বকেয়া ৪০টি ট্রাফিক কেস, রাস্তায় ধরে যা করল পুলিশ! চালান দিতে দিতেই কাটবে জীবন

বাংলাহান্ট ডেস্ক : আমাদের দেশে ট্রাফিক আইন লঙ্ঘন নতুন কোনও ঘটনা নয়। নির্দিষ্ট ট্রাফিক আইন থাকা সত্ত্বেও বহু চালক ট্রাফিক আইন লঙ্ঘন করেন। যদিও ট্রাফিক লঙ্ঘনকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থাও নেয় ট্রাফিক পুলিশ। ক্ষেত্র বিশেষে করা হয় জরিমানা। বেঙ্গালুরুর (Bengaluru) এমনই এক বাইক চালকের বিরুদ্ধে রয়েছে বিস্তর অভিযোগ।

ওই ব্যক্তিকে শনিবার বেঙ্গালুরুর এক পুলিশ রাস্তায় আটক করে। এরপর পুলিশ দেখে ওই ব্যক্তির বাকি রয়েছে চল্লিশটি ট্রাফিক কেসের জরিমানার (Challan) টাকা। অর্থাৎ এর আগে তিনি বহুবার ভঙ্গ করেছেন ট্রাফিক আইন। ওই ব্যক্তির অতীতে বহুবার জরিমানা হলেও তিনি সেই জরিমানার টাকা কর্তৃপক্ষকে মেটাননি। সব মিলিয়ে শনিবার ট্রাফিক পুলিশ ওই ব্যক্তিকে ১২ হাজার টাকা জরিমানা করে।

আরোও পড়ুন : জাল ফেলতেই কেল্লাফতে! একবারেই উঠে এল ৭৫০০ ইলিশ, বিক্রি কত দামে? শুনলে হাঁ হয়ে যাবেন

জরিমানা করার সেই ছবি পুলিশের পক্ষ থেকে পোস্ট করা হয়েছে সোশ্যাল মাধ্যমে। সেই ছবিতে দেখা যাচ্ছে ওই ব্যক্তি হাতে জরিমানার কাগজ নিয়ে দাঁড়িয়ে রয়েছেন, তার পাশে রয়েছেন কর্তব্যরত ট্রাফিক পুলিশ। এই ছবি রীতিমতো ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মাধ্যমে। সোশ্যাল মাধ্যমে এই ছবি ভাইরাল হওয়ার পর বহু মানুষ বিভিন্ন ধরনের মন্তব্য করেছেন।

আরোও পড়ুন : বন্ধ ট্রেন, রামপুরহাট টু কলকাতা যেতেই হিমশিম খাচ্ছে আমজনতা! দেখে নিন বিকল্প পথ আর খরচ

একজন ব্যবহারকারী লিখেছেন, ওই ব্যক্তির ড্রাইভিং লাইসেন্সটা বাতিল করা দরকার। অন্যজন আবার মন্তব্য করেছেন, জরিমানা আদায় করাটা আপনার একমাত্র কাজ হতে পারে না। আপনি কি আরটিওকে বলেছেন যাতে তার লাইসেন্সটা অবিলম্বে বাতিল করা হয়। না হলে আগামী বছর আবার আপনি ওই যুবকের সঙ্গে ছবি তুলে পোস্ট করবেন।

অন্য এক ব্যবহারকারীর মন্তব্য, এত টাকা জরিমানা দিচ্ছেন কিন্তু এতটুকু লজ্জা নেই। আবার এই ছবি দেওয়ার বিরুদ্ধে এক ব্যবহারকারীর মন্তব্য করেছেন, এই যে টুইটারে দেওয়া হল। সেক্ষেত্রে কি তার সম্মতি নেওয়া হয়েছিল? এভাবে সবার সামনে হেনস্থা করার মানে হয় না। বিষয়টি নিয়ে পক্ষে-বিপক্ষে বিভিন্ন ধরনের মন্তব্য উঠে আসছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

তবে সম্প্রতি বেঙ্গালুরু পুলিশের পক্ষ থেকে চালু করা হয়েছে ইন্টেলিজেন্ট ট্রাফিক ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম। এই সিস্টেমের মাধ্যমে বলা হচ্ছে কোন ধরনের ট্রাফিক নিয়ম লঙ্ঘন করলে কী ধরনের জরিমানা হবে ইত্যাদি বিষয়গুলি। এরই সাথে ব্যবহার করা হচ্ছে এআই প্রযুক্তির। সব মিলিয়ে বলা যায়, আরোও জোরদার হয়ে উঠছে ট্রাফিক আইন।