‘দুজনের নাম জানতে পেরেছি, বাকিদের নামও পেয়ে যাব’, আইনজীবীদের হুঁশিয়ারি প্রধান বিচারপতির

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ আইনজীবীদের কাণ্ডে বিস্মিত হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি টি এস শিবজ্ঞানম (Justice T. S. Sivagnanam)। আদালতে কাজ শেষ হয়ে যাওয়ার পরও তাদের যেকোনও একটি কক্ষ দিতে হবে, সেখানে বসে বৈঠক করবেন তারা! কলকাতা হাইকোর্টের (Calcutta High Court) আইনজীবীদের একাংশের এমন দাবি শুনেই ক্ষুব্ধ প্রধান বিচারপতি।

   

সূত্রের খবর, কাজের পর আলাদা কক্ষে বসে বৈঠক করার দাবি জানিয়ে বৃহস্পতিবার হাইকোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেলের কাছে যান রাজ্যের বিজেপিপন্থী আইনজীবী সেল। যদিও তাদের মানেন নি হাইকোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল। এরপরই নিজেদের দাবি তুলে গতকাল রেজিস্ট্রারের ঘরের সামনে বিক্ষোভে সামিল হন ওই আইনজীবীরা।

হাই কোর্টের আইনজীবীদের এহেন আচরণের কথা শুনে ক্ষুব্ধ প্রধান বিচারপতি। এদিন ভরা এজলাসেই বিচারপতির তীব্র ভর্ৎসনার মুখে পড়েন ওই আইনজীবীরা। বিচারপতি বলেন, আইনজীবীদের একাংশ যা সব করছেন তা কোনোভাবেই বৈধ নয়। কোনো রাজনৈতিক দলের ছত্রছায়ায় থেকে এসব ঘটছে।

এখানেই থেমে যাননি বিচারপতি। এরপর সেই সকল আইনজীবীদের উদ্দেশে বিচারপতি বলেন, ‘এটা আদালত না বৈঠকখানা?’ প্রধান বিচারপতি আরও বলেন, “গতকাল এজলাসের ভিতরেই বৈঠক করার দাবি জানিয়ে রেজিস্ট্রার জেনারেলের অফিসের কর্মীদের হুমকি পর্যন্ত দেওয়া হয়েছে। পরশুও ৪০ জন আইনজীবী মিলে বৈঠক করেছেন। এজলাসের সাধারণ কর্মীদের হুমকি, চিৎকার চেঁচামেচি পর্যন্ত চলেছে।

hc chief justice

আরও পড়ুন: গার্ডেনরিচ কাণ্ডের পর আরও কড়াকড়ি! বেআইনি নির্মাণ মামলায় বিরাট নির্দেশ হাই কোর্টের

সোজাসুজি হুঁশিয়ারি দিয়ে বিচারপতি বলেন, ‘ কর্মীরা আইনজীবীদের জন্যই কাজ করেন, তারা যদি নিরাপদ না থাকেন তাহলে কোথায় যাবেন? ইতিমধ্যেই আমি দুজনের নাম জানতে পেরেছি, বাকিদের নামও পেয়ে যাব। আদালতের মর্যাদা রক্ষা করতে হবে।’ পাশাপাশি তাদের দাবি যে কোনোভাবেই মান্যতা দেওয়া হবে না সেকথাও জানিয়ে দেন বিচারপতি।

Sharmi Dhar
Sharmi Dhar

শর্মি ধর, বাংলা হান্ট এর রাজনৈতিক কনটেন্ট রাইটার। উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাংবাদিকতায় স্নাতকোত্তর। বিগত ৩ বছর ধরে সাংবাদিকতা পেশার সঙ্গে যুক্ত ।

সম্পর্কিত খবর