পুজোর জন্য মুখ্যমন্ত্রীর দেওয়া অনুদান হাতানোর চেষ্টা তৃণমূলের! বাধা দেওয়ায় স্থানীয়দের মারধর

   

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ বাঙালির শ্রেষ্ঠ উৎসব দুর্গাপুজোর আর মাত্র দু’মাস বাকি। ইতিমধ্যে পুজো কমিটিগুলি জোর কদমে প্রস্তুতিও শুরু করে দিয়েছে। প্ৰতি বছরের মতো এবারও দুর্গাপুজো উপলক্ষে ক্লাবগুলির জন্য অনুদান ঘোষণা করেছে রাজ্য সরকার। রাজ্যের ৪৩ হাজার দুর্গাপুজো কমিটির জন্য অনুদান (Durgapujo Donation) বাড়িয়ে ৭০,০০০ টাকা ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। আর এবার সেই অনুদান ঘিরেই অবাক কাণ্ড।

দুর্গাপুজোর জন্য দেওয়া অনুদানের টাকা হাতিয়ে নেওয়ার চেষ্টার অভিযোগ উঠল একদল যুবকের বিরুদ্ধে। আর ওদিকে ঘটনার প্রতিবাদ করায় স্থানীয়দের মারধর করারও অভিযোগ উঠল। ঘটনা ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে গোটা এলাকায়।

এদিন ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর দিনাজপুর জেলার রায়গঞ্জ (Raiganj) থানার ১২ নম্বর বড়ুয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের বড় বড়ুয়া গ্রামে। সূত্রের খবর, ওই যুবকের দলকে বাধা দিতে গিয়ে বেশ কয়েকজন এলাকাবাসী গুরুতর আহত হয়েছেন। তাদের মধ্যে আশঙ্কাজনক একজনকে রায়গঞ্জ গভর্নমেন্ট মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন: ঘূর্ণাবর্তের হুঙ্কার! কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গে আছড়ে পড়বে ঝড়-বৃষ্টি, বাজ থেকে সাবধান এই ৭ জেলায়

এলাকাবাসীর অভিযোগ, ওই অভিযুক্ত যুবকেরা সকলেই তৃণমূলের (Trinamool Congress) লোক। আবার যাদের মারধর করা হয়েছে তারাও শাসকদলের বলে জানা গিয়েছে। স্থানীয়দের বাসিন্দাদের অভিযোগ ওই এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে একটি বারোয়ারি পুজো হয়ে আসছে। যা ক্লাবের পুজো নয়। তবে এলাকায় ওই যুবকের দল সেই পুজোকে ক্লাবের পুজো হিসেবে দেখিয়ে অনুদান নিজেদের পকেটে ভরতে চাইছে।

mamata tmc

আরও পড়ুন: ‘একবার BJP ক্ষমতায় আসুক… সব পাল্টে দেব’, গোলামির কোনও চিহ্ন থাকবে না’, দিলীপের হুঙ্কার

ঘটনা জানাজানি হতে স্থানীয়রা প্রতিবাদ জানালেই তাদের ওপর ওই যুবকেরা চড়াও হয় বলে অভিযোগ। তাদের আরও দাবি, গত বছরও দুর্গাপুজোর যাবতীয় খরচের হিসেব ঠিকমতো না দেওয়ায় তাদের সঙ্গে গ্রামবাসীদের বচসা হয়। আর এবার হাতাহাতি পর্যন্ত। ঘটনার পরই আক্রান্তরা রায়গঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন ওই যুবকদের বিরুদ্ধে। তবে এখনও পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করেনি পুলিশ। শুরু হয়েছে তদন্ত।

Sharmi Dhar
Sharmi Dhar

শর্মি ধর, বাংলা হান্ট এর রাজনৈতিক কনটেন্ট রাইটার। উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাংবাদিকতায় স্নাতকোত্তর। বিগত ৩ বছর ধরে সাংবাদিকতা পেশার সঙ্গে যুক্ত ।

সম্পর্কিত খবর