টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গবিধানসভা নির্বাচন

ব্রিগেডের মঞ্চেই জোটে চওড়া ফাটল! আব্বাসের উপর গোসা অধীরের, কোনওমতে ধরে বেঁধে রাখলেন বিমান

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ বামেদের সঙ্গে আসন সমঝোতা হয়েছে আব্বাস সিদ্দিকীর ইন্ডিয়ান সেকুলার দলের। ফুরফুরা শরীফের পীরজাদা আব্বাস সিদ্দিকীর দাবি মেনে তাঁদের পছন্দমতো আসন ছেড়ে দিয়েছে বামেরা। কিন্তু কংগ্রেসের সঙ্গে এখনও বোঝাপড়া হয়ে ওঠেনি ভাইজানের। আব্বাসের দাবি মতো আসন ছাড়তে নারাজ প্রদেশ কংগ্রেস। আর সেই কারণে ব্রিগেডে আসবেন না বলেও জানিয়েছিলেন আব্বাস। তবে শেষ মুহূর্তে সিদ্ধান্ত বদল করে ব্রিগেডে আসার ঘোষণা করেন আব্বাস সিদ্দিকী।

আজ ব্রিগেডে আসা মাত্রই পলিটব্যুরো সদস্য মহঃ সেলিম এগিয়ে যান ভাইজানের দিকে। বুকে টেনে নিয়ে মঞ্চে স্বাগত জানান তিনি। এরপর সিপিআএম-এর রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্রও ওনাকে বুকে টেনে নিয়ে স্বাগত জানান। মঞ্চে দাঁড়িয়ে ওনাকে স্বাগত জানান ছত্তিসগড়ের মুখ্যমন্ত্রী ভূপেশ বাঘেলও।

সেই সময় মঞ্চে বক্তৃতা দিচ্ছিলেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি তথা সাংসদ অধীর রঞ্জন চৌধুরী। তিনি নিজের বক্তব্য থামিয়ে রেখেছিলেন ঠিকই, কিন্তু ভাইজানকে স্বাগত জানানোর জন্য এগিয়ে যান নি। এমনকি আব্বাস মঞ্চে ওঠা মাত্র অধীরবাবু গোসা করে বক্তৃতা ছেড়েও চলে যাচ্ছিলেন। তখন বিমান বসু এগিয়ে এসে আবেদন করে অধীরবাবুকে ভাষণ চালিয়ে যেতে বলেন।

অধীরবাবু নিজের বক্তৃতায় বামেদের বন্ধু বলে উল্লেখ করলেও আব্বাস সিদ্দিকীর দলকে নিয়ে কিছু বলেন নি। আরেকদিকে, আব্বাস সিদ্দিকীও নিজের বক্তৃতায় কংগ্রেসের সঙ্গে বোঝাপড়ার কথা বলা বাদ দিয়ে উল্টে হুঁশিয়ারি দিয়ে বসেন। তিনি পরিস্কার জানিয়ে দেন, জোটে আছেন কিন্তু কাউকে তোষামোদ করবেন না। আজ ব্রিগেডের মঞ্চে এই নাটক সবারই চোখে পড়েছে।

ব্রিগেড সমাবেশের আগের দিন শনিবার রাতেও আসন নিয়ে বাম আর কংগ্রেসের সঙ্গে আলোচনা করেছে আব্বাস সিদ্দিকীর দল ISF। কিন্তু সেখানেও রফাদফা হয়নি। আগামীকালও আবারও আলোচনা হবে। বামেরা আব্বাস সিদ্দিকীকে ৩০ টি আসন দেওয়ার জন্য সহমত হয়েছে। কিন্তু কংগ্রেস তাতে সহমত নয়। আর সেই কারণেই মহাজোটের আসন সমঝোতা ঝুলে রয়েছে।

Back to top button