটি টাকার জিনিসপত্র চুরি করেছেন। প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী জানা গিয়েছে, রাজেশ কাপুর নামে এক ব্যক্তি ১১০ দিনে ২০০ বারের বেশি বিমানে ভ্রমণ করেছেন। তিনি চণ্ডীগড়, হায়দ্রাবাদ ও দিল্লির যাত্রীদের টার্গেট করতেন।

A person who stole goods worth several lakhs in an airplane.

রাজেশ কাপুর বেশিরভাগ প্রিমিয়াম ডোমেস্টিক ফ্লাইটে ভ্রমণ করতেন এবং প্রবীণ নাগরিকদের টার্গেট করেছিলেন। ইন্দিরা গান্ধী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের ডেপুটি কমিশনার অফ পুলিশ ঊষা রঙ্গনানি জানিয়েছেন, যাত্রীরা বসার সাথে সাথেই তিনি অসংগঠিত বোর্ডিং প্রক্রিয়ার সুবিধা নিতেন এবং ওভারহেড ব্যাগেজ কম্পার্টমেন্টে রাখা ব্যাগ থেকে মূল্যবান জিনিসপত্র চুরি করতেন। এমন দু’টি অভিযোগ পেয়েছে পুলিশ।

আরও পড়ুন: আর নয় অপেক্ষা! নমো ভারত রেলের প্রসঙ্গে এল বড় আপডেট, কবে থেকে শুরু পরিষেবা?

প্রথম অভিযোগ: এই বছরের ২ ফেব্রুয়ারি আমেরিকার বাসিন্দা বারিন্দরজিৎ সিং অভিযোগ দায়ের করেন যে তিনি অমৃতসর থেকে এয়ার ইন্ডিয়ার একটি ফ্লাইটে দিল্লি গিয়েছিলেন। ওই সফরে তাঁর ব্যাগ থেকে ২০ লক্ষ টাকার গয়না চুরি হয়। গত ১১ এপ্রিল আরেকটি মামলা নথিভুক্ত করা হয়েছিল। যেখানে সুধারানি পাথুরি নামে এক মহিলা বলেছিলেন যে, তিনি হায়দ্রাবাদ থেকে দিল্লি যাচ্ছিলেন। সেই সময়ে তাঁর ব্যাগ থেকে ৭ লক্ষ টাকার গয়না উধাও হয়।

আরও পড়ুন: ভারতের সতর্কতা মেনেই চিনের প্ল্যানে জল ঢালছে নেপাল! ৭ বছরের চেষ্টাতেও সফল হল না বেজিং

এমতাবস্থায়, পুলিশ যখন তদন্ত শুরু করে তখন তারা জানতে পারে যে উভয় ক্ষেত্রেই একজন যাত্রীর হাত রয়েছে ছিল। ওই যাত্রীর সঙ্গে ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে কোনো সাড়া পাওয়া যায়নি। এমতাবস্থায়, দিল্লির পাহাড়গঞ্জে একটি বাড়িতে অভিযান চালিয়ে অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় তিনি এর আগেই এরকম অনেক ঘটনা ঘটিয়েছেন। গত চার মাসে, রাজেশ মোট ৩ টি চুরি করেন। যার মধ্যে ২ টি থেকেই তিনি ৬২.৫ লক্ষ টাকার জিনিসপত্র চুরি করেছেন। এদিকে, পুলিশ জানিয়েছে যে আগে তিনি ট্রেনে চুরি করতেন। কিন্তু তিনি নিজেকে “আপগ্রেড” করে বিমানে চুরি শুরু করেন। আর চুরির জন্যই তিনি এক বছরে ২০০ বারের বেশি বিমানে সফর করেন।

Sayak Panda
Sayak Panda

সায়ক পন্ডা, মেদিনীপুর কলেজ (অটোনমাস) থেকে মাস কমিউনিকেশন এবং সাংবাদিকতার পোস্ট গ্র্যাজুয়েট কোর্স করার পর শুরু নিয়মিত লেখালেখি। ২ বছরেরও বেশি সময় ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর