কেউ নিচ্ছে না ছোট ১ টাকার কয়েন? এখনই সতর্ক না হলে পড়বেন বিপদে, বড় আপডেট RBI-এর

   

বাংলা হান্ট ডেস্ক: বর্তমান সময়ে বাজারে (Market) কেনাকাটা করতে যাওয়া হোক কিংবা বাসে অথবা অটোতে চেপে কোথাও যাতায়াত, প্রতিটি ক্ষেত্রেই খুচরোর একটি অভাব পরিলক্ষিত হয়। বিশেষ করে কয়েক বছর আগে পর্যন্ত যেরকম এক টাকা বা দু’টাকার কয়েন (Coin) নিশ্চিন্তে বাজারে চালানো যেত সেই বিষয়টিও এখন প্রায় উধাও হয়ে গিয়েছে। তবে, ২ দু টাকার কয়েন এখনও চললেও ১ টাকার কয়েন ব্যবহার করতে গিয়ে বিপাকে পড়ছেন সাধারণ মানুষ।

সকলেই একটি বিষয় উপস্থাপিত করছেন যে, দোকানের কেনাকাটাই হোক কিংবা বাস বা অটোর ভাড়া প্রতিটি ক্ষেত্রেই ছোট এক টাকার কয়েন গ্রহণ করা হচ্ছে না। আর সেই কারণেই ক্রমশ ব্যবহার কমে যাচ্ছে এই কয়েনের। এমতাবস্থায় অনেকেই মনে করছেন যে, এক টাকার কয়েন হয়তো আর দেশে বৈধ নয়। আসলে, অনেকের কাছেই এই বিষয়টি সম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা নেই।

Big update from RBI on small one rupee coins

এমতাবস্থায়, আপনিও যদি এমন অবস্থার সম্মুখীন হন সেক্ষেত্রে এই প্রতিবেদনটি আপনাকে সাহায্য করতে পারে। প্রথমেই জানিয়ে রাখি যে, আমাদের দেশে একদম ৫০ পয়সা থেকে শুরু করে ১ টাকা, ২ টাকা, ৫ টাকা এবং ২০ টাকার কয়েন প্রচলিত রয়েছে। সবথেকে উল্লেখযোগ্য বিষয় হল, এই প্রতিটি কয়েন RBI দ্বারা জারি করা হয়। পাশাপাশি, কয়েনগুলির একাধিক নকশাও বাজারে উপলব্ধ রয়েছে।

আরও পড়ুন: পান থেকে চুন খসলেই হবে ধামাকা! শত্রুদেশের ঘুম ওড়াতে রাশিয়ার কাছ থেকে মোক্ষম অস্ত্র কিনছে ভারত

এমন পরিস্থিতিতে এই কয়েনগুলি সম্পূর্ণ বৈধ রয়েছে এবং কেউ এগুলির গ্রহণে অস্বীকার করতে পারেন না। পাশাপাশি, RBI-এর তরফে এটাও জানানো হয়েছে যে, এখনও পর্যন্ত শুধু ২৫ পয়সা বা তার কম মূল্যের কয়েন নিষিদ্ধ করা হয়েছে এবং সেগুলির প্রচলন বন্ধ করা হয়েছে। তবে, তার ওপরের কয়েনের ক্ষেত্রে কোনো নিষেধাজ্ঞা নেই।

আরও পড়ুন: পাত্তা পাবেন না বিরাট-রোহিতেরা! ভারতের এই মহিলা ক্রিকেটারই বসবাস করেন সবথেকে দামি বাড়িতে

এদিকে, ৫০ পয়সার ক্ষেত্রে নতুন কয়েন জারি করা না হলেও ওই কয়েনের প্রচলনও বন্ধ হয়ে যায়নি। আর সেই কারণেই এই সকল কয়েনগুলি প্রতিটি ক্ষেত্রেই সচল রয়েছে এবং আপনি এগুলিকে কাজে লাগিয়ে জিনিসপত্রও কিনতে পারেন বা খরচ মেটাতে পারেন। শুধু তাই নয়, RBI এটাও জানিয়েছে যে, যদি কেউ এই কয়েন নিতে অস্বীকার করেন সেক্ষেত্রে তাঁর বিরুদ্ধে সরকার কড়া পদক্ষেপ গ্রহণ করতে পারে।

Sayak Panda
Sayak Panda

সায়ক পন্ডা, মেদিনীপুর কলেজ (অটোনমাস) থেকে মাস কমিউনিকেশন এবং সাংবাদিকতার পোস্ট গ্র্যাজুয়েট কোর্স করার পর শুরু নিয়মিত লেখালেখি। ২ বছরেরও বেশি সময় ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর