ফের মুখ ঢাকবে মাস্কে! কেরালার পর এই দুই রাজ্যে দাপট দেখাচ্ছে নয়া ভেরিয়েন্ট, এখনই হয়ে যান সতর্ক

বাংলা হান্ট ডেস্ক: দেশজুড়ে (India) আবারও প্রভাব বিস্তার করছে অদৃশ্য মারণ ভাইরাস করোনা (Corona Virus)। শুধু তাই নয়, বিগত কয়েকদিন দেশে করোনার নতুন কেসের সংখ্যা ক্রমশ বাড়ছে। সবথেকে উদ্বেগের বিষয় হল, কেরালার পর আরও দু’টি রাজ্যে এই ভাইরাসের নতুন সাব-ভেরিয়েন্ট JN.1-এর সংক্রমণের বিষয়টি সামনে এসেছে। যার ফলে দেশে আবারও করোনা মহামারী ফিরে আসার সম্ভাবনার আবহও তৈরি হয়েছে।

   

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, দেশে করোনার অ্যাক্টিভ কেসের সংখ্যা এখন ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে এবং ইতিমধ্যেই তা ২,০০০-এর গণ্ডি অতিক্রম করেছে। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের মতে, কেরালার পরে মহারাষ্ট্র এবং গোয়াতেও করোনার JN.1 ভেরিয়েন্টের সংক্রমণের কেস রিপোর্ট করা হয়েছে। প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, মহারাষ্ট্রে ১ জনের এবং গোয়ায় ১৮ জনের সংক্রমণের খবর সামনে এসেছে। এখন প্রতিদিনই নতুন এই ভেরিয়েন্টে আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে।

After Kerala, the new variant of Corona is showing dominance in these two states

জানিয়ে রাখি যে, ইতিমধ্যেই এই ভেরিয়েন্ট আমেরিকা, সিঙ্গাপুর এবং চিনেও ছড়িয়ে পড়েছে। এদিকে, JN.1 ভেরিয়েন্টের ক্রমবর্ধমান সংক্রমণের পরিপ্রেক্ষিতে, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এটিকে “ভেরিয়েন্ট অফ ইন্টারেস্ট” হিসেবে বিবেচনা করেছে। পাশাপাশি, বাড়তে থাকা সংক্রমণের আবহে বিশেষজ্ঞরা সাধারণ মানুষকে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছেন। বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, এই সময়ে জনগণের জনবহুল এলাকায় যাওয়ার বিষয়টি এড়িয়ে চলা উচিত। এছাড়াও, কোভিড প্রোটোকলও অনুসরণ করা উচিত।

আরও পড়ুন: বছর শেষে খুশির খবর দিল RBI! জানলে আপনিও হবেন চিন্তামুক্ত

নজর রাখতে হবে নতুন ভেরিয়েন্টের দিকে: এই প্রসঙ্গে দিল্লির রাজীব গান্ধী হাসপাতালের কোভিড নোডাল অফিসার হিসেবে কর্মরত চিকিৎসক ডাঃ অজিত জৈন জানিয়েছেন যে নতুন ভেরিয়েন্টটিকে হালকাভাবে নেওয়া উচিত নয়। এই ভেরিয়েন্টের কারণে বিশ্বের একাধিক দেশে করোনার ঘটনা বাড়ছে। যদিও, বর্তমানে ভেরিয়েন্টটির লক্ষণগুলি হালকা। তবে যেভাবে কেস বাড়ছে তা বিবেচনা করে সতর্ক থাকা দরকার। বিশেষ করে বয়স্ক রোগী এবং যাঁদের আগে থেকেই গুরুতর অসুস্থতা রয়েছে তাঁদের বিশেষ সতর্ক হওয়া উচিত।

আরও পড়ুন: মোবাইল প্রেমীদের জন্য সুখবর! নতুন বছরে বাজার কাঁপাবে একাধিক দুর্ধর্ষ স্মার্টফোন, সামনে এল দিনক্ষণ

জিনোম সিকোয়েন্সিং বাড়াতে হবে: তিনি আরও বলেন, নতুন ভেরিয়েন্টের তদন্ত করতে জিনোম সিকোয়েন্সিং বাড়াতে হবে। তবেই, জানা যাবে কতজন মানুষ এই ভ্যারিয়েন্টে আক্রান্ত। এছাড়াও, এই ভেরিয়েন্ট কমিউনিটিতে ছড়িয়ে পড়েছে কি না তাও দেখতে হবে। যদি তাই হয়, তাহলে আগামী সপ্তাহগুলিতেই কোভিড সংক্রান্ত নজরদারি বাড়াতে হবে। বর্তমানে কেরালা ছাড়া বাকি রাজ্যগুলিতে পরিস্থিতি স্বাভাবিক। তাই, এখনই আতঙ্কিত হওয়ার দরকার নেই। তবে, জনগণকে সতর্ক থাকতে হবে বলেও জানান তিনি।