ফের আগুনের করাল গ্রাসে ভারতীয় রেল! ভুবনেশ্বর-হাওড়া জনশতাব্দী এক্সপ্রেসে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড

বাংলা হান্ট ডেস্ক : আবারও দুর্ঘটনার (Accident) মুখে ভারতীয় রেল (Indian Railways)। সকাল সকাল ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের সম্মুখীন হল ভুবনেশ্বর থেকে হাওড়াগামী জনশতাব্দী এক্সপ্রেস (Bhubaneswar Howrah Jan Satabdi Express)। বৃহস্পতিবার সকালে এই মর্মান্তিক দুর্ঘটনাটি ঘটেছে কটক স্টেশনের কাছে। তারপর থেকেই চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়। একটার পর একটা দুর্ঘটনার কারণে এখন বড় প্রশ্নের মুখে ভারতীয় রেল কর্তৃপক্ষ।

   

রেল সূত্রে খবর, দুর্ঘটনার খবর পাওয়া মাত্রই সেখানে পৌঁছে যায় দমকল বাহিনী। সেই সাথে ঘটনাস্থলে উপস্থিত রয়েছে রেল আধিকারিকরা। সকলের মিলিত প্রচেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে বলে খবর। সেই সাথে কোনও হতাহতের খবরও মেলেনি। তবে বড় প্রশ্ন হল, আগুন লাগলো কীভাবে?

রেল আধিকারিকরা জানাচ্ছেন, কটক স্টেশনে হল্ট করার সময় জনশতাব্দী এক্সপ্রেসের ব্রেক বাইন্ডিংয়ে একটি যান্ত্রিক ত্রুটি দেখা যায়। আর ঠিক তখনই ট্রেনের নীচে আগুন ধরে যায়। একটি কোচের নীচের অংশ থেকে দাউ দাউ করে আগুন জ্বলতে থাকে। তবে কপাল ভালো ছিল যে, স্টেশনে ঢোকার মুখেই এই দুর্ঘটনা ঘটায় বড় বিপদ এড়ানো গেছে। স্টেশনের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এবং দমকলের মিলিত চেষ্টায় আগুন নেভানো গিয়েছে।

সেই সাথে যাত্রীদেরও সতর্ক করে দেওয়া হয়। চারিদিকে ধোঁয়া আর আগুনের লেলিহান শিখা দেখে আতঙ্কিত হয়ে পড়ে যাত্রীরাও। তবে ভালো খবর এটাই যে, ঈশ্বরের কৃপায় কোনও হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। তবে এই প্রথম নয়, এর আগেও গত ১৫ নভেম্বর দিল্লি-দ্বারভাঙা এক্সপ্রেসে আগুন ধরে যায়। উত্তরপ্রদেশের কাছে ঘটে যাওয়া এই দুর্ঘটনায় সেবার বেশ কিছু মানুষ গুরুতর আহত হয়েছিলেন। কয়েকজন আগুন থেকে বাঁচার জন্য লাফ দেওয়ার চেষ্টা করলে আরও বেশি জখম হন।

সেবার জানা গিয়েছিল ট্রেনটিতে ধারণ ক্ষমতার চেয়েও বেশি যাত্রী থাকায় এই দুর্ঘটনা ঘটেছিল। এদিকে বাংলার বুকেও একইরকম দুর্ঘটনার খবর। সকাল সকাল ধোঁয়া দেখা যায় বীরভূমের আহমদপুর স্টেশনে ঢোকার মুখে হাওড়াগামী মালদা ইন্টারসিটি এক্সপ্রেসের একটি কামরায়। যদিও যান্ত্রিক গোলযোগ সারিয়ে সেই ট্রেন আবার তার গন্তব্যের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছে।