‘মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আস্থার সুযোগকে কাজে লাগিয়ে…’, পার্থকে নিয়ে বিস্ফোরক অভিষেক

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ ২২ এর শুরু থেকে বিভিন্ন দুর্নীতি ইস্যুতে জেরবার রাজ্যের শাসকদল। নিয়োগ দুর্নীতি, পুর নিয়োগ দুর্নীতি, রেশন কেলেঙ্কারি থেকে শুরু করে আরও কত কী! এই সব দুর্নীতিতেই নাম জড়িয়েছে একের পর এক তৃণমূল (Trinamool Congress) নেতা-মন্ত্রীদের। নিয়োগ দুর্নীতির অভিযোগে জেলবন্দি রয়েছেন রাজ্যের প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় (Partha Chatterjee)। ওদিকে কিছুদিন হল রেশন কেলেঙ্কারিতে গ্রেফতার হয়েছেন রাজ্যের প্রাক্তন খাদ্যমন্ত্রী তথা বর্তমান বনমন্ত্রী জ্যোতিপ্ৰিয় মল্লিক।

   

সময়টা ২০২২ সালের জুলাই মাস! রাজ্যের প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বান্ধবী অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের ফ্ল্যাট থেকে পর্বত প্রমাণ টাকা করেছিল ইডি। একই সাথে গ্রেফতার হন পার্থ, অর্পিতা দুজনেই। বর্তমানে ২০২৪। এখনও জেলেই দিন কাটছে তাদের। এবার পার্থ-ঘনিষ্ঠ অর্পিতার ফ্ল্যাটে টাকা উদ্ধার কলঙ্কজনক ঘটনা বলে আখ্যায়িত করলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় (Abhishek Banerjee)।

পাশাপাশি অভিষেক এও বুঝিয়ে দেন কিভাবে দল পার্থর বিরুদ্ধে ইমিডিয়েট অ্যাকশন নিয়েছিল। এই প্রসঙ্গে অভিষেক বলেন, ওই ঘটনার পরই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। দল পার্থের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। মন্ত্রিসভা থেকেও তাকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

এই প্রসঙ্গে কথা বলতে গিয়ে আনন্দবাজার অনলাইনেকে দেওয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় আরও জানান, পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের উপর মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনেক আস্থা ভরসা ছিল। কিন্তু, তার সুযোগকে কাজে লাগিয়ে যে এরকম কাণ্ড ঘটানো হয়েছে, সেটা খুবই দুর্ভাগ্যজনক।

পার্থের পাশাপাশি রাজ্যের আরেক মন্ত্রীও বর্তমানে দুর্নীতির দায়ে জেলবন্দি। রেশন দুর্নীতির অভিযোগে গত বছর শেষের দিকে ইডির হাতে গ্রেফতার হন জ্যোতিপ্ৰিয় মল্লিক ওরফে বালু। পার্থের মত তাকেও কেন মন্ত্রীর পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হল না? এই বিষয়ে অভিষেক বলেন, ‘আজ মন্ত্রী আছেন। কালও যে থাকবেন, তা কে বলতে পারে?”

tmc mp abhishek banerjee

আরও পড়ুন: ফের এতটা DA বাড়ছে সরকারি কর্মীদের! কবে থেকে মিলবে? লেটেস্ট আপডেট জানলে খুশি হবেন

পাশাপাশি কেন্দ্রীয় এজেন্সির তীব্র সমালোচনা করে অভিষেক আরও বলেন, ”ইডি বা সিবিআই আপনারা ভগবান নয়। তারা কাউকে গ্রেফতার করলেই যে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে এমনটা নয়। জ্যোতিপ্রিয়ের ক্ষেত্রে আমরা শুনেছি যে, তার অ্যাকাউন্টে টাকা জমা পড়েছে। তবে এখনও কিছু প্রমাণ করতে পারেনি ইডি। তদন্ত চলছে।” অভিষেক আরও দাবি করেন জ্যোতিপ্ৰিয় এখনও দোষী প্রমাণিত হননি।