‘জয় শ্রী রাম’র বদলে উঠল ‘আল্লাহু আকবর’ ধ্বনি! কোচবিহারে BJP-র মিছিলে মুসলিমদের ঝড়

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ ‘জয় শ্রী রাম’ নয়, তার বদলে বিজেপির মিছিল থেকে উঠল ‘আল্লাহু আকবর’ ধ্বনি (Allahu Akbar slogan from BJP rally)। ঘটনাস্থল কোচবিহার (Coochbehar)। ভোটমুখী রাজ্যে সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিযায় ভাইরাল হয়েছে এক ভিডিও। যা নিয়ে রীতিমতো তোলপাড়। ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে বিজেপির পতাকা হাতে নিয়ে মিছিলে হাঁটছেন বেশ কিছু মানুষ। আর এই মিছিল থেকেই উঠছে ‘আল্লাহু আকবর’ ধ্বনি।

   

স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্বের দাবি, কোচবিহার লোকসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত সীতাই এবং দিনহাটা বিধানসভা কেন্দ্রের মুসলিমদের নিয়েই এক মিছিলের আয়োজন করেছিল দল। সমস্ত মুসলিম ভাই-রা সেই মিছিলে যোগ দিয়েছিলেন। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, এই লোকসভা আসনেই বিজেপির হেভিওয়েট প্রার্থী কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের রাষ্ট্রমন্ত্রী তথা বিদায়ী সাংসদ নিশীথ প্রামাণিক।

এই ‘নজিরবিহীন’ মিছিল প্রসঙ্গে কোচবিহারের জেলা বিজেপি সভাপতি সুকুমার রায়কে উদ্ধৃত করে দ্য টাইমস অফ ইন্ডিয়ার প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, এই ভাবে দুটি বিধানসভা কেন্দ্র দিয়ে শুরু হল। এরপর কোচবিহার জেলার লোকসভা আসনের প্রতিটি বিধানসভা কেন্দ্রের মুসলিমদের নিয়ে এভাবেই বৃহত্তর মিছিল করবে গেরুয়া শিবির।

গেরুয়া শিবিরের আরও দাবি, এখন আর মুসলিমরা তৃণমূলের সাথে নেই। তৃণমূল যে তাদের কেবলমাত্র ভোটব্যাঙ্ক ভরাতে ব্যবহার করেছে এ কথা তাদের বোঝা হয়ে গেছে। রাজ্যে মুসলিমদের কোনো উন্নয়ন করেনি। শুধুই ভোটের সময় তোষামোদ। তাই সাম্প্রদায়িক দল তৃণমূলকে ছেড়ে এখন বিজেপির উন্নয়নের জোয়ারে গা ভাসাতে এগিয়ে আসছেন মুসলিমরা।

bjp flag f

আরও পড়ুন: সন্দেশখালি বাঘের মুখে নয়া আতঙ্ক! এক রায়ে জেলবন্দি শাহজাহানের হৃদস্পন্দন বাড়িয়ে দিল আদালত

মার্চ মাসে শিলিগুড়িতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী জনসভাতেও প্রচুর মুসলিম যোগদান করেছিলেন বলেও দাবি কোচবিহার জেলা বিজেপি নেতৃত্বের। প্রসঙ্গত, কেবল দলের জেলা নেতৃত্ব বা রাজ্য নেতৃত্বই নয় কিছুদিন আগে এই একই বক্তব্য শোনা গিয়েছে খোদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর মুখেও। কিছুদিন আগেই আরামবাগের জনসভা থেকে মোদী দাবি করেছিলেন যে তৃণমূলের সংখ্যালঘু ভোটব্যাঙ্কে এবার মুখ থুবড়ে পড়বে।

Sharmi Dhar
Sharmi Dhar

শর্মি ধর, বাংলা হান্ট এর রাজনৈতিক কনটেন্ট রাইটার। উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাংবাদিকতায় স্নাতকোত্তর। বিগত ৩ বছর ধরে সাংবাদিকতা পেশার সঙ্গে যুক্ত ।

সম্পর্কিত খবর