দুর্গাপুজো করার খাস জমি দখলের অভিযোগ তৃণমূল নেতা কাইজারের বিরুদ্ধে, ক্ষোভে যা করল গ্রামবাসী…

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ ফের কাঠগড়ায় তৃণমূল নেতা। এবার সরকারি জমি দখল করে বিক্রি করে দেওয়ার অভিযোগে উঠল তৃণমূল কংগ্রেস নেতা কাইজার আহমেদের (TMC Leader Kaizer Ahmed) বিরুদ্ধে। শুক্রবার এই অভিযোগে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে ভাঙড় (Bhangar)। তৃণমূল নেতার বিরুদ্ধে বিক্ষোভে সামিল হয় গ্রামবাসীরা।

   

ঘটনাটা কি? দীর্ঘ প্রায় ৫০ বছর ধরে ভাঙড় ২ নম্বর ব্লকের পাঁচগাছিয়া পালপাড়ায় ওই সরকারি জমিতে দুর্গাপুজো করেন গ্রামবাসীরা। পাশাপাশি নানা রকম সামাজিক অনুষ্ঠানও হয় বলে জানা গিয়েছে। গ্রামবাসীর অভিযোগ, সেই জমি জবরদখল করে বিক্রি করে দিচ্ছে স্থানীয় তৃণমূল নেতা কাইজার আহমেদ।

গতকাল ওই জমিতে নির্মাণকাজ শুরু হতেই তা চোখে পড়ে এলাকার কিছু মানুষের। সেখানে কাজে নিযুক্ত শ্রমিকদের জিজ্ঞাসাবাদ করতে তারা বলেন, TMC নেতা কাইজার আহমেদ ওই জমি কিনেছেন। ওই জমিতে পাঁচিল দেওয়ার কাজ শুরু হবে। একথা শুনেই ক্ষোভে ফেটে পড়েন তারা। তৃণমূল নেতার বিরুদ্ধে বিক্ষোভে সামিল হন স্থানীয় পাঁচগাছিয়া বিবেকানন্দ যুব সংঘের সদস্যরা।

আরও পড়ুন: নজিরবিহীন! তৃণমূলেরই ‘বেআইনি’ ধরনা তুলে দিল পুলিশ, বিচারপতি মান্থা হেসে বললেন, ‘ভালো….’

তাদের দাবি, ওই জমি নিজেদের এমনটা দাবি করে বিডিও ও কাশীপুর থানার ওসিকে চিঠিও দিয়েছেন সেচ দফতরের আধিকারিক। বিক্ষোভের খবর শুনে ঘটনাস্থলে পৌঁছান কাইজার আহমেদ। তাকে দেখে বিক্ষোভ বাড়তে থাকে। যদিও তার ওপর ওঠা অভিযোগ সম্পূর্ণরূপে খারিজ করেন কাইজার।

tmc flag

তৃণমূল নেতার পাল্টা দাবি, কিছুদিন আগে থানায় গিয়ে জমি সংক্রান্ত সমস্ত নথি তিনি ওসিকে দেখিয়েছেন। সব মেনেই কাজ শুরু হয়েছে। এই জমি তার নামে ভূমি রাজস্ব দফতরে নথিভুক্ত বলেও দাবি করেন কাইজার।

তার কথায়, গ্রামবাসীদের দাবি অনুসারে তিনি ১০ শতক জায়গা ছাড়তেও রাজি হয়েছেন। ওদিকে গ্রামবাসীদের দাবি মিথ্যে কথা বলছেন কাইজার। ভূমি রাজস্ব দফতরের সাহায্য নিয়ে সেচ দফতরের ৩ একর জমি দখল করেছেন তৃণমূল নেতা। এই অভিযোগেই চলতে থাকে বিক্ষোভ।