টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গভারতরাজনীতি

‘রাজনৈতিক প্রতিহিংসা, মাথা নত করব না”, সাকেতের গ্রেফতারিতে ক্ষোভ প্রকাশ মমতা-অভিষেকের

বাংলাহান্ট ডেস্ক : সাকেত গোখলের গ্রেফতারির বিরুদ্ধে গর্জে উঠলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় এবং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। গোটা বিষয়টিকে রাজনৈতিক প্রতিহিংসা বলেই অভিযোগ করেছেন তিনি। গুজরাট সরকারের এই রকম পদক্ষেপকে ধিক্কারও জানান মুখ্যমন্ত্রী। অপরদিকে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় (Abhishek Banerjee) বলেন, ‘যারা মানুষের জীবন নিয়ে ছিনিমিনি খেলছে, যারা মানুষর জীবন নিয়ে ব্যবসা করছে, তাঁদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়েছিলেন।’ ভয় পেয়ে বিজেপি গোখলেকে গ্রেফতার করেছে বলল অভিযোগ করেন অভিষেক।

মঙ্গলবার রাজস্থানের পুস্করে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) বলেন, ‘এটা অত্যন্ত দুঃখজনক। সাকেত খুব ভাল ছেলে। ওর কোনও দোষ নেই। মোরবি একটা বিরাট বড় দুর্ঘটনা। প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে টুইট করেছিল। কিন্তু কিছু ভুল লেখেনি।’ এরপর তিনি আরও বলেন, ‘অনেক সময়ই অনেক বিষয় নিয়ে টুইট করা হয়। অনেকেই করেন। অবশ্যই সাইবার ক্রাইমকে নজর রাখতে হবে যে কোনও টুইট যেন দেশে বিপদ না ডেকে আনে। কিংবা কারও উপর ব্যক্তিগত আক্রমণ না করা হয়।’

অপর দিকে টুইটে অভিষেক লেখেল, ‘যারা মানুষের জীবন নিয়ে ছিনিমিনি খেলছে, যারা মানুষের জীবন নিয়ে ব্যবসা করছে, তাঁদের বিরুদ্ধে ভয়ডরহীনভাবে রুখে দাঁড়িয়েছিলেন। বিজেপি ভয় পেয়ে আমাদের জাতীয় মুখপাত্র সাকেত গোখলেকে গ্রেফতার করল গুজরাট পুলিস।’ তিনি আরও লিখেছেন, ‘বিজেপি যদি মনে করে এসবে ভয় পেয়ে আমরা মাথা নত করব তাহলে এটা তাদের মূর্খামি।’ গ্রেফতারির সমালোচনা করেছেন তৃণমূলের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক কুণাল ঘোষও। তিনি বলেন, ‘এটা অত্যন্ত খারাপ ঘটনা। দিল্লি থেকে গুজরাট যাওয়ার পথে জয়পুরে গ্রেফতার। এটা ন্যক্কারজনক ঘটনা।’

সোমবার গুজরাটে ভোট মিটতেই গোখলেকে গ্রেফতার করে পুলিস। জয়পুর বিমানবন্দরে আগে থেকেই হাজির ছিল গুজরাট পুলিস। সাকেত গোখলে বিমানবন্দরে নামার পর সঙ্গে সঙ্গে গ্রেফতার করা হয়। শুধু গোখলের মায়ের সঙ্গে ২ মিনিটের জন্য ফোনে কথা বলার অনুমতি দেয় পুলিস। তারপরই তাঁর ফোন সহ যাবতীয় জিনিস কেড়ে নেওয়া হয় বলে অভিযোগ তাঁর।

Related Articles